• শনিবার   ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৯ ১৪২৮

  • || ১৭ সফর ১৪৪৩

এসিল্যান্ড কক্ষে আছেন, বিনা অনুমতিতে জুতাসহ প্রবেশ করুন

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৯ আগস্ট ২০২১  

ভূমি সেবা প্রার্থীদের ভোগান্তি কমাতে এসএম রবিন শীর্ষ সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিরাজগঞ্জ সদর এক ব্যাতিক্রমী প্রদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। বাংলাদেশে জমি সংক্রান্ত বিষয়ে নানান তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ যাচাই বাছাই খাজনা পরিশোধের একমাত্র প্রতিষ্ঠান ভূমি অফিস। জায়গা বা জমির দলিল বিষয় একটু জটিল প্রক্রিয়া হওয়ায় অধিকাংশ মানুষ এ বিষয়গুলো সম্পর্কে অজ্ঞ থাকেন। ফলে কিছু অসাধু ব্যাক্তি মানুষের সরলতার সুযোগ নিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ায় ক্ষতিগ্রস্থ হয় অসংখ্য সাধারণ মানুষ। সর্বস্ব হারিয়ে অসহায়ত্বের সাথে দিনের পর দিন পার করণে গ্রামের খেটে খাওয়া দিনমজুর মানুষগুলো। কোন অসাধু ব্যাক্তি দ্বারা সহজ সরল মানুষ প্রতারণার স্বীকার না হয় সে লক্ষে সিরাজগঞ্জ সহকারি কমিশনার (ভূমি) অফিস কক্ষে সরাসরি গ্রাহকের প্রবেশের ব্যাবস্থা করা হয়েছে। কোন কর্মচারি যেন সেবা প্রার্থীদের বিভ্রান্ত করতে না পারে তাই অফিস কক্ষে লেখা হয়েছে এসিল্যান্ড কক্ষে আছেন, বীনা অনুমতিতে জুতাসহ প্রবেশ করুন। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিভিন্ন বয়সি ভূমি সেবা প্রার্থী সহকারি কমিশনারের কক্ষে বসে আছেন এবং পর্যায় ক্রমে এক এক করে সকলের সমস্যার কথা শুনে সমাধানের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। ভূমি কমিশানের সাথে সরাসরি সমস্যা নিয়ে কথা বলতে পেরে আনন্দিত সেবা প্রার্থীরা। এ বিষয়ে সেবা প্রার্থী জুনায়েদ রহমান বলেন, আমি বিভিন্ন সময় জমি সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ে ভূমি অফিসে এসেছি। সহজে কখনো সহকারি কমিশনারের সাথে দেখা করতে পারি নাই। কিন্তু বর্তমানে সহকারি কমিশনার অনেক ভালো। তার রুমে প্রবেশ করতে কোন অনুমতির প্রয়োজন হয় না। একে একে আমাদের সবার কথা শোনেন এবং সমাধানে সঠিক পরামর্শ দিয়ে সহতা করছেন। সেবা প্রার্থী জহুরুল হক জানান, এমন সৎ, কর্মঠ অফিসার থাকলে কোন মানুষ প্রতারিত হবে না। সহজেই আমরা আমাদের সমস্যা গুলো সমাধান করতে পারবো। প্রত্যেকটা ভূমি অফিসে এমন সৎ অফিসার থাকা প্রয়োজন। এ বিষয়ে এসএম রবিন সহকারি (ভূমি) জানান, আমি আমার বাস্তব অভিজ্ঞতা থেকে এমন প্রদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। ডিসি স্যার কিংবা ইউএনও স্যারদের রুমে সাধারণ মানুষ অহরহ প্রবেশ করে কিন্তু কেনো জানি, এসিল্যান্ডের রুমে প্রবেশ করতে সাধারণ মানুষ বেশ ভয় পায় (ভিন্ন হতে পারে, তবে আমার কাছে মনে হয়েছে)। এসিল্যান্ড হিসেবে কাজ করতে গিয়ে অনেক ভালো স্টাফ যেমন পেয়েছি, আবার এমন স্টাফ ও পেয়েছি যারা সাধারণ মানুষের কাছ থেকে অফিসারদের দূরে সরিয়ে রাখে। অনেক সহজ সরল ব্যাক্তি ভূমি অফিসে এসে প্রতারিত হয়ে থাকেন। যা অনেক কষ্টের। কেউ যেন প্রতারিত না হয় তাই সরাসরি আমার সাথে দেখা করার পথটা সহজ হিসেবে এমন প্রদক্ষেপ।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ