• বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২১ ১৪২৯

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ভেনামি চিংড়ি চাষে অনুমতি পেয়েছে ১২ প্রতিষ্ঠান!

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১০ আগস্ট ২০২২  

পরীক্ষামূলক ভাবে ভেনামি চিংড়ি চাষে সফলতা পেয়েছে চাষিরা। আর তার জন্য ভেনামি চিংড়ি চাষে জন্য ১২ টি প্রতিষ্ঠানকে অনুমতি দিয়েছে সরকার। যার মধ্যে ৮টি প্রতিষ্ঠানকে সরাসরি এবং ৪টি প্রতিষ্ঠানকে শর্তসাপেক্ষে অনুমতি দিয়েছে সরকার।

চিংড়ি চাষিরা বলছেন, দেশীয় বাগদা-গলদার হ্যাচারিতে মাদার চিংড়ি এনে পোনা উৎপাদন সম্ভব। প্রতি পিস পোনা আমদানিতে খরচ পড়ছে ২ টাকা থেকে আড়াই টাকা। তবে নিজস্ব হ্যাচারিতে মাদার চিংড়ি এনে পোনা উৎপানে খরচ হবে মাত্র ৫০ থেকে ৬০ পয়সা। এছাড়াও বাণিজ্যিক অনুমতি মিললে স্বল্পমূল্যে ভোক্তা পর্যায়ে চিংড়ি বিক্রি করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন তারা।

মৎস্য অধিদপ্তর অনুমোদিত পরীক্ষামূলক ভেনামি চিংড়ি চাষে আগ্রহী প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- যশোর ইমইউসি ফুডস লিমিটেড (বিএফআরআই, পাইকগাছা), খুলনার বটিয়াঘাটার ফাহিম সি ফুডস লিমিটেড, পাইকগাছার গ্রোটেক এ্যাকোয়া কালচার লিমিটেড, সাতক্ষীরার শ্যামনগরের রেডিয়েন্ট শ্রিম্প কালচার-১, কয়রার আয়ান শ্রিম্প কালচার, ডুমুরিয়ার ইএফজি একোয়া ফার্মিং, বটিয়াঘাটার জেবিএস ফুডস প্রডাক্টস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ও কয়রার প্রান্তি এ্যাকোয়া কালচার লিমিটেড।

এছাড়াও শর্তসাপেক্ষে অনুমতি পাবে সাতক্ষীরার দেবহাটার মেসার্স আল-হেরা মংস্য প্রকল্প, রূপসার ফ্রেশ ফুডস লিমিডেট, সাতক্ষীরার কালীগঞ্জের নলতা আহছানিয়া ফিশ ও রূপসার জেমিনি সি ফুডস লিমিডেট।

জাতীয় চিংড়ি চাষি সমিতির সাধারণ সম্পাদক শেখ রফিকুজ্জামান বলেন, স্বল্প জায়গায়, স্বল্প খরচে ভেনামি চাষ করা যায়। ফলে সরকারের কাছে দাবি জানাবো দ্রুত এই চাষ উন্মুক্ত করে দেওয়া হোক। কারণ এতো অল্প সময়ে অন্য কোনো সেক্টরে টাকা তোলা সম্ভব নয়। পুকুর কাটা থেকে চিংড়ি উৎপাদন ৫ মাসে শেষ হয়ে যাবে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী বলেন, যারা পরীক্ষামূলক চাষের অনুমতি পেয়েছেন, তাদের বিষয় তারা জানেন। এটা চাষাবাদ করতে গেলে অনেক টেকনিক্যাল ও আর্থিক ইনভলভমেন্ট আছে। হয়তো সামর্থ্য নেই, তাই তারা পারেননি।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ