রোববার, ২৩ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১

সিরাজগঞ্জে জাতীয় পাট দিবস উদযাপন

সিরাজগঞ্জে জাতীয় পাট দিবস উদযাপন

সংগৃহীত

“বঙ্গবন্ধুর সোনার দেশ, স্মার্ট পাট শিল্পের বাংলাদেশ” এই প্রতিপাদ্য সামনে রেখে জাতীয় পাট দিবস উদযাপন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‍্যালি প্রদর্শন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বুধবার (৬মার্চ) সকাল ১০ টায় সারাদেশের ন্যায় সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন ও পাট অধিদপ্তর বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের এর আয়োজনে, সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সন্মুখ হতে জাতীয় পাট দিবস উদযাপন উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য র‍্যালি প্রদর্শন প্রদক্ষিন করে পরে শহিদ এ.কে শামসুদ্দিন সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা অনুঠিত হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক) গণপতি রায়।

অনুষ্ঠানে সভাপতি অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( সার্বিক) গণপতি রায় তিনি তার বক্তব্যে বলেন, পরিবেশ রক্ষার জন্য পলিথিন ব্যবহার প্রত্যাখ্যান করে পাটের ওপর নির্ভরশীল ও পাটজাত দ্রব্যের তৈরি পণ্য ব্যবহারে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে। বর্তমান সরকার মৃতপ্রায় পাটের হারানো সোনালি ঐতিহ্য ফিরিয়ে এনেছে। পাট এখন পরিবেশবান্ধব বহুমুখী পণ্যের উপাদান। বাংলার পাট এক অন্য রকমের গৌরব। সময়ের পরিক্রমায় ‘বাংলার পাট বিশ্বমাত’- এটাই এখন বাস্তব।

তিনি বলেন, বিশ্বখ্যাত সোনালি আঁশ পাট ও পাটজাত দ্রব্যই ছিল এদেশের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের প্রধান উৎস। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর জাতির পিতা দেশের স্বার্থে পাট ও বস্ত্রকলসমূহ জাতীয়করণ করেছিলেন। কিন্তু পরবর্তীতে এ ধারাবাহিকতা রক্ষা করা হয়নি। কালের পরিক্রমায় বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মৃতপ্রায় পাটের হারানো সোনালি ঐহিত্য ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে সিরাজগঞ্জ মুখ্য পাট অধিদপ্তরের কর্মকর্তা তারানা আফরোজ, তিনি বলেন, বিদেশে ও পাটজাত দ্রব্যের কদর বেড়েছে। সরকার পাটচাষে যেমন প্রণোদনা দিচ্ছে, তেমনই দিচ্ছে পাট শিল্পে। এ শিল্পকে রক্ষা করার মধ্য দিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ বিনির্মাণে আমাদের সকলকে অবদান রাখতে হবে। সোনালি আঁশ পাটের সঙ্গে বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য গভীরভাবে জড়িয়ে আছে। শুধু তাই নয়, বাঙালির অর্থনৈতিক মুক্তির হাতিয়ার হিসেবে পাটের ভূমিকা একটি স্বীকৃত ইতিহাস।

পরিবেশবান্ধব তন্তু হিসেবে পাটের গুরুত্ব বিবেচনায় পাট চাষে কৃষকদের আগ্রহ সৃষ্টি, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বাজারে পাট ও পাটপণ্যের ব্যবহার বৃদ্ধি এবং প্রাকৃতিক তন্তু হিসেবে সোনালি আঁশের উজ্জ্বল সম্ভাবনা তুলে ধরার লক্ষ্যে নানা আয়োজনে জাতীয় পাট দিবস উদযাপন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মনোয়ার হোসেন, জেলা ত্রাণ ও পূর্নবাসন কর্মকর্তা মোঃ আকতারুজামান, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়ি সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশিক্ষণ অফিসার এ.কে. এম মফিদুল ইসলাম প্রমুখ।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন এবং সার্বিক দায়িত্বে ছিলেন, পাট অধিদপ্তর সিরাজগঞ্জের উপসহকারী পাট কর্মকর্তা মোঃ মাইদুল ইসলাম লুলু।

এসময়ে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, মিল মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব ইয়াকুব আলী, আর আর জুট মিলের ম্যানেজার রমজান আলী সহ, সুধীজন, গুনীজনেরা, ব্যবসায়ীগণ, পাটচাষী এবং অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন ।

সর্বশেষ: