শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

লঘুচাপ ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেওয়ার আশঙ্কা

লঘুচাপ ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেওয়ার আশঙ্কা

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপটি ক্রমশ শক্তি সঞ্চয় করছে। আজ সোমবার গভীর নিম্নচাপে পরিণত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এই নিম্নচাপ আরও ঘনীভূত হয়ে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে বলে আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে। আর ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ ‘হামুন’ হতে পারে।

ধারণা করা হচ্ছে, আগামী বৃহস্পতিবার দেশে আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড় ‘হামুন’। তবে এটি এখনও বঙ্গোপসাগের নিম্নচাপ আকারে অবস্থান করছে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, প্রায় ৯০০ কিলোমিটার দূরে থাকা নিম্নচাপটি এখন উত্তর-পশ্চিম দিকে এগোচ্ছে। তবে এই চলার পথ আজ কিছুটা পরিবর্তন হতে পারে। এটি উত্তর ও উত্তর-পূর্ব দিকে মোড় নিয়ে বাংলাদেশের স্থলভাগের দিকে মুখ ঘোরাতে পারে। এটি একটি সাধারণ ঘূর্ণিঝড় হিসেবে বৃহস্পতিবার নাগাদ বাংলাদেশের খুলনা বরিশাল ও ভারতের পশ্চিমবঙ্গ উপকূল অতিক্রম করতে পারে। 

আবহাওয়াবিদ মো. আজিজুর রহমান জানান, যদি এটি মারাত্মক ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নেয় তাহলে এর নাম হবে হামুন। নামটি ইরানের দেওয়া। যার অর্থ হচ্ছে সমতল ভূমি বা পৃথিবী। 

সাগরের নিম্নচাপের কারণে দেশের চারটি সমুদ্রবন্দরকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। গভীর সমুদ্রে মাছ ধরার ট্রলার ও জেলেদের তীরবর্তী কাছাকাছি থাকার জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। 

এদিকে, নিম্নচাপের কারণে গতকাল রোববার সকাল থেকেই আকাশ আংশিক মেঘলা রয়েছে। উপকূলীয় অঞ্চলের কোথাও কোথাও বৃষ্টি হচ্ছে। আজ খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের দুয়েক জায়গায় হালকা বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। আর এই বৃষ্টির মধ্যে দিয়ে শীতের আগমনী বার্তা পৌঁছে যেতে পারে।

প্রসঙ্গত, রোববার সন্ধ্যায় দেওয়া আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, নিম্নচাপটি পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৯২৫ কিলোমিটার, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৯৩৫ কিলোমিটার, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৯৮৫ কিলোমিটার এবং চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১ হাজার ৪০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। এ সময় সব সমুদ্র বন্দরকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

সূত্র- .risingbd.com

আলোকিত সিরাজগঞ্জ