মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১

এলএনজি টার্মিনাল ব্যবহারে নতুন করে চুক্তি হচ্ছে

এলএনজি টার্মিনাল ব্যবহারে নতুন করে চুক্তি হচ্ছে

সংগৃহীত

কক্সবাজারের মহেশখালীতে বিল্ড-ওন-অপারেট অ্যান্ড ট্রান্সফার (বিওওটি) ভিত্তিতে ৬০০ এমএমসিএফ ক্ষমতা সম্পন্ন তৃতীয় ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল স্থাপন করা হচ্ছে।

শুরুতে টার্মিনাল ব্যবহারে সামিট অয়েল অ্যান্ড শিপিং কোম্পানি লিমিটেড (এসওএসসিএল) এর সঙ্গে চুক্তি হলেও তার পরিবর্তে সামিট এলএনজি টার্মিনাল-২ কো. লি. এর সঙ্গে নতুন করে চুক্তি করতে যাচ্ছে পেট্রোবাংলা।

এর আগে গত ২০২৩ সালের ৬ ডিসেম্বর তৎকালীন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় প্রকল্পটি সামিট অয়েল অ্যান্ড শিপিং কোম্পানি লিমিটেড কর্তৃক বাস্তবায়নের প্রস্তাবে অনুমোদন দেওয়া হয়েছিল। চুক্তি অনুযায়ী এলএনজি টার্মিনাল ব্যবহারের জন্য টার্মিনাল কোম্পানিকে রি-গ্যাস চার্জ বাবদ প্রতিদিন ৩ লাখ মার্কিন ডলার বা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩ কোটি ৩১ লাখ ৫০ হাজার টাকা (ট্যাক্স ভ্যাট বাদে) দিতে হবে।

জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, দেশের বিদ্যমান ও ক্রমবর্ধমান গ্যাসের চাহিদা মেটানোর লক্ষ্যে কক্সবাজারের মহেশখালীতে দৈনিক ৫০০ ও  ৬০০ এমএমসিএফডি রি-গ্যাসিফিকেশন ক্ষমতাসম্পন্ন দুটি ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল স্থাপন করা হয়েছে। বঙ্গোপসাগরের আবহাওয়াজনিত চ্যালেঞ্জ বিবেচনায় বিদ্যমান দুটি টার্মিনালে গড়ে মোট ৯৩৫ এমএসিএফডি (৭.১৫ এমটিপিএ-এর সমতুল্য) এলএনজি গ্রহণের সুযোগ রয়েছে। এই টার্মিনাল দুটির মাধ্যমে জি-টু-জি ভিত্তিতে পেট্রোবাংলার সঙ্গে চুক্তির আওতায় রাস লাফ্ফান লিকুইডিফাইড ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি লিমিটেড (কাতারগ্যাস) থেকে ১৫ বছর মেয়াদে বর্তমানে ২.৫ এমটিপিএ এলএনজি এবং ওমান ট্রেডিং ইন্টান্যাশনাল (বর্তমান নাম ওকিউটি) থেকে ১০ বছর মেয়াদে বর্তমানে ১.০ এমটিপিএ এলএনজি মোট ৩.৫ এমটিপিএ এলএনজি আমদানি করা হচ্ছে।

সূত্র জানায়, ২০২৬ সাল থেকে এলএনজি আমদানির লক্ষ্যে কাতার এনার্জি ট্রেডিং এলএলসি (কিউইটি) এর সঙ্গে গত ২০২৩ সালের ৩০ মে ১০ বছর মেয়াদে বিদ্যমান চুক্তির অতিরিক্ত ০.২৫ থেকে ১.৫ এমটিপিএ এলএনজি এবং এক্সেলারেট গ্যাস মার্কেটিং লিমিটেড পার্টনারশিপ (ইজিএমএলপি) এর সঙ্গে ২০২৩ সালের ৮ নভেম্বর ১৫ বছর মেয়াদে ০.৮৫ থেকে ১.০ এমটিপিএ এলএনজি আমদানির এলএনজি সেল অ্যান্ড পারচেজ অ্যাগ্রিমেন্ট (এসপিএ) স্বাক্ষরিত হয়। উপরন্তু চাহিদার আলোকে মাস্টার সেল অ্যান্ড পারচেজ অ্যাগ্রিমেন্ট(এমএসপিএ) স্বাক্ষরকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর কাছ থেকে দর প্রস্তাব আহ্বানের মাধ্যমে স্পট মার্কেট থেকে এলএনজি আমদানি করা হচ্ছে।

এসওএসসিএল মহেশখালীর গভীর সমুদ্রে একটি ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল (এফএসআরইউ) নির্মানের আগ্রহ প্রকাশ করে ২০২১ সালের ১১ অক্টোবর একটি প্রস্তাব দাখিল করে। প্রস্তাবটি ‘বিদ্যুৎ ও জ্বালানির দ্রুত সরবরাহ বৃদ্ধি (বিশেষ বিধান) আইন, ২০১০ (সংশোধনী ২০২১)’-এর আওতায় প্রক্রিয়াকরণের জন্য বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী (প্রধানমন্ত্রী) ২০২১ সালের ৬ ডিসেম্বর নীতিগত অনুমোদন দেন।

এছাড়া ৩য় ভাসমান এলএনজি টার্মিনাল স্থাপনের প্রস্তাবটিতে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির নীতিগত অনুমোদনের পর টিইউএ ও আইএ-টির ওপর লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের ভেটিং গ্রহণ করা হয়েছে। পরে প্রধানমন্ত্রীর নীতিগত অনুমোদন নেওয়া হয়েছে।

সূত্র: risingbd

সর্বশেষ:

শিরোনাম:

পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে স্কুলজীবনের মজার স্মৃতিতে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা
কাজিপুরে ভার্মি কম্পোস্ট সার বানিজ্যিকভাবে উৎপাদন শুরু
১৪ কিলোমিটার আলপনা বিশ্বরেকর্ডের আশায়
আলো ছড়াচ্ছে কুষ্টিয়ার বয়স্ক বিদ্যালয়
মেয়েদের স্কুলের বেতন না দিয়ে ধোনিদের খেলা দেখলেন তিনি
‘ডিজিটাল ডিটক্স’ কী? কীভাবে করবেন?
তাপপ্রবাহ বাড়বে, পহেলা বৈশাখে তাপমাত্রা উঠতে পারে ৪০ ডিগ্রিতে
নেইমারের বাবার দেনা পরিশোধ করলেন আলভেজ
দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর
ঈদের দিন ৩ হাসপাতাল পরিদর্শন স্বাস্থ্যমন্ত্রীর
আয়ারল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন
জুমার দিনে যেসব কাজ ভুলেও করতে নেই