সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০

শহীদ শিশু রাসেল স্মৃতি পার্ক সেঁজেছে নতুন রুপে

শহীদ শিশু রাসেল স্মৃতি পার্ক সেঁজেছে নতুন রুপে

সংগৃহীত

সিরাজগঞ্জ শহরের যমুনা নদীর পাড়ে আধুনিকতার ছোঁয়ায় নান্দনিক ভাবে গড়ে তোলা হয়েছে শিশু,কিশোর-কিশোরী, তরুণ- তরুণী যুবক-যুবতীদের জন্য নতুন রুপে বিনোদনের জন্য মনোরম পরিবেশে সকল বয়সের মানুষের স্বস্তি পেতে ও আনন্দের বনভোজনের জন্য শহীদ শেখ রাসেল স্মৃতি পার্ক। এ পার্ক প্রতিদিন সকাল ৯টা হতে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত খোলা রাখা হয়।

পার্কটি পৌরসভার সুযোগ্য মেয়র সৈয়দ আব্দুর রউফ মুক্তা’র নিদের্শনায় ব্যাপক অর্থ ব্যয় করে আধুনিকয়ান করেন, ইজারাদার সিরাজগঞ্জের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, সমাজসেবক, সাবেক পৌরকাউন্সিলর ১০ নং পৌর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মোঃ আব্দুস সাত্তার।

শহীদ রাসেল স্মৃতি পার্কে শিশুদের চিত্ত বিনোদনের জন্য দৃষ্টি নন্দন পশু-পাখির ভাস্কর্য, পরীর ঝরণা, শিশু খেলনা স্লিপার, পানির মধ্যে বড় বলের ওঠে মজা পায় শিশুরা আর ও কত কি। আধুনিক প্রযুক্তি সম্পন্ন নাগরদোলা, পাহাড়ের গুহা, নৌকা রাইড, হানিচেয়ার, ডরিমন ট্রেন সহ বিভিন্ন ধরনের রাইড স্থাপন করা হয়েছে। হরেক রকমের বাহারি ফুলের গাছের ফুলে সৌন্দর্য মন্ডিত করে তুলেছে। অন্যদিকে বিভিন্ন প্রজাতির কবুতরের বাক বাকুম ডাক, ময়না, টিয়া, উটপাখি আর ঘুঘু ডাক ময়ুরের পেখুম তোলা, হরিণের ছোটাছুটি ভেড়া আর ঘোড়া বিচরণের দৃশ্য বিমোহিত করে এ মিনি চিড়িয়াখানা। ভ্রমন আর বিনোদন প্রেমিদের জন্য বনভোজনের স্পট করা হয়েছে।

এ শীতকালে পিকনিক আর যমুনা নদীর হার্ড পয়েন্ট যমুনার জল সৌন্দর্য মন্ডিত নয়না ভিরাম দৃশ্য দেখতে আর শহীদ শেখ রাসেল স্মৃতি পার্কে পিকনিকের জন্য সূদুর হতে অতিথি পাখিদের মত ঝাঁকে ঝাঁকে প্রতিদিনই আসছেন ভ্রমণ পিপাসু বিনোদনকারীরা। পহেলা ফাল্গুন বিশ্ব ভালোবাসা দিবস পালনে শহীদ শেখ রাসেল স্মৃতি পার্কে সব বয়সের মানুষের ঢল নামে । সাজুগুজু করে শিশুরা ও তরুণী, যুবতীরা তাজা গোলাপ, রজনীগন্ধ্যা অন্য ফুলের ব্যান্ড মাথায় দিয়ে আর বাহারী পোশাক পরে নতুন রুপে ।

জানা যায়, ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভাপতি ও জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন ক্ষমতায় তখনই শুরু হয় যমুনা নদী শাসন করতে শহর রক্ষা বাঁধ। আর এই বাঁধের পাশেই যেন গড়ে তোলা হয় শিশু পার্ক। এ দাবি ছিলো সিরাজগঞ্জের শিশু,কিশোর পরিষদ ও সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের এবং সে সময়ের পৌর মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা আবু মোহাম্মদ গোলাম কিবরিয়ার । এসময়ে সিরাজগঞ্জের কৃতিসন্তান, গৌরবগর্ব স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম সাহেব এ রাসেল স্মৃতি পার্ক কাজ শুরু করেন।

সূত্র: prothomsurjadoy