• বুধবার   ৩০ নভেম্বর ২০২২ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৬ ১৪২৯

  • || ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

এনায়েতপুর কেজি মোড় অবৈধ সিএনজি ষ্ট্যান্ড : যানজটে দুর্ভোগ

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

চারটি সড়কের মিলনস্থল সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুরের কেজি মোড়। এই মোড়ে অবৈধ সিএনজি ষ্ট্যান্ড ও সড়ক দখল করে বিভিন্ন দোকান-পাট গড়ে উঠেছে।

এতে প্রতিনিয়তই সৃষ্টি হচ্ছে তীব্র যানজটের। ফলে পথচারীসহ স্কুল কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রী ও যানবাহন চালকদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।  
জানা যায়, সিরাজগঞ্জ জেলা শহর, এনায়েতপুর থানা সদর, শাহজাদপুরের খুকনী, পাঁচিল ও বেলকুচির মুকুন্দগাঁতি সড়কের সংযোগস্থল হচ্ছে চৌহালী উপজেলার এনায়েতপুর কেজি মোড়। এই মোড়ে অবৈধভাবে বসানো হয়েছে সিএনজি ষ্ট্যান্ড। এখানে বাস থামিয়ে যাত্রী তোলা সহ নছিমন, ইজিবাইক ও অটোভ্যান যত্রতত্র পার্কিং করায় ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া স্থানীয় প্রভাবশালীরা সড়কের জায়গা দখল করে দোকান নির্মান করেছে। ফলে জনগুরুত্বপূর্ন কেজি মোড়টি সংকুচিত হওয়ায় যানজট আরো তীব্র আকার ধারণ করেছে ।
সরেজমিন দেখা গেছে, এনায়েতপুর থানার সবচেয়ে ব্যস্ততম এলাকা কেজি মোড়ের উপর দিয়ে বিভিন্ন যানবাহনে তাঁত শিল্পে ব্যবহৃত রং, সুতা, ক্যামিকেল সহ অন্যান্য কাঁচামাল পরিবহন করা হয়। এছাড়া  কেজি মোড় দিয়ে খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, খামারগ্রাম ডিগ্রি কলেজ, এনায়েতপুর ফাজিল মাদরাসা, বেতিল হাই স্কুল এন্ড কলেজ, খাজা ইউনুস আলী ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজ, এনায়েতপুর ইসলামিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, মেহের উন-নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও এনায়েতপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রায় সাড়ে ৯ হাজার শিক্ষার্থীর নিয়মিত যাতায়াত। এছাড়া ৮শ শয্যা বিশিষ্ট খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপতাল, ক্যান্সার হাসপাতালে দেশী-বিদেশী রোগী ও দেশের সর্ববৃহৎ এনায়েতপুর কাপড়ের হাটে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আগত ক্রেতা-বিক্রেতাদের যাতায়াতের একমাত্র সড়ক কেজি মোড়ে যানজট এখন নিত্যাদিনের চিত্র। এদিকে এনায়েতপুর এলাকাটি তাঁতশিল্প, শিক্ষা ও চিকিৎসার জন্য অধিক গুরুত্বপূর্ন হওয়ার কারনে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বাস, মাইক্রোবাস ও কাভার্ড ভ্যান নিয়ে এবং এলাকার প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষজন ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় যাতায়াত করে থাকেন। এসব পরিবহনের নির্ধারিত কোনো স্ট্যান্ড না থাকায় চালকরা যেখানে সেখানে পার্কিং করে ও রাস্তা বন্ধ করে মালামাল ওঠা-নামা করে যানজটের সৃষ্টি করছেন। খাজা ইউনুস আলী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রুমেল হাসান, অভিক পোদ্দার ও শাহ আলম জানান, কেজি মোড়ের মত গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় সড়ক দখল করে অনির্ধারিত এসব স্ট্যান্ড বানিয়ে এক শ্রেনীর প্রভাবশালীরা বিপুল অংকের অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে। একারনে স্কুল-কলেজ সময়ে যানজটে ছাত্র-ছাত্রিদের বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে।
এনায়েতপুরের কিশলয় কিন্ডার গার্টেন স্কুল পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আহম্মদ মোস্তফা খান বাচ্চু জানান, কেজি মোড়ের উপর দিয়ে জেলা সদর, শাহজাদপুর, বেলকুচি ও বিশ্বমানের খাজা ইউনুস আলী মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতাল ও বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন যানবাহনে হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। একারনে প্রতিনিয়ত বাড়তি গাড়ির চাপ বাড়ছে। বিশেষ করে হাসপাতালে যাবার পথে মারাক্তক যানজটের কবলে পড়ে বিপদের সম্মুখীন হচ্ছে ভূক্তভোগীরা। এবিষয়ে সদিয়া চাঁদপুর ইউপি চেয়ারম্যান রাশেদুল ইসলাম সিরাজ বলেন, কেজি মোড়ে অবৈধ সিএনজি ষ্ট্যান্ড ও পাউবো’র জায়াগা দখল করে দোকান নির্মান করায় মারাক্তক যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে। অনেকের মৃত্যু হচ্ছে আবার কেউ কেউ পঙ্গুত্ত্ববরণ করে মানবেতর জীবন যাপন করছে। তিনি আরও জানান, কেজি মোড় সংলগ্ন জলাশয় বরাট করে সিএনজি ষ্ট্যান্ড ও বাসষ্ট্যান্ড নির্মাণ করা হলে যানজট নিরসন সম্ভব হবে। এব্যাপারে চৌহালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাঃ আবু তাহির জানান, ব্যাস্ততম কেজি মোড়ের যানজট নিরসনে বিকল্প স্থানে সিএনজি ষ্ট্যান্ড নির্মানে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত হয়েছে। আর অবৈধ স্থাপনা ও ষ্ট্যান্ড উচ্ছেদে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

 

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ