• শুক্রবার   ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২০ ১৪২৯

  • || ১২ রজব ১৪৪৪

নির্মাণের ৩বছর অতিবাহিত হলেও আজো চালু হয়নি তাড়াশের ফায়ার স্টেশন

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ৩১ জানুয়ারি ২০১৯  

নির্মানের দীর্ঘ ৩ বছর অতিবাহিত হলেও আজো চালু হলো না তাড়াশের ফায়ার স্টেশন। এদিকে নির্মানের দীর্ঘ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরেও ফায়ার স্টেশনটি চালু না হওয়ায় হতাশায় রয়েছে তাড়াশ বাসী। এটি উপজেলায় একমাত্র অগ্নি নিবারক প্রতিষ্ঠান,ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন।  আর কতদিন পার হলে ফায়ার স্টেশনটি উদ্বোধন হবে তাও কেউ জানে না। তাড়াশের প্রত্যেন্ত গ্রামাঞ্চলে বারবার অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটলেও তা সনাতন পদ্ধতিতেই নিবারন করতে হয় স্থানীয়দের। আর সনাতন পদ্ধতিতে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনতে অনেক সময় অতিবাহিত হয়,এই সময়ের মধ্যে বহু ক্ষয়-ক্ষতির সম্মখিন হয় ওই পরিবার গুলো। সম্প্রতি তাড়াশ উপজেলার মাধাইনগনর ইউপির সনঘই গ্রামের কৃষক লাল মহন চন্দ্রের বাড়িতে অগ্নি কান্ডের ঘটনা ঘটে। ফায়ার সার্ভিস চালু না থাকায় এলাকাবাসী সনাতন পদ্ধতিতে কয়েক ঘন্টার চেষ্টায় আগুন নেভাতে ব্যর্থ হন। এর মধ্যে ওই কৃষকের সর্বষ পুড়ে শেষ হয়ে যায়।
সংশ্লিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে, গণপুর্ত মন্ত্রনালয় কতৃর্ক ১ কোটি ৭০ লাখ টাকা ব্যয়ে চলনবিলের প্রান কেন্দ্রে তাড়াশ উপজেলার সাড়ে ৩ লক্ষ জনগনের নিরাপত্বার জন্য তাড়াশ পৌর সদরে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনটি গত ২০১৪ সালে নির্মাণ শুরু হয়ে ২০১৫ সালে তা শেষ হয়। নির্মাণ কাজের দীর্ঘ ৩ বছর অতিবাহিত হলেও জনগুরুত্বপূর্ন অগ্নি নিবারকের প্রতিষ্ঠানটি আজো চালু হয়নি। কি কারুনে চালু হচ্ছে না তাও কেউ জানে না। অগ্নিকান্ড সহ বিভিন্ন ধরনের দুর্যোগে তাড়াশ উপজেলা বাসীকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার দুরে উল্লাপাড়া উপজেলার ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের উপর নির্ভর করতে হয়। তাড়াশ বাসীর দাবী অতি দ্রর্ত তাড়াশের নবনির্মিত অগ্নি নিবারক প্রতিষ্ঠান টি চালু করা হোক।
এবিষয়ে সিরাজগঞ্জ জেলা গণপুর্ত বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী এইচ এম শাহরিয়ার বলেন,নির্মান কাজ অনেক আগেই সম্পন্ন হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেওয়ার পরেও তারা প্রতিষ্ঠানটি বুঝে নিচ্ছে না। সিরাজগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স’র উপ-সহকারী পরিচালক আব্দুল হামিদ জানান, পদ সৃজন না হওয়ায় এবং ফায়ার সার্ভিসের প্রবেশ পথে অবৈধ ঘর থাকায় ওই অফিসের কার্যক্রম চালু করা সম্ভব হচ্ছে না।

 

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ