সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১

বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় সিরাজগঞ্জে স্থাপন হচ্ছে ইটিপি প্ল্যান্ট

বিশ্বব্যাংকের সহায়তায় সিরাজগঞ্জে স্থাপন হচ্ছে ইটিপি প্ল্যান্ট

সংগৃহীত

তাঁত সমৃদ্ধ জেলা সিরাজগঞ্জের তাঁতের প্রধান কাঁচামাল সুতা। সুতা রং করার জন্য জেলার বেলকুচি, শাহজাদপুরসহ বিভিন্ন উপজেলায় গড়ে উঠেছে কয়েকশ প্রসেস মিল। এসব প্রসেস মিলে রং মিশ্রিত পানি সরাসরি বিভিন্ন পুকুর আর খালবিলে ফেলা হচ্ছে।

যা পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকারক। সম্প্রতি প্রসেস মিলের তরল এসব বর্জ্যের দূষণ রোধে মিনি ইটিপি স্থাপন করছেন ব্যবসায়ীরা। বিশ্ব ব্যাংকের আর্থিক সহায়তা এসব এলাকায় ইটিপি স্থাপনের কারিগরি সহায়তা করছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা এনডিপি।

সিরাজগঞ্জ জেলায় তাঁত শিল্পে পাওয়ার লুম ও হ্যান্ডলুম রয়েছে প্রায় ৩ লাখ আর এর সাঙ্গে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে জড়িত প্রায় ৫ লাখ মানুষ। এই জেলায় উৎপাদিত তাঁতের শাড়ির সুনাম রয়েছে দেশ জুড়ে। বিশেষ করে জেলার বেলকুচি, শাহাজাদপুর, এনায়েতপুরসহ বেশ কয়েকটি উপজেলার মানুষের আয় রুজি জড়িত এই শিল্পের উপর।

তাঁতের শাড়ি উৎপাদনের প্রধান কাঁচামাল সুতা। শাড়ি তৈরির আগে সব ধরনের সুতায় প্রসেস মিল থেকে বিভিন্ন রং দেওয়া হয়। আর সুতা রং করার জন্য বিভিন্ন উপজেলায় গড়ে উঠেছে কয়েকশ প্রসেস মিল। এসব প্রসেস মিল থেকে সুতা রং করার সময় প্রতিদিন শত শত টন তরল বর্জ্য বের হয়। আর এসব রং মিশ্রিত তরল বর্জ্য সরাসরি বিভিন্ন পুকুর অথবা খাল বিলে ফেলা হচ্ছে। এতে ভয়াবহ পরিবেশ দূষণের পাশাপাশি দূষিত হচ্ছে ভূ-গর্ভস্থ পানিও।

পরিবেশ দূষণের মারাত্মক ক্ষতি হাত থেকে রক্ষায় বিশ্ব ব্যাংক ও পল্লী কর্ম সহায়তা ফাউন্ডেশনের এর আর্থিক এবং ন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট এর কারিগরি সহায়তায় প্রসেস মিলগুলোতে স্থাপন করা হচ্ছে ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট ইটিপি। যার মাধ্যমে প্রসেস মিলের দূষিত পানি বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় ৬ টি ধাপে পরিশোধন হয়ে স্বচ্ছ পানিতে রুপান্তর করা হচ্ছে। জেলার বেলকুচি উপজেলাতে সাসটেইনেবল এন্টারপ্রাইজ প্রকল্পের আওতায় বেশ কয়েকটি কারখানায় পরীক্ষামূলক ভাবে স্থাপন করা হয়েছে ইটিপি। প্রসেস মিলগুলোতে ইটিপি প্ল্যান্ট স্থাপনের মাধ্যমে আশপাশের পরিবেশ দূষণের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছে বলে জানায় মিল মালিকেরা। সেই সাথে ভূ-গর্ভস্থ পানি দূষণও রোধ বলছে স্থানীয়রা।

উন্নয়ন সংস্থা এনডিপি’র ঋণ সহায়তা কর্মসূচি পরিচালক মোসলেম উদ্দিন আহাম্মেদ বলেন, জেলার বেলকুচি উপজেলায় পরীক্ষামূলক ভাবে দুটি প্রসেস মিলে ইটিপি স্থাপন করা হয়েছে। এসব কারখানায় ইটিপি স্থানের কারিগরি সহায়তার পাশাপাশি মিল মালিকদের কে আর্থিক সহায়তাও করা হয়েছে। নতুন করে কোনো প্রসেস মিল মালিক যদি ইটিপি স্থাপনে আগ্রহ প্রকাশ করে তাহলে তাদেরকে সহায়তা করা হবে।

বেলকুচির মেসার্স মা কলি ড্রাইং স্বত্ত্বাধিকারি আশিষ কুমার বলেন, ইটিপি প্ল্যান্ট স্থাপনের মাধ্যমে পরিবেশে দূষণ থেকে রক্ষার পাশাপাশি রং মিশ্রিত পানি পরিশোধন করে আবারো ব্যবহার উপযোগী করা হচ্ছে। এতে উৎপাদন খরচ কিছুটা বাড়লেও আমাদের আশপাশের পরিবেশ দূষণ থেকে রক্ষা পাচ্ছে। তবে সকল প্রসেস মিল মালিকদের কে ইটিপি স্থাপনে এগিয়ে আসতে হবে যাতে এই জেলার পানি ও পরিবেশ দূষণ রোধ করা যায়।

সর্বশেষ:

শিরোনাম:

পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে স্কুলজীবনের মজার স্মৃতিতে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা
কাজিপুরে ভার্মি কম্পোস্ট সার বানিজ্যিকভাবে উৎপাদন শুরু
১৪ কিলোমিটার আলপনা বিশ্বরেকর্ডের আশায়
আলো ছড়াচ্ছে কুষ্টিয়ার বয়স্ক বিদ্যালয়
মেয়েদের স্কুলের বেতন না দিয়ে ধোনিদের খেলা দেখলেন তিনি
‘ডিজিটাল ডিটক্স’ কী? কীভাবে করবেন?
তাপপ্রবাহ বাড়বে, পহেলা বৈশাখে তাপমাত্রা উঠতে পারে ৪০ ডিগ্রিতে
নেইমারের বাবার দেনা পরিশোধ করলেন আলভেজ
দেশবাসীকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর
ঈদের দিন ৩ হাসপাতাল পরিদর্শন স্বাস্থ্যমন্ত্রীর
আয়ারল্যান্ডের সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রীকে শেখ হাসিনার অভিনন্দন
জুমার দিনে যেসব কাজ ভুলেও করতে নেই