বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

চীন সরকারের বৃত্তি পেল ৫৫ বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

চীন সরকারের বৃত্তি পেল ৫৫ বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষের জন্য চীন সরকারের বৃত্তি বা সিজিএস স্কলারশিপের ফল আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হয়েছে। সোমবার (১৯ জুন) ঢাকার চীনা দূতাবাসের ওয়েবসাইটে এ তথ্য প্রকাশ করে নতুন ভর্তির সুযোগ পাওয়া বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানানো হয়।

দূতাবাস জানায়, এ বছর প্রথম পর্যায়ে গেল ৩ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক বাংলাদেশি শিক্ষার্থী, প্রায় ৫শ’ জন চীন সরকারের বৃত্তির জন্য আবেদন করে। তাদের মধ্য থেকে এবার এই স্কলারশিপ পেয়েছেন ৫৫ জন। বৃত্তিপ্রাপ্তদের মধ্যে ১৮জন স্নাতক শ্রেণি, ২৩ জন স্নাতকোত্তর ও ১৪জন পিএইচডি পর্যায়ে লেখাপড়া করার সুযোগ পেয়েছেন। আবেদনকারীর সংখ্যার হিসেবে প্রতি ১০ জনে একজন এই বৃত্তি পেয়েছে। শিক্ষার্থীদের পড়ালেখার খরচ বা টিউশন ফি, বাসস্থান ও বসবাসের খরচ, স্বাস্থ্যবিষয়ক বীমার খরচ এবং চীনে যাওয়া-আসার খরচ মেটানো হয় এই বৃত্তি থেকে।

চীনা দূতাবাস জানায়, করোনা মহামারি নিয়ন্ত্রণে আসার পর চীন সরকার এই প্রথম আবারও বৃত্তি ঘোষণা করলো। এর ফলে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা অনলাইনের পরিবর্তে চীনে গিয়ে পড়ালেখা করতে পারবে। বৃত্তিপাওয়া শিক্ষার্থীরা পিকিং বিশ্ববিদ্যালয়, সিনহুয়া বিশ্ববিদ্যালয়, চেচিয়াং বিশ্ববিদ্যালয়, তংচি বিশ্ববিদ্যালয়সহ চীনের অন্য সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পড়বে। চীনা দূতাবাস জানায়, চীনের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিজ্ঞান ও প্রকৌশল, চিকিৎসাবিদ্যা, অর্থনীতি ও ব্যবস্থাপনাসহ অন্যান্য বিষয় পড়ার সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশে অবস্থিত চীনা দূতাবাস আরও জানায়, বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে খুব শিগগিরই যোগাযোগ করা হবে।

চীন সরকারের একটি ফ্ল্যাগশিপ প্রোগ্রাম এই সরকারি বৃত্তি। এটিকে চীন সরকারের সম্মানজনক বৃত্তি হিসেবেও বিবেচনা করা হয়। এর পাশাপাশি চীনের বিভিন্ন প্রাদেশিক সরকার, মিউনিসিপ্যাল সরকারের ঘোষণা করা বৃত্তি, বিশ্ববিদ্যালয়ের বৃত্তি, কনফুসিয়াস ইন্সটিটিউট বৃত্তি, কারিগরি শিক্ষা বৃত্তিসহ অন্যান্য ক্যাটাগরির নানা রকম বৃত্তি নিয়ে পড়ালেখার সুযোগ আছে।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

সর্বশেষ: