• বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২১ ১৪২৯

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

বছরের সেরা লেনদেন পুঁজিবাজারে

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৯ আগস্ট ২০২২  

শেষ পর্যন্ত ফ্লোর প্রাইসেই আস্থা ফিরে পাচ্ছেন বিনিয়োগকারীরা। দুই বছর আগে যখন প্রথমবারের মতো দেশে ফ্লোর প্রাইস আরোপ করা হয়েছিল, তখন লেনদেনে মন্দা নেমে এসেছিল। কিন্তু এবার উল্টো চিত্র দেখা যাচ্ছে। চলতি বছরের শুরুতে বৈশি^ক নানা ঘটনায় অর্থনীতি টালমাটাল হওয়ার শঙ্কায় যেসব কৌশলী বিনিয়োগকারী সাইড লাইনে ফিরে গিয়েছিলেন, তারা এখন আবার ফিরতে শুরু করেছেন।

ফলে গত দুই সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে পুঁজিবাজারে চাহিদা বাড়ছে, সেই সঙ্গে লেনদেনও বাড়তে শুরু করেছে। এতে করে মাত্র ১৭ দিনের মধ্যে প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) কেনাবেচা তিনগুণেরও বেশি বেড়েছে। বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণ বাড়তে থাকায় গতকাল রবিবার ডিএসইর শেয়ার কেনাবেচার পরিমাণ ২ হাজার ১০৫ কোটি টাকায় উন্নীত হয়েছে। এটি চলতি বছরের সেরা লেনদেন। আর গত ১১ মাসের মধ্যে অর্থাৎ ২০২১ সালের ৭ অক্টোবরের পর সর্বোচ্চ লেনদেন। ওইদিন ডিএসইতে ২ হাজার ৪৯৭ কোটি টাকার বেশি শেয়ার কেনাবেচা হয়েছিল।

মূলত কারসাজির মাধ্যমে স্বল্প সময়ে কিছু শেয়ারের দর দ্বিগুণ বাড়ায় বিনিয়োগকারীরা আকৃষ্ট হচ্ছেন। এছাড়া জুন ক্লোজিংয়ের কারণে উৎপাদনশীল কোম্পানিগুলোর লভ্যাংশ ঘোষণার সময় ঘনিয়ে আসার কারণেও বিনিয়োগে ফিরেছেন অনেকে। ছোট-বড় সব ধরনের বিনিয়োগকারী নতুন করে বিনিয়োগ করছেন, যার কারণে লেনদেনের পরিমাণও বেড়েছে। তবে অধিকাংশ লেনদেন কিছু শেয়ারকে ঘিরেই হচ্ছে।

পর্যালোচনায় দেখা গেছে, একক কোম্পানি হিসেবে ওরিয়ন ফার্মা, বেক্সিমকো লিমিটেড, ফরচুন সুজ, মালেক স্পিনিং, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, আইপিডিসি এবং ইস্টার্ন হাউজিংয়ের বড় অঙ্কের শেয়ার লেনদেনের বিশেষ ভূমিকা ছিল। গতকাল ডিএসইতে ৩৮২ কোম্পানির শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের কেনাবেচা হলেও উল্লিখিত সাত কোম্পানিরই ৫১৩ কোটি ৪৮ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে, যা মোট লেনদেনের প্রায় এক-চতুর্থাংশ।

বৃহস্পতিবারের তুলনায় গতকাল সবচেয়ে লেনদেন বেড়েছে মালেক স্পিনিং, বিবিএস, কপারটেক, জিএসপি ফাইন্যান্স, জেএমআই হসপিটাল রিক্যুইজিট, আলিফ ম্যানুফ্যাকচারিং, ওরিয়ন ইনফিউশনস, ম্যাকসন্স স্পিনিং, আমান ফিড, ইস্টার্ন হাউজিং, মেট্রো স্পিনিং, আইএফআইসি ব্যাংক এবং নাহী অ্যালুমনিয়ামের। এসব কোম্পানির প্রতিটি লেনদেন ১০ থেকে ৩৭ কোটি টাকা বেড়েছে।

তবে খাতওয়ারি হিসেবে লেনদেন বৃদ্ধিতে বস্ত্র খাতের অবদান বেশি। গতকাল এ খাতের ৫৮ কোম্পানির ৩৬৮ কোটি ৭৫ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে, যা মোট লেনদেনের ১৭ দশমিক ৫ শতাংশ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৬৪ কোটি ৩২ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে ওষুধ ও রসায়ন খাতের ৩২ কোম্পানির।

এদিকে শুধু লেনদেন নয়, গতকাল চাহিদা বাড়ায় বেশিরভাগ শেয়ারের দরও বেড়েছে। ডিএসইতে ২১৯ কোম্পানির শেয়ারদর বৃদ্ধির বিপরীতে ১০২টির দর কমেছে এবং অপরিবর্তিত ৬১টির দর। এতে প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ৪৬ পয়েন্ট বেড়ে ৬৪০১ পয়েন্ট ছাড়িয়েছে। যদিও লেনদেনের মাঝে সিংহভাগ শেয়ারের পাশাপাশি কয়েকটি কোম্পানির উল্লেখযোগ্য দর বৃদ্ধির ওপর ভর করে সূচকটি ৮৬ পয়েন্ট বেড়ে ৬৪৪১ পয়েন্ট ছাড়িয়েছিল।

পর্যালোচনায় দেখা গেছে, লেনদেনের শুরুতে বিকন ফার্মার দর ১১ টাকা ৮০ পয়সা বেড়ে ২৮৬ টাকা ৭০ পয়সায় উন্নীত হলেও লেনদেনের শেষ সময়ে তা কমে ২৫৬ টাকায় নেমেছিল, যা আগের দিনের তুলনায় ১৮ টাকা ৮০ পয়সা কম। এ দরপতনে সূচক ১১ পয়েন্ট কমেছে।

ডিএসইতে গতকাল লেনদেনের শেষ পর্যন্ত ৯ কোম্পানির শেয়ার দিনের সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হয়েছে। তবে কপারটেক, আরএসআরএম স্টিল, মালেক স্পিনিং, বসুন্ধরা পেপার, মেট্রো স্পিনিং ৯ দশমিক ৭ থেকে প্রায় ১০ শতাংশ দরবৃদ্ধি নিয়ে ছিল দরবৃদ্ধির শীর্ষে। ৫ শতাংশের ওপর ২৮ শেয়ারের দর বেড়েছে। তবে এর বিপরীতে ৪৯ শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ড এখনো ফ্লোর প্রাইসে কেনাবেচা হয়েছে।

 

 

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ