• মঙ্গলবার   ০২ জুন ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৯ ১৪২৭

  • || ১০ শাওয়াল ১৪৪১

২১

শক্তিশালী এন্টি-হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র তৈরি করছে রাশিয়া!

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৪ এপ্রিল ২০২০  

শব্দের চেয়ে ২০ গুণ গতিবেগ সম্পন্ন হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধ করতে সক্ষম এমন ইলেক্ট্রনিক ওয়ারফায়ার সিস্টেম (ইডাব্লিউ) তৈরি করতে শুরু করেছে রাশিয়া। যেটি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তাদের সামরিক শক্তির ভারসাম্য পুরোপুরি পাল্টে দিতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। ইজভেস্টিয়ারের বরাতে এ তথ্য দিয়েছে বুলগেরিয়ান মিলিটারি ডটকম।

ইলেক্ট্রনিক ওয়ারফায়ার ব্যবস্থা কেবল বিদ্যমান এবং ভবিষ্যতের হাইপারসনিক অস্ত্রগুলো প্রতিরোধেই সক্ষম হবে না একই  সঙ্গে হাইপারসনিক গতিতে আক্রমণও চালাতে পারবে। এটি আরো কার্যকরভাবে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ বেসামরিক ও সামরিক স্থাপনাগুলি রক্ষা করবে বলে জানিয়েছে ইজভেস্টিয়ার।

সামরিক বিশ্লেষক দিমিত্রি করনভ বলেছেন, 'নতুন ইলেক্ট্রনিক ওয়ারফায়ার সিস্টেম যুদ্ধে ব্যবহৃত প্রচলিত ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরোধ ব্যবস্থার ধরণ ও দিকনির্দেশনা পদ্ধতি পুরোপুরি পাল্টে দেবে। হাইপারসনিক বিমান এবং গোলাবারুদ মোকাবেলার জন্য এটি একটি সস্তা এবং কার্যকর উপায় হবে।'

এটি থাকলে বিপুল সংখ্যক রাডার এবং ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা স্থাপনের পাশাপাশি হাজার হাজার দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা উৎপাদন প্রয়োজন হবে না। ইলেক্ট্রনিক ওয়ারফেয়ার সিস্টেমের সাহায্যে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাগুলো নিরাপদ রাখা সহজ হবে। এটি পুরো দেশ জুড়ে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা সরবরাহের চেয়ে অনেক সহজ। এর অভিনবত্ব হচ্ছে বিদ্যমান বিমান প্রতিরক্ষা সংযোজন হবে এবং গাইডেড মিসাইলকে লক্ষ্য আঘাত হানাতে দেবে না।'

রাশিয়ার হাতে এরকম এন্টি হাইপারসনিক মিসাইল সিস্টেম থাকার মানে হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের মিসাইল সিস্টেম আপুরোপুরি অকার্যকর হয়ে গেল। যুক্তরাষ্ট্র বর্তমান যে ব্যালাস্টিক মিসাইল প্রযুক্তি ব্যবহার করছে সেটা দিয়ে রাশিয়ার এই নতুন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ভেদ করা যাবে না। এমনকি সুপারসনিক মিসাইল দিয়েও না। এর মানে হচ্ছে রাশিয়া এখন স্বস্তিতে থাকতে পারবে এই ভেবে যে, তাদের দেশে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা করার সক্ষমতা বিশ্বের কোন দেশের নেই।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আন্তর্জাতিক বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর