• মঙ্গলবার   ২৮ জুন ২০২২ ||

  • আষাঢ় ১৪ ১৪২৯

  • || ২৮ জ্বিলকদ ১৪৪৩

ডায়াবেটিস রোগীদের গর্ভধারণের প্রস্তুতি

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২  

গর্ভধারণ নারীদের এক বিশেষ অবস্থা। গর্ভাবস্থা কোনো শারীরিক অসুস্থতা নয়। গর্ভধারণের ফলে বিভিন্ন শারীরবৃত্তীয় স্বাভাবিক প্রক্রিয়ার কারণে শরীর ও মনে পরিবর্তন ঘটে। তাই এ জন্য প্রয়োজন সচেতনতা ও বাড়তি প্রস্তুতি।

বিশ্বে ডায়াবেটিস আক্রান্তদের প্রায় অর্ধেকই নারী। এই নারীদের প্রতি পাঁচজনে অন্তত দুজন প্রজননক্ষম। ডায়াবেটিস আক্রান্ত নারীদের গর্ভধারণের পূর্ব প্রস্তুতি না থাকলে বিভিন্ন জটিলতার সৃষ্টি হতে পারে। গর্ভধারণের সময় বিভিন্ন হরমোন ও শারীরবৃত্তীয় পরিবর্তনের কারণে রক্তের শর্করা হয়ে পড়ে অনিয়ন্ত্রিত। ডায়াবেটিস অনিয়ন্ত্রিত থাকলে গর্ভকালীন বিভিন্ন জটিলতার ঝুঁকি বেড়ে যায়। এ ছাড়া ডায়াবেটিসের কারণে চোখ বা কিডনির জটিলতা বাড়তে পারে।

গর্ভধারণের প্রাথমিক পর্যায়ে ডায়াবেটিস অনিয়ন্ত্রিত থাকলে শিশুর জন্মগত ত্রুটি, অকাল গর্ভপাত হওয়ার আশঙ্কা থাকে। ভূমিষ্ঠ শিশুদের জন্মকালীন শ্বাস–প্রশ্বাসজনিত সমস্যা, রক্তে শর্করা কমে যাওয়া, খিঁচুনি, জন্ডিস, পলিসাইথেমিয়া, অধিক ওজন হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে। তাই ডায়াবেটিস আক্রান্ত নারীদের গর্ভধারণের তিন মাস আগে থেকে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নেওয়া প্রয়োজন।

প্রস্তুতি

  • ওজন বেশি থাকলে গর্ভধারণের আগেই তা কমাতে চেষ্টা করুন। সুষম ও পুষ্টিকর খাদ্যাভ্যাস গড়ে তুলুন। এ ব্যাপারে চিকিৎসক বা পুষ্টিবিদের পরামর্শ নিন।

  • সন্তান নেওয়ার পরিকল্পনা করে থাকলে চিকিৎসককে জানান। নিয়মিত রক্তে শর্করার মাত্রা ও তিন মাসের গড় এইচবিএওয়ানসি পরীক্ষা করে চিকিৎসকের পরামর্শে ওষুধ বা ইনসুলিনের মাত্রা ঠিক করে নিন।

  • অপরিকল্পিতভাবে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। কারণ, এ সময় ইনসুলিনের মাত্রা বা ধরন পরিবর্তনের প্রয়োজন হতে পারে।

  • উচ্চ রক্তচাপ থাকলে তা নিয়ন্ত্রণে ব্যবহৃত ওষুধ পরিবর্তনের প্রয়োজন হতে পারে। এ ছাড়া রক্তশূন্যতা, থাইরয়েডজনিত সমস্যা, হৃদ্‌রোগ বা উচ্চ রক্তচাপ, কিডনির জটিলতা, চোখের সমস্যা থাকলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

  • গর্ভকালীন পুষ্টি নিশ্চিত করতে বিশেষ ক্যালরি চার্ট অনুসরণ করুন। গর্ভাবস্থায় ক্যালরি চাহিদা বারবার পরিবর্তন হতে পারে।

  • খালি পেটে ও তিন বেলা প্রধান খাবারের পর বাসায় নিয়মিত গ্লুকোমিটারের সাহায্যে ডায়াবেটিসের মাত্রা পরিমাপ করুন ও বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

  • কোনো ধরনের জটিলতা না থাকলে নিয়মিতভাবে হাঁটুন অথবা বাসায় হালকা ব্যায়াম করুন। গর্ভাবস্থায় একেবারে শুয়ে–বসে না থেকে বাসায় হালকা কাজ করুন।

  • যথেষ্ট বিশ্রামের প্রয়োজন রয়েছে। ধূমপান বা মদ্যপানের অভ্যাস থাকলে পরিহার করুন। গর্ভধারণের পরিকল্পনার শুরু থেকে গর্ভকালীন ১২ সপ্তাহ পর্যন্ত ফলিক অ্যাসিড সেবন করুন।

  • স্ত্রীরোগ ও ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখুন।

ডা. এ হাসনাত শাহীন, ডায়াবেটিস ও হরমোন রোগ বিশেষজ্ঞ, ইমপালস হাসপাতাল, তেজগাঁও, ঢাকা

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ