রোববার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১

কাটা মাথার গুজব কেন থামছে না? ডেঙ্গু আতঙ্কে মানুষ

কাটা মাথার গুজব কেন থামছে না? ডেঙ্গু আতঙ্কে মানুষ

 

চলতি সপ্তাহের অন্যতম আলোচিত একটি বিষয় ছিল বাংলাদেশে ছেলেধরা গুজব এবং সেই সন্দেহে গণপিটুনির ঘটনা। উলিপুর, কুড়িগ্রামের উত্তর নামাযেরচর থেকে এ প্রসঙ্গে লিখেছেন এসএম আব্দুস সামাদ: ''অনেকে বলছে বড় কোন সেতু নির্মাণে মানুষের কাটামাথার প্রয়োজন হয় যা সেতুর পিলারের নিচে উৎসর্গ করে কাজ শুরু করতে হয়।

ইঙ্গিতটা যে পদ্মাসেতুর প্রতি তা স্পষ্ট। গত ১৫দিন আগে আমাদের এখানে ৮ বছরের এক শিশু ছেলেধরার আক্রমণের শিকার হয়। তবে ভাগ্যক্রমে ছেলেটির প্রাণ রক্ষা পায়। এই ঘটনাটি ছেলেধরার সম্পর্কে কিছুটা সত্যতা প্রমাণ করে। যে ব্যক্তি ছেলেটিকে অপহরণ করতে চেয়েছিল সে আসলে ভারসর্মহীন ও মাতাল প্রকৃতির একটা ব্যক্তি ।

যাকে বলে হাটু বয়সি  কারণ ঐসব ব্যক্তি ছেলেদের সাথে মিসতে পছন্দ করে এবং বয়স বাড়ে কিন্তু বুদ্ধি বাড়ে না অর্থাৎ বুদ্ধি প্রতিবন্ধি ব্যক্তি ছিল।  অপরদিকে কিছু পাগল বা অস্বাভাবিক লোকদেরকে ছেলেধরা সন্দেহে গনপিটুনি দিচ্ছে পাবলিক। ছেলেধরা সম্পর্কে সরকার পক্ষও এসব অভিযোগ নাকচ করছে। আসলে সরকার এ সম্পর্কে কতটা জানতে পেরেছে?''

মি: সামাদ- পদ্মা সেতু নির্মাণের জন্য মানুষের কাটা মাথা লাগবে এটা নেহাতই গুজব। আর এই গুজব এতই ভয়াবহভাবে ছড়িয়েছে যে গুজব নিরসনে সেতু কর্তৃপক্ষ এবং আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দু'দফায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার পরও তা সাধারণ মানুষকে সামান্য পরিমাণেও আশ্বস্ত করতে পারে।

এই গুজবকে কেন্দ্র করেই ছড়িয়েছে ছেলেধরা আতঙ্ক এবং যেমনটা জানেন জনরোষের শিকার হয়ে গত কয়েকদিনে যে আটজন প্রাণ হারিয়েছে যাদের কেউই ছেলেধরা ছিল না বলে জানিয়েছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক। তিনি বলেছেন পুলিশ প্রতিটি ঘটনার বিশ্লেষণ করে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে।

 

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

সর্বশেষ: