শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১

ইবিতে গুজব বিরোধী র‌্যালি ও সমাবেশ

ইবিতে গুজব বিরোধী র‌্যালি ও সমাবেশ

 

“এসো আইন মেনে চলি, মানবতার ঐশ্বর্যে জীবন গড়ি” স্লোগানকে সামনে রেখে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ল’ অ্যাওয়ারনেস অ্যান্ড ভ্যালুস ডেভেলপমেন্ট সেন্টারের আয়োজনে গুজব বিরোধী র‌্যালি ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। 

সোমবার (২৯ জুলাই) বেলা ১১ টায় র‌্যালি পূর্ব প্রশাসন ভবন চত্বরে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপাচার্য ড. মো. হারুন-উর-রশিদ আসকারী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে উন্নয়ন কর্মধারা চলছে। বিশেষ করে বাঙালির আত্মনির্ভর হওয়া এবং সমৃদ্ধির মুর্তমান প্রতীক হচ্ছে পদ্মা সেতু। সেই পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ যখন ৮১% শেষ হয়েছে এবং উদ্বোধনের দিন সমাগত। ঠিক তখনি এই পদ্মা সেতু নির্মাণে পরাজিত শক্তিই গুজব ছড়িয়ে সেতুর কাজ বিলম্বিত করার পাঁয়তারায় লিপ্ত। গুজবে তারা বলে যে, পদ্মা সেতু পরিপূর্ণ সমাপ্তির জন্য রক্ত এবং মাথা চায়।’

উপাচার্য বলেন, ‘গুজব কারীরা একটা বিষয়ের সঙ্গে আরেকটি বিষয় সুকৌশলে জড়িয়ে ফেলে। রক্ত এবং মাথা চাইতে গেলে ছেলে ধরতে হবে। ফলে যারা কিছুটা ভারসাম্যহীন তাদেরকে টার্গেট করে পিটিয়ে হত্যা করে তারা দেশে অস্থিরতা তৈরি করে এবং বিদেশকে দেখানোর চেষ্টা করে বাংলাদেশ ভাল চলছে না। কিন্তু কথাতো তা নয়, বাংলাদেশে বর্তমানে মাথাপিছু আয় দু’হাজার মার্কিন ডলার। বাংলাদেশ সৃষ্টির পর থেকে এখন সবচেয়ে ভাল অবস্থানে রয়েছে। আগামীতে আরও ভাল অবস্থানে যাবে। সুতরাং নিন্দুকদের কোন গুজবে আর কাজ হবে না।’ 

ড. রাশিদ আসকারী দেশের পক্ষে, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে, প্রগতির পক্ষের শক্তিকে এগিয়ে এসে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বড় ধরনের গুজব বিরোধী বলয় তৈরির আহবান জানান। যাতে করে আগামীতে এ ধরনের গুজব সৃষ্টি আর কেউ করতে না পারে। 

সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. শাহিনুর রহমান বলেন, ‘আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র এখন থেকে নয়, ঔপনিবেশিক থেকেই আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলে আসছে।’

তিনি বলেন, ‘স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ যখন সারা বিশ্বের বুকে রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, জননেত্রী শেখ হাসিনা যখন বিশ্বনেত্রী হিসেবে স্বীকৃতি পাচ্ছেন, তখন এদেশের পরাজিত শক্তি বিএনপি-জামায়াত আর থেমে থাকতে পারছেনা। তারা আবারও নতুন করে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। তারা পদ্মা সেতু নির্মাণ নিয়ে অনেক বিভ্রান্তি তৈরি করেছে। কিন্তু আজ আমাদের নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মিত হচ্ছে। তাই তারা বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে পদ্মা সেতু নির্মাণ বাধা সৃষ্টির চেষ্টা করছে।’

তিনি বলেন, ‘ইতোমধ্যে ছেলে ধরা গুজব ছড়িয়ে যে সকল নিরীহ মানুষকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে আমরা এই হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

অপর বিশেষ অতিথি কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. সেলিম তোহা বলেন, ‘সম্প্রতি ছেলে ধরা এই গুজবটি আমাদের রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। এ ষড়যন্ত্র সুদীর্ঘ কাল থেকেই হয়ে আসছে। বড় ধরণের ষড়যন্ত্র হয়েছিল আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময়। পরবর্তীতে যখন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু দেশ গঠনে নিজেকে নিবেদিত করেছিলেন তখনও ষড়যন্ত্র হয়েছিল। আবার প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা শক্ত হাতে বাংলাদেশকে যখন রোল মডেলের দিকে নিয়ে যাচ্ছেন সে সময় এ ধরণের গুজব ছড়িয়ে দেশটিকে আবারও অকার্যকর করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তিনি এ গুজবের বিরুদ্ধে দেশবাসীকে সচেতন হওয়ার আহবান জানান।’ 

আইন অনুষদের ডিন এবং ল’ অ্যাওয়ারনেস অ্যান্ড ভ্যালুস ডেভেলপমেন্ট সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপক ড. রেবা মণ্ডলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. শাহজাহান মন্ডল, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি এস এম রবিউল ইসলাম পলাশ, সাধারণ সম্পাদক মো. রাকিবুল ইসলাম রাকিব, ল’ অ্যাওয়ারনেস অ্যান্ড ভ্যালুস ডেভেলপমেন্ট সেন্টারের সভাপতি মহিনুর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক আল-আমিন মিলন প্রমুখ। সমাবেশ শেষে গুজব বিরোধী র‌্যালি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

সর্বশেষ: