শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০

অসময়ে ফুলকপি চাষে লাভবান কুষ্টিয়ার চাষিরা!

অসময়ে ফুলকপি চাষে লাভবান কুষ্টিয়ার চাষিরা!

অসময়ের ফুলকপি চাষ করে আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছে কৃষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারার উপজেলার চাষিরা। অন্য ফসলের তুলনায় সময়ও কম লাগেয় আগাম জাতের ফুলকপি চাষের দিকে ঝুঁকছেন চাষিরা। এখন প্রায় বছরের পুরোটা সময় আগাম জাতের ফুলকপি চাষ করছেন তারা।

ভেড়ামারা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, ২০২২-২৩ উৎপাদন বর্ষে উপজেলায় আগাম শীতকালীন সবজি আবাদ লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ৪১৭ হেক্টর জমিতে। এর মধ্যে শুধু ফুলকপির আবাদ ধরা হয়েছে ১০৫ হেক্টর।

চাষি আলী হোসেন বলেন, ধান-গম চাষ করে আমরা খুব একটা লাভবান হতে পারিনি। ধান চাষ করে লোকসান গুনতে হয়। তাই ফুলকপি চাষ করছি। শীতকালে ফুলকপির ভরা মৌসুমে দাম একটু কম হয়। তবে অন্য সময়ে বেশ ভালো দাম পাওয়া যায়। সারা বছরই এখন ফুলকপি চাষ করছি।

পাইকারি ব্যবসায়ী সোহেল রানা বলেন, এ উপজেলায় সারাবছর ফুলকপি চাষ হয়। আমরা এই অঞ্চল থেকে শীতকালীন সবজি সংগ্রহ করে রাজধানীসহ সারা দেশে সরবরাহ করে থাকি।

ভেড়ামারা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শায়খুল ইসলাম বলেন, উপজেলার এই অঞ্চলের আবহাওয়া ও মাটি সবজি চাষের জন্য খুবই উপযোগী। আগাম জাতের ফুলকপি চাষ এবং সঠিক মার্কেট ধরতে পারায় বেশ লাভবান হচ্ছেন কৃষকরা। তারা ফুলকপি চাষে ঝুঁকছেন।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ