• রোববার   ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২৩ ১৪২৯

  • || ১৫ রজব ১৪৪৪

হলান্ডের হ্যাটট্রিকে উলভসকে ৩-০ গোলে হারালো ম্যানসিটি

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৩ জানুয়ারি ২০২৩  

কয়েকদিন আগে খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন ম্যানচেস্টার সিটির কোচ পেপ গার্দিওলা। অভিমানের শুরে বলেছিলেন খেলোয়াড়রা ভালো পারফরম্যান্স না করলে দলের দায়িত্বই ছেড়ে দিবেন তিনি।

কোচের সেই অভিমান খেলোয়ারদের মনকে নাড়া দিয়েছে। তাই তো ঘরের মাঠে দাপুটে ফুটবল খেললেন সিটির তারকা ফুটবলার আর্লিং হলান্ড। তার হ্যাটট্রিকে রবিবার (২২ জানুয়ারি) ঘরের মাঠ ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ৩-০ গোলে জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে সিটি।

প্রিমিয়ার লিগ ইতিহাসে সবচেয়ে কম ১৯ ম্যাচ খেলে ৪টি হ্যাটট্রিকের রেকর্ড এখন হলান্ডের। আগে এই রেকর্ডটি ছিল রুদ ফন নিস্টলরয়ের। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এই কিংবদন্তি স্ট্রাইকারের লেগেছিল ৬৫ ম্যাচ। উলভসের বিপক্ষে এই জয়ের পর ২০ ম্যাচ শেষে সিটির পয়েন্ট ৪৫।  

শুরু থেকে বল দখলে একচেটিয়া আধিপত্য করা সিটি অনেক চেষ্টা করেও গোলমুখ খুলতে পারছিল না। প্রথমার্ধের নির্ধারিত সময়ের পাঁচ মিনিট বাকি থাকতে ‘ডেডলক’ ভাঙেন হলান্ড। ডি ব্রুইনার ক্রসে ছয় গজ বক্সের মুখে প্রতিপক্ষের এক ডিফেন্ডারের ওপর লাফিয়ে হেডে ঠিকানা খুঁজে নেন তিনি।

চলতি মৌসুমে যেটি হলান্ডের ২৩ তম গোল। এই ২৩ গোল করেই গত মৌসুমে গোল্ডেন বুট জিতেছিলেন মোহাম্মদ সালাহ সালাহ ও সন হিউং-মিন। ৪১ মিনিটে পেনাল্টির আবেদন করেন গ্রিলিশ। ডি বক্সের মধ্যে নাথান কলিন্স পেছন থেকে গ্রিলিশের পায়ে আঘাত করেন। ভিআরে চেক করা হলেও পেনাল্টি পায়নি হলান্ডরা।

তবে ম্যাচের ৪৯ মিনিটে পেনাল্টি পায় সিটি। রুবেন নেভস ফাউল করেন গুন্দোয়ানকে। পেনাল্টি থেকে গোল করেন হলান্ড। এখানেই শেষ নয়। ৪ মিনিট পরই গোলকিপারের ভুল আর মাহরেজের সহায়তায় হ্যাটট্রিক করেন হলান্ড। লিগে যেটি হলান্ডের ২৫তম আর সব মিলিয়ে ৩১তম গোল।

এক মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগের কোনো ক্লাবের ফুটবলারের সর্বোচ্চ গোল ৪৪ টি। ২০০২-০৩ সালে ইউনাইটেডের হয়ে রুদ ফন নিস্টলরয় আর ২০১৭-১৮ সালে ৪৪ গোল করেছিলেন সালাহ। হলান্ড এরই মধ্যে ৩১ টি গোল করেছেন। ৪৪ গোলের এই রেকর্ড হলান্ড না ভাঙতে পারলে অবাক হতেই হবে। ৬৩ মিনিটে হলান্ডকে তুলে আলভারেজকে মাঠে নামান গার্দিওলা।

 

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ