• বুধবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১৩ ১৪২৮

  • || ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

উল্লাপাড়ার সোনালী ব্যাংকের দেবেশ সান্যাল একজন আলোকিত ব্যাংকার

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ৪ জানুয়ারি ২০২২  

সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, উল্লাপাড়া শাখা, সিরাজগঞ্জের সাবেক ম্যানেজার দেবেশ সান্যাল একজন আলোকিত ব্যাংকার। বর্তমানে তাঁর বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া উপজেলার ঘোষগাঁতী মহল্লায়। তিনি একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর আদর্শের সৈনিক। তিনি একজন সৎ, কর্মঠ, দয়ালু ও মানবীয় গুণ সম্পন্ন ব্যক্তি। 

তিনি ১৯৮০ সালে সোনালী ব্যাংকের চাকরিতে যোগদান করে ২০১৮ সালে অবসর গ্রহণ করেছেন। তিনি ৩৮ বছরাধিক ৯টি শাখা ও প্রিন্সিপাল অফিসে চাকরি করেছেন। তিনি চাকরি জীবনে ৪টি শাখায় দশ বছরাধিক ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি তাঁর পবিত্র প্রতিষ্ঠান ও গ্রাহকবৃন্দের সার্বিক কল্যাণে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়েছেন। তিনি যে শাখার দায়িত্ব পালন করেছেন সেই শাখাকেই লাভজনক পর্যায়ে উন্নীত করেছেন। তিনি আমানত বৃদ্ধি করেছেন, প্রচুর শ্রেণী বিন্যাসিত ও অবলোপনকৃত ঋণ আদায় করেছেন। তিনি বিভিন্ন খাতে প্রচুর ঋণ দিয়েছেন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর সকল স্তরের মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য বিভিন্ন ঋণ কর্মসূচির প্রচলণ করেছেন।

দারিদ্র বিমোচনে সহায়তা ঋণ, স্বকর্মসংস্থানের মাধ্যমে অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য জাগোনারী, উন্মেষ মাইক্রোক্রেডিট, ক্ষুদ্র খামার, ক্ষুদ্র ব্যবসা, মুক্তিযোদ্ধা, এসএমই প্রভৃতি ঋণ কর্মসূচি চালু করেছেন। ধার দেওয়া যেমন পূণ্যের কাজ ঋণ দেওয়াও তেমনি পূণ্যের কাজ বিবেচনায় বিভিন্ন ঋণ কর্মসূচির আওতায় তিনি প্রচুর ঋণ দিয়েছেন। তিনি অন্ধ প্রতিবন্ধীকে পর্যন্ত ঋণ দিয়ে স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলেছেন। তিনি যে এলাকাতেই চাকরি করেছেন সেই এলাকার মানুষের কল্যাণ করেছেন এবং ভালবাসা পেয়েছেন। তাঁর সুনামের জন্য ২০১০ সালে সিরাজগঞ্জ থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক “সাহসী জনতা” পত্রিকা তাঁকে গুণীজন সম্মাননা ও সংবর্ধনা প্রদান করেছে। তিনি অবলোপনকৃত ঋণ আদায়, আমানত সংগ্রহ ও শ্রেণী বিন্যাসিত ঋণ আদায়ের জন্য কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে বেশ কয়েকবার পুরস্কার পেয়েছেন।

তিনি একজন দেশপ্রেমিক জনকল্যাণকারী ব্যাংকার। তিনি চাকরিরত অবস্থা থেকেই বিভিন্ন সামাজিক কল্যাণমূলক কাজ করে আসছেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা জাগানোর জন্য ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রচুর মু্িক্তযুদ্ধ বিষয়ক গ্রন্থ কিনে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক গ্রন্থের ভ্রাম্যমান গণপাঠাগার প্রতিষ্ঠা করেছেন। আওয়ামী লীগ সরকারের মহামান্য রাষ্ট্রপতি তাঁর পাঠাগারে বই ক্রয়ের জন্য অনুদান দিয়েছেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নের জন্য মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে লেখা-লেখি করে থাকেন।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ