• বুধবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১৩ ১৪২৮

  • || ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সিরাজগঞ্জে জমজ দুই বোনের বিস্ময়কর সাফল্য, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৫ ডিসেম্বর ২০২১  

অতুন হক অর্থী ও অবনী হক অর্পা জমজ দুই বোনের মধ্যে রয়েছে সব বিস্ময়কর মিল। এবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে একই নম্বর পেয়ে উত্তীর্ণ হন তারা। ভর্তি পরীক্ষায় দুই জন দুই ভবন থেকে পরীক্ষা দিলেও একই নম্বর (৫৩) পেয়েছেন। ফলে দুই জনের মেধা স্কোর হয়েছে ৭২.৮৮ আর মেধাক্রম ১৬৩৬ ও ১৬৩৭। শুধু বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষায় নয়, স্কুল জীবনেও এমন সফলতা রয়েছে তাদের।

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া স্কুল প্রধান শিক্ষক আমিনুল হক ও সরকারি চাকরিজীবী লাভলী ইয়াসমিন দম্পতির ঘর আলো করে ১৯ বছর আগে জন্ম নেয় দুই জমজ মেয়ে অর্পা ও অর্থী। ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত তাদের পড়ালেখা সিরাজগঞ্জের দক্ষিণ পুস্তিগাছা বনানী বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ে। নবম শ্রেণিতে দু’জনেরই ভর্তি সিরাজগঞ্জের সবুজ কানন উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলে। অর্থী-অর্পা মাধ্যমিক পরীক্ষায় অংশ নেয় ২০১৮ সালে। ফলপ্রকাশের পর জানা গেল, দু’জনের জিপিএ একই ৪.৯৪। এরপর উচ্চ মাধ্যমিকেও একই বিন্দুতে অর্পা-অর্থী। এরপর ভর্তি হন সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজে।

উচ্চ মাধ্যমিকেও একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি দুই জনেই পেয়েছেন জিপিএ ৫। উচ্চ মাধ্যমিকের পাঠ চুকিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পথে আরও কাকতালের জন্ম দিয়েছেন দুই বোন। মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থী দুই বোন গত ২ অক্টোবর বসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা অনুষদভুক্ত ‘খ’ ইউনিটের পরীক্ষায়। ঠিক একমাস পর ২ নভেম্বর প্রকাশ পায় ভর্তি পরীক্ষার ফল। তাতেও বিস্ময়, দুই বোনেরই স্কোর ৫৩! । ২০২০ সালে সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে এবারও দু’ জনেই গোল্ডেন জিপিএ-৫ অর্জন করে এবং দু’জনেই সাধারণ বৃত্তিলাভ করেন। এমন বিষ্ময়কর মিল ও সাফল্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। মেয়েদের এমন সফলতায় খুশি পিতা-মাতাসহ আত্বীয় স্বজন ও শিক্ষকেরা।

অতুন হক অর্থীর ও অবনী হক অর্পা বলেন, আমরা সবসময় একসঙ্গে পড়ালেখা করেছি। আমাদের লক্ষ্য ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। আমাদের এই অনুভূতি ভাষায় ব্যক্ত করার মতো নয়। অনেক বড় পাওয়া। এই অনুভূতি ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। অর্পা ও অর্থির বাবা শিক্ষক এস এম আমিনুল হক স্বপন জানান, আমার এই দুই মেয়ে ছাড়া আর কোনো সন্তান নেই। আমি তাদের মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য চেষ্টা করছি। ওরা সবক্ষেত্রেই কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখছে। আমি সকলের কাছে দোয়া প্রার্থনা করছি।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ