• বুধবার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ৭ ১৪২৮

  • || ১৫ সফর ১৪৪৩

বেলকুচি উপজেলা চত্বরে ভ্রমন পিয়াসিদের ভিড়

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৪ মে ২০২১  

সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলা চত্বর এখন বিনোদন কেন্দ্রে হিসাবে গড়ে উঠছে ভ্রমণ পিপাসুদের কাছে। দূরদূরান্ত থেকে ভ্রমণ পিপাসুরা ছুটে আসছে বেলকুচি উপজেলা চত্বরে, বেলকুচিতে নেই কোন বিনোদন কেন্দ্র তাই একটু বিনোদনের খোঁজে মানুষ ছুটে আসছে। মনোরম প্রকৃতিক দৃশ্য ও কোলাহল মুক্ত হওয়ায় একটু অবসর পেলে মানুষ ছুটে যায় বেলকুচি উপজেলার প্রাণ কেন্দ্রে।

বেলকুচি উপজেলায় বিনোদন কেন্দ্র না থাকায় ভ্রমণ পিপাসুরা ভিড় জমাচ্ছে নিরিবিলি জায়গাতে। প্রাকৃতিক দেখতে বিনোদনের জন্য পরিবারের সকলে নিয়ে আসা মাহাফুজ বলেন, বেলকুচি উপজেলা চত্বর সাত মাস আগে এমন দৃষ্টিনন্দিত আকর্ষণীয় ছিলোনা, উপজেলা নির্বাহী অফিসার আনিসুর রহমান তাহার নিজউদ্যোগ এ এতো সুন্দর পরিবেশ তৈরী করে দিয়েছে, পরিবারের সকলে নিয়ে আমি মাঝে মধ্যে বিনোদনের জন্য আসি এখানে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল, শহীদমিনার ,শাপলা চত্বর, পানির ফুয়ারা, পানির ঝর্না, সিরাজগঞ্জের ঐতীহ্য তাঁতশিল্পের ভাস্কর্য চোংগা,বৈশাখী মঞ্চের সঙ্গে শিল্পের আবরণে ফুটে তোলা হয়েছে বৈশাখের ঐতীহ্য।

প্রতিদিন দূর দুরান্ত থেকে ছুটে আসা বিনোদন পিপাসু মানুষের পদচারণায় মুখোরিত হয়ে থাকে এই বেলকুচি উপজেলা চত্বরের আসপাশে। আগত দর্শনার্থীরা জানায়, উপজেলায় বিনোদনের পাশে একটা কপি হাউজে ব্যবস্থা থাকলে আরো ভালো হতো, আমরা দূর দুরান্ত থেকে চলে আসি প্রাকৃতিক পরিবেশে উপভোগ করার জন্য বন্ধুদের সঙ্গে আমাদের এই উপজেলায় বিনোদন কেন্দ্রে থাকতো তাহলে আমাদের অবসর সময়গুলো সেখানে কাটাতে পারতাম। এ উপজেলায় একটি বিনোদন কেন্দ্র খুবই দরকার।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আনিসুর রহমান এই প্রতিবেদককে বলেন বেলকুচি উপজেলা একটা তাঁতশিল্পের এলাকা এখান কার মানুষ ব্যস্ত সময় পারকরে তাঁতশিল্পের মাঝে, পরিবারের সকলে নিয়ে তাঁরা বিনোদনের জন্য কোথাও যায়তে পারেনা, বেলকুচিতে নেই কোনো বিনোদন কেন্দ্রে একটু নিরিবিলি জায়গা পাইলে সেখানে ভ্রমণ পিপাসুদের ভিড় জমাট হয়, ভ্রমণ পিপাসুদের কথা চিন্তা করে, আমার এ বেলকুচি উপজেলা চত্বরে বিনোদন কেন্দ্রে ব্যবস্থা করি, এখানে আছে শাপলা চত্বর, বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল, পানির ফোয়ারা, ঝর্না শহীদমিনার, প্রতিটি ফুলগাছের টোপের সঙ্গে সিরাজগঞ্জের অতীয্য তাঁতশিল্পের ভাস্কর্য চোংগা, বৈশাখী মঞ্চের সঙ্গে শিল্পের আবরণে ফুটে তোলা হয়েছে বৈশাখীর অতীয্য, চারো দিকে ফুলের বাগান। রাতের সৌন্দর্য জন্য বিভিন্ন রকমের আলোকসজ্জা করা হয়েছে। আরো কিছু কাজ পক্রিকা চলছে । কিছু দিনের ভিতরে উপজেলা চত্বরে একটা কফি হাউজ উদ্বোধন করা হবে।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ