• শনিবার   ২৮ মে ২০২২ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৪ ১৪২৯

  • || ২৭ শাওয়াল ১৪৪৩

ফুলের সুবাস ছড়াতে বাগান করবে শহীদুল্লাহ হল ছাত্রলীগ

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৫ মার্চ ২০২২  

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠপুত্র শেখ রাসেলকে হলের প্রতিটি শিক্ষার্থীর হৃদয়ে স্মরণীয় ও হল প্রাঙ্গণকে সর্বদা ফুলের ঘ্রাণে সুবাসিত করে রাখতে ‘শেখ রাসেল’ নামে ফুলের বাগান করার উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ হল ছাত্রলীগ। 

সোমবার (১৪ মার্চ) হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম (জাহিদ) ও সাধারণ সম্পাদক শরীফ আহমেদ (মুনিম) স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ বিষয়টি জানানো হয়। আগামী ১৭ মার্চ সকাল ১০টায় বাগানটির উদ্বোধন করবে হল শাখা ছাত্রলীগ। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয, ‘শেখ রাসেল’ সুন্দরতম এক ফুলের নাম। ফুলটি প্রস্ফুটিত হয়ে সুবাস ছড়ানোর আগেই ঘাতকের বুলেটে আক্রান্ত হয়, ঝরে পড়ে। ঝরে গেলেও নিশ্চিহ্ন হয় না। ১৯৭৫ সালের সেই কালোরাতে পাকিস্তানের ঘাতক দালাল বাহিনী ‘শেখ রাসেল’ নামক সুন্দরতম ফুলটিকে প্রস্ফুটিত হতে না দিলেও ‘শেখ রাসেল’ নামক ফুলটি যাতে ড. মুহম্মদ শহিদুল্লাহ হলের প্রত্যেক শিক্ষার্থীর হৃদয়ে প্রস্ফুটিত হয়ে তার মতো নিষ্পাপ ও ব্যক্তিত্ববান, ছোট কিন্তু ক্ষুদ্র নয়, আঘাত পেয়েও দমে যাওয়া নয় এই মনোভাব সৃষ্টি করে।

এটি প্রতিটি তরুণকে তার রূপ-রস-গন্ধ-শক্তি দিয়ে অনুপ্রাণিত করে ‘কেউ আমাদের দাবায়ে রাখতে পারবে না' মন্ত্রে দীক্ষিত করে, সে লক্ষ্যে ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্ হল ছাত্রলীগ হল প্রাঙ্গণে শহীদ আসাদ পাঠাগারের সম্মুখে ‘শেখ রাসেল’ নামক একটি ফুলের বাগান তৈরি করতে যাচ্ছে।

এতে আরো বলা হয়, শহীদুল্লাহ্ হল ছাত্রলীগ বিশ্বাস করে বাগানের ফুল গুলোর মধ্যে সুন্দরতম ফুল 'শেখ রাসেল’ তার সুবাসের মাধ্যমে হলের শিক্ষার্থীদের এই দেশকে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার দেশ গড়তে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ করবে এবং বাগানের কুসুম-কোমল ফুল থেকে দেশরত্নের মতো দৃঢ়-কঠিন মানুষ হবার সাহস যোগাবে। হলের প্রতিটি শিক্ষার্থীর কাছে এই বাগানের ফুলের সুবাস বয়ে নিয়ে যাবে ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্ হল ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্বের ‘বসন্ত বাতাস’। ফুলের সুবাসে সুবাসিত হবে হল প্রাঙ্গণ।

এ বিষয়ে ওই হল শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি জাহিদুল ইসলাম বলেন, আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রীর একটি নির্দেশ ছিল যে হলের সৌন্দর্য বর্ধন করা। তাছাড়া শেখ রাসেল একটি নিষ্পাপ শিশু ছিলো। তার স্মৃতিকে ধারণ করা এবং হলের শিক্ষার্থীরা যাতে সুন্দরভাবে একটা ভালো পরিবেশে তাদের পড়ালেখা চালিয়ে যেতে পারে সেই লক্ষ্যে আমাদের এই উদ্যোগ।

সাধারণ সম্পাদক শরীফ আহমেদ বলেন, এটা আমাদের নেত্রীর নির্দেশনা ছিলো। সেই নির্দেশ পালনে আমাদের এই পদক্ষেপ। আসলে সৌন্দর্য বিষয়টি সকলেই পছন্দ করেন। মনকে প্রফুল্ল রাখতে সৌন্দর্য একটি আবশ্যিক বিষয়। আমরা চাই হলের প্রতিটি শিক্ষার্থী যাতে সুন্দর ও মনোরম পরিবেশে তাদের পড়ালেখা করতে পারে।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ