• শনিবার   ১৩ আগস্ট ২০২২ ||

  • শ্রাবণ ২৯ ১৪২৯

  • || ১৫ মুহররম ১৪৪৪

মাদকের নতুন মাধ্যম এখন স্যানিটারি প্যাড : জনপ্রিয় হয়ে উঠছে দিনদিন

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৫ নভেম্বর ২০১৮  

সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বদলাচ্ছে নেশা৷ বদলে যাচ্ছে নেশার ধরন৷ পাল্টা দিয়ে বাড়ছে নেশার উপকরণও৷ নতুন নতুন নেশার উপকরণের সৌজন্যে ‘রঙিন’ দুনিয়ায় বুঁদ টিনএজাররাও৷ মদ-গাঁজার সঙ্গে সঙ্গে সমান জনপ্রিয় এখন স্যানিটারি ন্যাপকিনও৷ নেশার টানে সুদূর ইন্দোনেশিয়া থেকে গোটা বিশ্বে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে স্যানিটারি ন্যাপকিনের নেশা৷ স্যানিটারি ন্যাপকিন সেদ্ধ করা তরল পান করেই চলছে অদ্ভুত নেশা৷

নেশা চড়াতে কীভাবে চলছে গোটা প্রক্রিয়া?

সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, প্রথমে স্যানিটারি ন্যাপকিনটি আধঘণ্টা জলে সেদ্ধ করা হয়৷ সেদ্ধ ন্যাপকিন থেকে জল বের করে আলাদা পাত্রে ভরে রেখে ঠান্ডা করা হয়৷ প্রায় ২৪ ঘণ্টা রাখার পর একটু একটু করে তেতো ও কালচে তরলটি পান করছেন ইন্দোনেশিয়ার টিনএজাররা৷ সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে এখন গোটা বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয়তা বেড়েছে এই তরলের৷ মূলত সস্তার নেশার প্রতি ঝোঁক থেকেই এই নেশার আসক্ত হচ্ছে তরুণ প্রজন্ম৷ আর্থিক অবস্থা একেবারেই খারাপ, মূলত তাঁরাই এই নেশায় বুঁদ হয়ে থাকছে৷ আসলে ইন্দোনেশিয়ায় একেবারেই সস্তায় মেলে স্যানিটারি ন্যাপকিন৷ ফলে, সহজলভ্য এই স্যানিটারি ন্যাপকিন কিনে নেশায় হাত পাকাতে শুরু করেছেন তরুণ প্রজন্মের একাংশ৷

ইন্দোনেশিয়া ন্যাশনাল ড্রাগ এজেন্সির রির্পোট বলছে, স্যানিটারি প্যাড জলের মধ্যে ফোটালে, এর মধ্যে থাকা ক্লোরিন ও বেশ কিছু রাসায়নিক পদার্থ জলে মিশে যায়৷ মিশ্রণটি উত্তপ্ত হওয়ার রাসায়নিকগুলি বিক্রিয়া করতে শুরু করে৷ পরে, তরলটি ঠান্ডা হলে বিপরীত প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে৷ স্বাদে তেতো হলেও চড়তে থাকে নেশা৷ আর এতেই মজেছে ইন্দোনেশিয়ার তরুণ প্রজন্মের একাংশ৷ ধীরে ধীরে তা ছড়িয়ে পড়ছে উন্নয়নশীল দেশগুলোতেও।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ