• বৃহস্পতিবার   ০৬ অক্টোবর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ২১ ১৪২৯

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

চোখের ছানি অস্ত্রোপচারের পর যা করা উচিত

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৪ আগস্ট ২০২২  

চোখের ছানি অস্ত্রোপচার অহরহই হচ্ছে। একটা বয়সে গিয়ে বেশির ভাগ মানুষেরই এই অস্ত্রোপচার করতে হয়। চোখের অভ্যন্তরে যে প্রাকৃতিক লেন্স বা হিউম্যান লেন্স থাকে, তার কাজ হলো চোখে আপতিত আলোকরশ্মিকে প্রতিসারিত করে রেটিনার কোনো বিন্দুতে প্রক্ষেপণ করা। এটি দৃষ্টি বা দেখার প্রাথমিক শর্ত। লেন্সের দ্বারাই বস্তু থেকে আলো প্রতিসরিত হয়। কোনো কারণে যদি প্রাকৃতিক এই লেন্সটি তার স্বচ্ছতা হারিয়ে ফেলে অর্থাৎ ঘোলা হয়ে যায় তবে আলোকরশ্মি চোখের ভেতরে প্রবেশে বাধাপ্রাপ্ত হয়। ফলে দেখার কাজটি বিঘ্নিত হয়। এই পরিস্থিতিকে বলা হয় ক্যাটারেক্ট বা ছানি।

বিভিন্ন কারণে ছানি পড়তে পারে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো বয়সজনিত ছানি বা সেনাইল ক্যাটারেক্ট। এ ছাড়া আছে আঘাতজনিত ছানি (ট্রমাটিক ক্যাটারেক্ট); চোখের প্রদাহ, বিভিন্ন ধরনের রেডিয়েশন বা মাইক্রো/মাইক্রোওয়েভ রেডিয়েশনের কারণে সৃষ্ট কমপ্লিকেটেড ছানি; ডায়াবেটিস ও অন্যান্য মেটাবলিক ডিজঅর্ডারজনিত ছানি এবং কনজেনিটাল ক্যাটারেক্ট বা জন্মগত ছানি।

ওষুধের মাধ্যমে ছানির চিকিৎসার কোনো সুযোগ নেই। ছানির সুনির্দিষ্ট চিকিৎসা হলো অস্ত্রোপচার। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে অস্বচ্ছ লেন্স বা ছানি অপসারণ করে সেখানে একটি কৃত্রিম লেন্স বসানো হয়। একটি সফল অস্ত্রোপচারের পর রোগী দৃষ্টি ফিরে পান।

তবে অনেক সময় সফল অস্ত্রোপচারের পরও রোগী ভালো দেখেন না বা বিভিন্ন জটিলতার মুখোমুখি হন। একটু সতর্ক থাকলে এই পরিস্থিতি এড়ানো সম্ভব। ছানির অস্ত্রোপচারের পর যে বিষয়গুলো সম্পর্কে আগে থেকেই সচেতন হওয়া প্রয়োজন, তার কয়েকটি হলো:

অস্ত্রোপচারের পর কয়েক সপ্তাহ পোস্টঅপারেটিভ কেয়ার বা যত্ন দরকার। তার মধ্যে আছে চোখে ঠিকঠাক ওষুধ দেওয়া, কালো চশমা পরা, চোখে পানি না দেওয়া বা উপুড় হয়ে কোনো কাজ না করা ইত্যাদি। এগুলো যথাযথভাবে মেনে চলা উচিত। এর মধ্যে চোখে পানি লাগানো বিশেষ করে ময়লা পানিতে চোখ ধোয়া বা গোসল করা খুবই বিপজ্জনক। এতে অনেক সময় চোখে সংক্রমণ দেখা দিতে পারে এবং স্থায়ীভাবে দৃষ্টি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। যাদের ডায়াবেটিস আছে, অস্ত্রোপচার–পরবর্তী সময়ে কিছুটা বিশ্রামে থাকার কারণে বা হাঁটাহাঁটি না করতে পারার কারণে তাঁদের ডায়াবেটিস বেড়ে যেতে পারে। বিষয়টি খেয়াল রাখতে হবে। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখাটা এ সময়ে খুব জরুরি। অনেকে মনে করেন, অস্ত্রোপচার শেষ, এখন ডায়াবেটিস বাড়লেও ক্ষতি নেই। আসলে তা নয়। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে না থাকলে ভালো নিরাময় হবে না। চার থেকে ছয় সপ্তাহ সাঁতার কাটা যাবে না। গোসল করা যাবে কিন্তু চোখে পানি লাগানো যাবে না। বাইরে গেলে অবশ্যই চোখের শিল্ড পরতে হবে। অস্বস্তি লাগলেও চোখ ডলাডলি করা যাবে না। পরিষ্কার ও স্বচ্ছ না দেখা পর্যন্ত চালকের আসনে বসা যাবে না। প্রথম কয়েক সপ্তাহ বাড়িতে হালকা হাঁটাহাঁটি করলেও অতিরিক্ত ব্যায়াম করা যাবে না । চার সপ্তাহ পর্যন্ত চোখে কোনো মেকআপ ব্যবহার করা যাবে না।

অস্ত্রোপচারের পর সামান্য অস্বস্তি, খসখস ভাব, লালচে চোখ, পানি পড়া, হালকা ঝাপসা দেখা স্বাভাবিক। তবে হঠাৎ প্রচণ্ড ব্যথা শুরু হলে বা চোখ অতিরিক্ত লাল দেখালে এবং দৃষ্টি কমে এলে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। ছানি অস্ত্রোপচারের পর পুরোপুরি সুস্থ হতে চার থেকে ছয় সপ্তাহ সময় লাগে। ছয় সপ্তাহ পর আপনার চশমার পাওয়ারের জন্য চিকিৎসকের কাছে ফলোআপ করতে হবে।

ডা. মো. ছায়েদুল হক: চক্ষুবিশেষজ্ঞ ও সার্জন। সাবেক সহযোগী অধ্যাপক, জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ