শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১

কৃষিতে বকেয়া ভর্তুকি : ১০ হাজার কোটির বন্ড ইস্যু করছে সরকার

কৃষিতে বকেয়া ভর্তুকি : ১০ হাজার কোটির বন্ড ইস্যু করছে সরকার

সংগৃহীত

সামনেই আমন ধানের আবাদ মৌসুম। কিন্তু অর্থসংকটে বিদেশ থেকে সার কিনতে বিলম্ব হচ্ছে। আবার সার সরবরাহ নিশ্চিত করতে বকেয়া ভর্তুকির অর্থ পরিশোধের দাবি জানিয়েছেন আমদানিকারকরা। এ পরিস্থিতিতে সারের বকেয়া ভর্তুকির অর্থ পরিশোধের জন্য ১০ হাজার ৩৪২ কোটি ১৬ লাখ টাকার বিশেষ ট্রেজারি বন্ড ইস্যু করতে যাচ্ছে অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগ।

অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি এসংক্রান্ত একটি চিঠি অনুমোদনের জন্য অর্থমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর কাছে পাঠানো হয়েছে। সার ভর্তুকির বকেয়া পরিশোধে স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড ইস্যু শিরোনামে অর্থসচিব ড. মো. খায়েরুজ্জামান মজুমদার স্বাক্ষরিত চিঠিতে বলা হয়েছে, কভিড-১৯ অতিমারি ও কভিড-পরবর্তী অস্থিরতা বিশেষ করে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ ও আন্তর্জাতিক বাজারে খাদ্যপণ্য, তেল-গ্যাসের মতো জ্বালানির অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির কারণে সার ও বিদ্যুৎ খাতে ভর্তুকি বাবদ ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে সার খাতে ভর্তুকির অর্থের অংশ বিশেষ সরকার এই মুহূর্তে সরাসরি পরিশোধ না করে বিকল্পভাবে বন্ড ইস্যু করে পরিশোধ করতে চায়।

প্রসঙ্গত, বিদ্যুৎ ও সার খাতে বকেয়া ভর্তুকির অর্থ পরিশোধের জন্য এরই মধ্যে ‘স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড’ ইস্যুর প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রী নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন।

যার মধ্যে সারের ভর্তুকি বাবদ স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড ইস্যুর জন্য ২০ হাজার ৩৪২ কোটি ১৬ লাখ টাকা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। পরবর্তী সময়ে প্রথম ধাপে সারের ভর্তুকি বাবদ বকেয়া অর্থের বিপরীতে সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে ১০ হাজার কোটি টাকার স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড ইস্যুর প্রস্তাবসংবলিত সারসংক্ষেপ অর্থমন্ত্রী গত ৩ জানুয়ারি অনুমোদন দিয়েছেন। এবার দ্বিতীয় ধাপে ভর্তুকি বাবদ স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড ইস্যু করতে যাচ্ছেন অর্থমন্ত্রী।

 

এর মধ্যে প্রথম পর্যায়ে বিভিন্ন ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে সরকারি ও বেসরকারি সার আমদানিকারকদের পাওনা ভর্তুকির বিপরীতে মোট ৯ হাজার ৭৫৩ কোটি ১৩ লাখ টাকার স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড ইস্যু করা হয়েছে।

বর্তমানে দ্বিতীয় ধাপে সরকারি ও বেসরকারি সার আমদানিকারকদের পাওনা ভর্তুকির বিপরীতে সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের অনুকূলে সাত হাজার ১৭০ কোটি ৫৯ লাখ ২৪৫ টাকার স্পেশাল বন্ড ইস্যুর জন্য কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে অনুরোধ করা হয়েছে। এর মধ্যে ২০২৩-২৪ অর্থবছরে ছয় হাজার ২০০ কোটি টাকার স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড ইস্যুর জন্য অর্থ বিভাগের বাজেট অনুবিভাগ চিঠি পাঠিয়েছে।

সূত্র জানায়, প্রথম ধাপে অর্থমন্ত্রী কর্তৃক অনুমোদিত ১০ হাজার কোটি টাকার মধ্যে ৯ হাজার ৭৫৩ কোটি ১৩ লাখ টাকার বন্ড ইস্যু করা হয়েছে। বাজেট অনুবিভাগের চিঠি অনুযায়ী, বর্তমানে পরিশোধযোগ্য ছয় হাজার ২০০ কোটি টাকা অবশিষ্ট ২৪৬ কোটি ৮৭ হাজার টাকার বেশি হওয়ায় স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড ইস্যু করার ক্ষেত্রে অর্থমন্ত্রীর অনুমোদন প্রয়োজন। প্রধানমন্ত্রীর নীতিগত অনুমোদনের পর ২০ হাজার ৩৪২ কোটি ১৬ লাখ টাকার মধ্যে প্রথম ধাপে ১০ হাজার কোটি টাকা অনুমোদিত হওয়ায় বর্তমানে অবশিষ্ট ১০ হাজার ৩৪২ কোটি ১৬ লাখ টাকা অনুমোদনের সুযোগ রয়েছে।

যার মধ্যে ছয় হাজার ২০০ কোটি টাকার স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড ২০২৩-২৪ অর্থবছরে ইস্যু করা হবে। এর মধ্যে সার ভর্তুকির বকেয়া পরিশোধের জন্য গঠিত কমিটি বর্তমানে সার খাতে ভর্তুকি বাবদ বকেয়া অর্থের বিপরীতে আমদানিকারকদের অপরিশোধিত ব্যাংক দায় পরিশোধের জন্য স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড ইস্যু করতে বলেছে। একই সঙ্গে অবশিষ্ট ১০ হাজার ৩৪২ কোটি ১৬ লাখ টাকা দ্রুত অনুমোদন করার জন্য কমিটি সুপারিশ করেছে।

এ অবস্থায় সার ভর্তুকি বাবদ বকেয়া অর্থের বিপরীতে সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের অনুকূলে প্রয়োজন অনুসারে স্পেশাল ট্রেজারি বন্ড ইস্যুর জন্য প্রধানমন্ত্রীর নীতিগত অনুমোদিত সীমার মধ্যে অবশিষ্ট ১০ হাজার ৩৪২ কোটি ১৬ লাখ টাকার প্রস্তাব অনুমোদনের জন্য সুপারিশ করা হলে অর্থমন্ত্রী তাতে অনুমোদন দেন।

এদিকে সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড় রিমালে ক্ষতিগ্রস্ত ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের পুনর্বাসন কর্মসূচির আওতায় আনতে ১৬ কোটি ১১ লাখ টাকার প্রণোদনা ঘোষণা করেছে সরকার। গত ১৩ জুন কৃষি মন্ত্রণালয় থেকে কৃষকদের বিনা মূল্যে আমন ধানের (উফশী জাত) বীজ ও সার কেনার জন্য এ প্রণোদনা দেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। জারি করা আদেশে বলা হয়েছে, দেশের ২৫ জেলায় দুই লাখ ২৭ হাজার ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক এ প্রণোদনা পাবেন।

সূত্র: কালের কন্ঠ

সর্বশেষ: