শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১

এক সপ্তাহে ৪০০ সিগারেট খাওয়ায় ফুসফুস বন্ধ হয়ে গেল তরুণীর

এক সপ্তাহে ৪০০ সিগারেট খাওয়ায় ফুসফুস বন্ধ হয়ে গেল তরুণীর

সংগৃহীত

সিগারেট স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর, যা অনেক সময় মারাত্মক রূপ নেয়। অতিরিক্ত ধূমপান করার জন্য ৫ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে মৃত্যুর সঙ্গে ভয়াবহ লড়াই করতে হয় ১৭ বছরের একটি মেয়েকে।‌

জানা গেছে, এই মেয়েটি এক সপ্তাহে প্রায় ৪০০ টি সিগারেট ধূমপান করেছে, যার কারণে কাজ করা বন্ধ করে দেয় তার ফুসফুস। এছাড়া অতিরিক্ত ধূমপান করার জন্য তার ফুসফুসে তৈরি হয়েছে ছিদ্র। দীর্ঘ ৫ ঘণ্টা অপারেশন করার পর বর্তমানে ভালো অবস্থায় রয়েছে মেয়েটি।

মেয়েটির নাম কায়লা ব্লাইথ। আচমকা একদিন কায়লা অজ্ঞান হয়ে যায়, নীল হয়ে যায় তার গায়ের রং, সঙ্গে সঙ্গে তাকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। চিকিৎসকরা পরীক্ষার মাধ্যমে জানতে পারেন তার ফুসফুসে ব্লেব নামের একটি অংশ নষ্ট হয়ে গেছে।

জানা যায়, অতিরিক্ত সিগারেট খাওয়ার কারণে তার ফুসফুসে ব্লেভ নামে একটি ছোট ফোড়া ফেটে গিয়েছিল। এরপর ৫ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে চলে অপারেশন, অপসারণ করা হয় ফুসফুসের কিছু অংশ।

তথ্য অনুযায়ী, বন্ধুদের দেখে ১৫ বছর বয়সে সিগারেট খাওয়া শুরু করেন কায়লা। শুরুতে তিনি এটিকে টাইম পাস করার মাধ্যম ভেবেছিলেন এবং তিনি মনে করেছিলেন সিগারেট খাওয়ার ফলে তার শরীরে কোনো খারাপ প্রভাব পড়বে না। কিছুদিন পর কায়লার সিগারেটের নেশা এতটাই বেড়ে যায় যে সে সপ্তাহে ৪০০টা বা তার বেশি সিগারেট খেতেন। তিনি অনেক মানুষকে অতিরিক্ত সিগারেট খেতে দেখেছেন, কিন্তু তার ফলে তাদের শরীরে কোনো প্রকার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখতে পাননি তিনি। তবে নিজের সঙ্গে যা ঘটেছে তার পর কায়লা পুরোপুরি আতঙ্কিত।

সূত্র: ডেইলি বাংলাদেশ

সর্বশেষ: