• শুক্রবার   ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ২০ ১৪২৯

  • || ১২ রজব ১৪৪৪

স্প্যানের পাশাপাশি পদ্মা সেতুতে চলছে রেল সংযোগে কাজ

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৮ এপ্রিল ২০১৯  

পুরোদমে এগিয়ে যাচ্ছে পদ্মা সেতু প্রকল্পের নির্মাণ কাজ।  যে যার কাজ নিয়ে ব্যস্ত, কারো যেন দম ফেলার ফুরসত নেই। একটি একটি করে স্প্যান বসানোর মধ্যে দিয়ে কার্যত দৃশ্যমান হচ্ছে সেতুর কাজ। নদীর বুকে যতই দৃশ্যমান হচ্ছে সেতু ততই উচ্ছ্বাসিত হয়ে উঠছে দক্ষিণ জনপদের মানুষ।

পদ্মা সেতুতে স্প্যান বসানোর পাশাপাশি রেল সংযোগের কাজও শুরু হয়েছে জোরেশোরে। রাজধানী ঢাকার সঙ্গে সরাসরি রেল যোগাযোগের কাজ শুরু হওয়ায় দীর্ঘদিন ধরে বঞ্চনার শিকার দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের খুশি আরো একধাপ বেড়ে গেল। ইতোমধ্যে পদ্মা সেতুর জাজিরা প্রান্তের ভায়াডাক্টে (সেতুর গোড়া) রেলওয়ে গার্ডার বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। রেল চলাচলের জন্য এসব রেলওয়ে গার্ডার বসানো হচ্ছে। জাজিরা প্রান্তে ২৬৬ মিটার রেলওয়ে গার্ডার বসানো হবে।

এর আগে গত শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জে-২ এবং জে-৩ পিলারে একটি গার্ডার সফলভাবে স্থাপন করেন দেশি-বিদেশি প্রকৌশলীরা। এই পিলারে বসবে আরো ৫টি আই (শুধু রেলের জন্য) গার্ডার। পদ্মা সেতুর কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রকৌশল সূত্রে জানা যায়, রেলওয়ে গার্ডার বসবে শুধু ভায়াডাক্টে। জাজিরা প্রান্তের ভায়াডাক্টে ৭টি পিলারে বসানো হবে ৩৮ মিটার দীর্ঘ এবং ২ দশমিক ২০ মিটার প্রস্থের আই গার্ডার। এর উপরের অংশের প্রস্থ ০.৬০ মিটার এবং পাদদেশের প্রস্থ ০.৮০ মিটার। একটি পিলার থেকে আরেকটি পিলার পর্যন্ত ৬টি গার্ডার বসানো হবে। জাজিরা প্রান্তে গার্ডার বসানো হবে ৪২টি। গার্ডার বসানোর জন্য প্রস্তুত আছে সব পিলার।

সূত্র জানায়, মূল সেতুর পাশাপাশি এখন রেল সংযোগের কাজেও গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। এখন থেকে ধারাবাহিকভাবে রেলওয়ে গার্ডার বসানোর কাজ চলবে। রাজধানীর সঙ্গে দেশের দক্ষিণ জনপদের যোগাযোগ স্থাপনের এই সেতুটি এখন  ১৬৫০ মিটার দৃশ্যমান।

সেতুর নিচতলায় চলবে ট্রেন। তাই নিচতলায় ট্রেন চলাচলের জন্য গতকাল থেকে স্লাব বসানোর কাজ চলছে। রেললাইনের জন্য ২ হাজার ৯৫৯টি স্লাবের মধ্যে এরই মধ্যে ১ হাজার ৩০৫টি স্লাব তৈরি হয়েছে। রেলওয়ে স্লাবগুলো তৈরি হচ্ছে মাওয়া প্রান্তের কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে। আর ২২ মিটার দীর্ঘ রোডওয়ে স্লাব প্রয়োজন হবে ২ হাজার ৯১৭টি। মাওয়া ও জাজিরা দুপাড়েই এই রোডওয়ে স্লাব তৈরি হয়েছে এ পর্যন্ত ২৮০টি। এখন থেকে ধারাবাহিকভাবে রোডওয়ে স্লাব বসানোর কথা রয়েছে।

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সেতুতে ৪২টি পিলারের ওপর বসবে ৪১টি স্প্যান। আর দুইপাড়ে ভায়াডাক্ট (সংযোগ সেতু) রয়েছে আরো প্রায় ৩ দশমিক ৬৭ কিলোমিটার। সব মিলিয়ে সেতুটি হচ্ছে ৯ দশমিক ৮২ কিলোমিটার। সংযোগ সেতুও তরতর করে উঠে যাচ্ছে। পদ্মা বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ