শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১

জোড়ে সবুজ-বিজোড়ে লাল

জোড়ে সবুজ-বিজোড়ে লাল

জামালপুর শহরে যানজট কমাতে ব্যতিক্রমী পদক্ষেপ নিয়েছে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। লাল ও সবুজ রঙের পৃথক ইজিবাইক চলার অনুমোদন দেয়া হয়েছে। মাসের জোড় তারিখে সবুজ আর বিজোড় তারিখে লাল ইজিবাইক চলার অনুমোদন দেয়া হয়।

জামালপুর শহরে প্রায় আট হাজার ইজিবাইক চলাচল করায় সারাদিন তীব্র যানজট লেগে থাকত। যানজট রোধে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ ও সংশ্লিষ্ট স্থানীয় প্রশাসন নানা উদ্যোগ নিলেও সফলতার মুখ দেখতে পারেনি। সম্প্রতি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী কমিটির সভায় জোড় তারিখে সবুজ ও বিজোড় দিনে লাল রঙের ইজিবাইক চলাচলের সিদ্ধান্ত হয়। শুরুতে পৌরসভা কর্তৃপক্ষ তিন হাজার ইজিবাইক চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে।  

এক হাজার ৫০০ ইজিবাইকে লাল আর এক হাজার ৫০০ ইজিবাইকে সবুজ রং করা হয়। মাসের প্রথম দিন রোববার লাল রঙের ইজিবাইক চলাচল শুরু করে। জোড় তারিখে সবুজ রঙের ইজিবাইক চলে। 

মিয়াপাড়ার বাসিন্দা মোহাম্মদ সিফাদ বলেন, দীর্ঘদিনের যানজট অনেকটাই কমেছে। নতুন সিদ্ধান্ত শুনে ভালো লেগেছে। তবে চালকেরা বেশি ভাড়া চাচ্ছেন। পাঁচ টাকার ভাড়া ১০ টাকা চাচ্ছেন চালকরা। এতে ভাড়া নিয়ে যাত্রীদের সঙ্গে ঝগড়া হচ্ছে। সড়কে দুর্ভোগ কমলেও যাত্রীদের দ্বিগুণ ভাড়া গুনতে হচ্ছে।

বেশি ভাড়া চাওয়ার ব্যাপারে জানতে চাইলে ইজিবাইক চালক রাফিউর রহমান বলেন, আমরা গরিব মানুষ। একদিন ঘরে বসে থাকলে কীভাবে চলব? ইজিবাইকের লাইসেন্স করতে সাড়ে তিন হাজার টাকা লেগেছে। এক দিন বিরতি দিয়ে ইজিবাইক চলবে, এই সিদ্ধান্ত শুনে মালিকও দ্বিগুণ টাকা চাচ্ছেন। আগের ভাড়ায় গাড়ি চালিয়ে বাড়তি টাকা দেয়া সম্ভব নয়। তাই আমরা ভাড়া বাড়িয়েছি।

ব্যবসায়ী শাকিল আহমেদ জানান, শহরের যানজট নিরসনে জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটি একদিন লাল রং ও একদিন সবুজ রংয়ের ইজিবাইক চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এতে ১ তারিখ থেকে হঠাৎ ভাড়া বাড়িয়েছে অটো চালকরা। ১০ টাকার ভাড়া এখন ২০ টাকা দিতে হচ্ছে। এতে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী ও মানুষরা সমস্যায় পড়েছেন। 

যাত্রী আব্দুল করিম জানান, বিভিন্ন স্থানে অটোবাইক চালকদের ভাড়া বেশি নিতে দেখা গেছে। চালকরা একদিন পর পর গাড়ি চালানোর দোহাই দিয়ে ভাড়া বেশি নিচ্ছে। চালকরা বাড়তি ফি দেয় বলে দাবিও করে। এছাড়া জামালপুর পৌরসভার অটোবাইকদের লাইসেন্স রয়েছে। প্রতি বছর লাইসেন্সটি নবায়ন করতে হয়। এক বছর মেয়াদের লাইসেন্স শেষ হলে মালিক সমিতিকে ফি দিতে হয় বলে দাবি করে চালকরা।

জামালপুর পৌরসভার মেয়র মির্জা সাখাওয়াতুল আলম বলেন, এ পদ্ধতিতে শহরের যানজট অনেকটা কমে গেছে। পুরো শহরে কোথাও যানজট নেই। চালকদের দ্বিগুণ ভাড়া আদায়ের বিষয়টি শুনেছি। সে কারণে ইজিবাইক চালকদের উদ্দেশ্যে সন্ধ্যা থেকে শহরে মাইকিং করা হয়। এছাড়া ভাড়া বেশি না নিতে আহবান করা হয়েছে। 

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

সর্বশেষ: