• মঙ্গলবার   ২৭ জুলাই ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ১১ ১৪২৮

  • || ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

ঈদের আলোচিত ও প্রশংসিত ৫ নাটক

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৯ মে ২০২১  

ছোটপর্দায় ঈদকে কেন্দ্র করে সবসময় থাকে বাড়তি আয়োজন। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। করোনার কারণে কাজের সংখ্যা এবার কম হলেও ব্যস্ত সময় পার করেছেন নির্মাতা এবং অভিনয়শিল্পীরা। কাজের বৈচিত্র্য এবং মানের দিক থেকে যথেষ্ট পরিবর্তন লক্ষ্য করা গেছে। তবে মানের দিক থেকে কিছু হতাশার মাঝেও অনেক নাটক মন ছুঁয়ে গেছে।

ভিউয়ার্স ও সমালোচনার বিচারে সেরা হলো কোন কোন নাটক, তারই বিস্তারিত থাকছে এই আয়োজনে-

১. লাবনী: মারুফ রেহমানের উপন্যাস অবলম্বনে গোলাম কিসলু হায়দার নির্মিত দারুণ এক গল্পের টেলিফিল্ম ‘লাবনী’। এই গল্প তামিমের, যিনি চাকরি করেন এবং বই পড়েন। যে বইটা পড়ছেন এখন, ওই বইটার মলাট নেই। কিছু পাতা ছেঁড়া। এবং শেষের দিকের কিছু পৃষ্ঠাও নেই। বইটার উপরের পৃষ্ঠায় লেখা, বইটা ভালো না। ব্যক্তি বইটা পড়তে শুরু করেন। এতে করে দর্শক একটা আধিভৌতিক সাইকোলজিক্যাল আবহের ভেতর প্রবেশ করবেন। ধীরে ধীরে দেখা যায় বইটির সকল ঘটনা বাস্তবে তার সঙ্গে ঘটতে থাকে।

২. যদি আমি না থাকি: আশিকুর রহমানের পরিচালনার ইদের ওয়েব ফিকশন ‘যদি আমি না থাকি’ খুব ই প্রশংসিত হয়েছে এমন গল্প বেছে নেয়ার জন্য। শিল্পপতি সাহেব মারা গেছেন, পুরো বাড়িতে শোকের আচ্ছন্ন। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই শুরু হয় তার সম্পত্তির হিসাব। ছেলে, ভাই, কাছের মানুষেরা যেন অন্যরকম হয়ে উঠে। প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন তারিক আনাম খান, মনিরা মিঠু, ইরফান সাজ্জাদ, অপর্ণা ঘোষ। আরও ছিলেন অর্চি,মাসুম বাশার, মিলি বাশার, সমু চৌধুরী, শেলী আহসান। কনক আদিত্যের গাওয়া ‘ধরো যদি আমি না থাকি’ গানটা দর্শকদের মন ছুঁয়ে যায়।

৩. মরণোত্তম: তরুণ উপন্যাসিক সাদাত হোসাইনের উপন্যাস অবলম্বনে সঞ্জয় সমদ্দারের নির্মাণে গল্পটা বেশ প্রাসঙ্গিক; যার চিত্রনাট্য করেছেন ইশতিয়াক অয়ন। স্কুলের প্রধান শিক্ষক আজিজ মাস্টার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে অনশনে বসেছেন এমপিও ভুক্তির দাবিতে, কিন্তু পেছনে অন্য ঘটনা। গ্রাম্য, রাজনীতি, দেশপ্রেম, সামাজিক সচেতনা সব মিলিয়ে দারুণ এক বক্তব্যের এই টেলিফিল্ম ‘মরণোত্তম’।  ইলিয়াস কাঞ্চন, শহীদুজ্জামান সেলিমের পাশাপাশি মুগ্ধ করেছে ইমতিয়াজ বর্ষনের অভিনয়ও। আরো আছেন সুজন হাবিব, মাহিমা, ইফতেখার ইমাজ।

৪. আকাশ ভরা তারা: শাফায়েত মনসুর রানার ‘শর্টকার্ট সিরিজ’-এর এই শর্টফিল্মটিতে তিনি বাজিমাত করেছেন। বাসে যাত্রী মাত্র তিনজন। তরুণ ঠিকঠাক। তরুণীও। সমস্যা অন্য লোকটির মধ্যে। সে মাংস খায়। তার ক্ষুধা পায় একটু পর পর। মোস্তাফিজুর নুর ইমরানের অনবদ্য অভিনয় এই শর্টফিল্মটিকে অন্য মাত্রা দিয়েছে। দর্শকদের শেষ মিনিট পর্যন্ত ধরে রেখে নির্মাতা চমৎকার টুইস্ট দিয়েছেন।

৫. গরম ভাতের গন্ধ: ইসরাত আহমেদের গল্প সকাল আহমেদ পরিচালিত এই নাটকে মোশাররফ করিম কোনো কিছুতেই ভাত খেতে চায় না। স্ত্রীর সবকিছুতে স্বামী খুশি। একটা চমৎকার মানুষ পেয়ে স্ত্রীও খুশি। সুখের সংসার। সমস্যা একটাই। স্বামী ভাত খায় না। ভাত দেখলে অস্বাভাবিক আচরণ করে, রেগে যায় এবং অপমান করে। স্বামীর একটা গোপনীয়তা আছে। স্ত্রী সেটা জানে না। স্বামীর একমাত্র অভিভাবক মামাও সেটা জানে না। তবে একদিন রহস্য জানা যায়,সামনে চলে আসে এক হৃদয় বিদারক কাহিনী।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ