• মঙ্গলবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২১ ||

  • মাঘ ১৩ ১৪২৭

  • || ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪২

হত্যার পরও মেকআপ করে ফিরে এলো জবা

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ৩ ডিসেম্বর ২০২০  

ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা বলছে ‘জবা হলো অনেকটা অ্যামিবার মতো!’ আর সোস্যাল মিডিয়ার ট্রোলকে উক্তি করেই এমনটা বলেছে। এই জবা হলো ভারতের ধারাবাহিকের জবা। যারা সিরিয়ালভক্ত তাদের জবার কথা নতুন করে বলতে হবে না।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এ ভাবেই ট্রোল করা হল ‘কে আপন কে পর’ ধারাবাহিকের জবা সেনগুপ্তের চরিত্রকে। ধারাবাহিকে ‘মৃত্যু’র পর সশরীরে ফিরে আসায় জবার নামের পাশে জুড়ে গেল ‘অমর’-এর তকমা। তাকে তুলনা করা হল অ্যামিবার সঙ্গে। সে নাকি ‘সেই এককোষী প্রাণীর মতো যাকে মেরে ফেলা প্রায় অসম্ভব।’

এ ঘটনা নতুন নয়। এর আগেও জবার বোম ডিফিউজ করা, রাতারাতি পড়াশোনা শিখে উকিল এবং তার পর বিচারক হয়ে যাওয়া নিয়ে ট্রোলের বন্যা ছুটেছে। 

ধারাবাহিকের ২৪ নভেম্বরের এপিসোডে দেখানো হয় জবার জা তন্দ্রা এবং জামাই বিশান তাকে একটি শুনশান জায়গায় নিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। কিন্তু সবাইকে অবাক করে এর পরেই জবা ফিরে আসে। গলায় শুধু একটা ব্যান্ডেজ বেঁধে সে এক্কেবারে ফিট। মুখে মেকআপ, ঠোঁটে লিপস্টিক আর কপালে ছোট্ট টিপে জবার ‘ভূত’ তাক লাগানো সুন্দরী। 

এরপর ‘খুনি’ জামাইকে জব্দ করার জন্য ছদ্মবেশ ধরে জবা। শুধু তাই নয়, একসঙ্গে বসে রীতিমত কথাবার্তাও বলে তার সঙ্গে। যদিও জবার আদৌ মৃত্যু হয়েছিল কি না সেই বিষয়ে ধোঁয়াশা ছিল শুরু থেকেই। এরপর সে ফিরে আসায় বিষয়টি দর্শকদের কাছেও এখন স্পষ্ট।

ধারাবাহিকের এ সব কাণ্ডকারখানা দেখেই জবাকে ‘ঝড়’-এর সঙ্গে তুলনা করেন ঝিলম গুপ্ত নামক নেটাগরিক। ৮ মিনিটের একটি ভিডিওয় তিনি জবার বারবার মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসার কথা মনে করিয়ে দেন। আবার জবাকে মেরে ফেলার পর সেই রক্তমাখা দা-এর ভিডিয়ো তার স্বামীকে হোয়াটসঅ্যাপ করায় জবার খুনিদের ‘হাইটেক’ তকমা দিলেন ঝিলম।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ