• রোববার   ০৫ জুলাই ২০২০ ||

  • আষাঢ় ২১ ১৪২৭

  • || ১৪ জ্বিলকদ ১৪৪১

৭৫৭

“সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস” ট্রেন সার্ভিস ফিরিয়ে এনেছে রেলশহরের খ্যাতি

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৩ নভেম্বর ২০১৮  

উত্তরাঞ্চলের রেলসিটি হিসেবে এক সময় খ্যাত ছিল সিরাজগঞ্জ শহর। শহরের বুকের উপর দিয়ে দুটি প্রধান রেলসড়ক, শহরের বিভিন্ন স্থানে চারটি স্টেশন রেলওয়ে ইয়ার্ডসহ অসংখ্য স্থাপনা গড়ে উঠেছিল শহর জুড়ে। একাটাখালির উপর ছিল দৃষ্টিনন্দন দুটি রেলসেতু। বৃটিশ সরকারের পরিকল্পনায় গড়ে উঠেছিল এসব স্থাপনা। আর রেলকে ঘিরেই জমজমাট ছিল  সিরাজগঞ্জ শহর। 

 

৭৫-এর পরবর্তী সরকারগুলোর উদাসীনতায় একে একে হয়ে যায় সকল আন্ত:নগর ট্রেন চলাচল। স্থবির হয়ে এক পর্যায়ে বন্ধ হয়ে যায় জেলার বিভিন্ন রেলওয়ে স্টেশন। রেল শহর সিরাজগঞ্জে একটি মাত্র লোকাল ট্রেন ছাড়া কোন ট্রেনই চলাচল করছিল না। 

 

২০০৮ সালে বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর আবার আশার আলো দেখতে পায় শহরবাসী। ২০১১ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারি কলেজ মাঠের এক জনসভায় সিরাজগঞ্জের সাথে ঢাকার সরাসরি রেলযোগাযোগ ব্যবস্থার প্রতিশ্রুতি দেন। ওই সভায় বর্তমান সাংসদ অধ্যপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্নাকে জেলার উন্নয়ন সমন্বয়কের দায়িত্ব দেন। আর তখন থেকেই সিরাজগঞ্জ-ঢাকা আন্ত:নগর রেল চালুর ব্যাপারে উদ্যোগ নেন ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না। চালু হয় আধুনিক প্রযুক্তিসমৃদ্ধ সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেন। অপরদিকে সরকার সিরাজগঞ্জ-বগুড়ার নতুন রেলপথ নির্মাণেরও উদ্যোগ নিয়েছে। ফলে হারানো রেল শহরের খ্যাতি আবারও ফিরে পেতে শুরু করেছে সিরাজগঞ্জ। 

 

তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, পাকশীর হার্ডিঞ্জ ব্রীজ নির্মানের পর ১৯১৫ সালে সিরাজগঞ্জের রায়পুর, বাজার ষ্টেশন হয়ে যমুনা নদীর ঘাট পর্যন্ত রেল সংযুক্ত করা হয়। শুধু পৌর এলাকাতেই ছিল চারটি রেল ষ্টেশন। ওই সময় রেলবিভাগ প্রায় ১৪শ একর জমি অধিগ্রহণ করে। যেসব জমিতে রেলওয়ের বেশ কিছু স্থাপনা নির্মিত হয়েছিল। 

 

বর্তমান সরকার আবারও রেলওয়ের সকল যায়গা দখলমুক্ত করে বিভিন্ন মেগা প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে সিরাজগঞ্জ-বগুড়া নতুন রেলসড়ক সিরাজগঞ্জ বাজার রেলওয়ে স্টেশন থেকে মনসুর আলী রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত বাইপাস রেল সড়ক স্থাপন। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়িত হলে রেল সিটির খ্যতি আবারও ফিরে আসবে বলে স্থানীয়রা মনে করেন।

সিরাজগঞ্জ স্বার্থরক্ষা সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক ডা. জহুরুল হক রাজা বলেন, সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস চালুর মাধ্যমে ঢাকাগামী যাত্রীরা খুব সহজে অল্প খরচে যাতায়াত করতে পারছে। ভোরের ট্রেনে রওয়ানা হয়ে ঢাকায় কাজ সেরে বিকেলের ট্রেনেই ফিরে আসতে পারছে।  

 

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
নগর জুড়ে বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর