বৃহস্পতিবার   ০২ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ১৮ ১৪২৬   ০৮ শা'বান ১৪৪১

৪৪০

সিরাজগঞ্জে সরকারী বিএল স্কুলের শিক্ষকদের কোচিং বাণিজ্য

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯  

সরকারী বেসরকারী স্কুল ও কলেজের কোন শিক্ষক কোচিং করতে পারবেন না। কোচিং বাণিজ্য বন্ধে সরকারের ২০১২ সালের নীতিমালা অনুসারে দেশের সরকারী কিংবা বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা কোচিং করাতে পারবেন না বলে ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইং তারিখে হাই কোর্টের এমন নির্দেশনা কে উপক্ষা করে সিরাজগঞ্জ সরকারী বিএল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ ব্যপকভাবে নিজেদের বাড়ি, কিম্বা শহরের বিভিন্ন ভবনের কক্ষ ভাড়া নিয়ে দেদারছে চালিয়ে যাচ্ছেন কোচিং বাণিজ্য। নির্দেশনায় আরও প্রকাশ যেসব ব্যক্তি কোন প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক হিসেবে নিযুক্ত নন,শুধু মাত্র তারাই ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কোচিং করাতে পারবেন বলে আদালতের রায়ে প্রকাশ। শনিবার সকালে শহরের চৌরাস্থ বাহিরগোলা রোডে উল্কা লাইব্রেরীর পিছনে একটি পরিত্যক্ত ভবনের কক্ষ ভাড়া নিয়ে ২৫-৩০ জন শিক্ষার্থীর একটি করে ব্যাচ কোচিং করাচ্ছেন বিএল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের গনিত শিক্ষক মোঃ শফিকুল ইসলাম স¤্রাট ও ইংরেজী শিক্ষক বায়জীদ বোস্তামী। এছাড়া একই ভবনে কক্ষ ভাড়া নিয়ে ঐ বিদ্যালয়ের বায়োলজি, ক্যামিস্ট্রী ও অন্যান্য বিষয়ের শিক্ষকগণ রীতিমতো কোচিং করে আসছেন বলে স্থানীয়রা এ প্রতিবেদককে জানায়। এ বিষয়ে বিএল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অনুপস্থিত থাকায়, সহকারী প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুস সালাম খান মুঠোফোনে বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কোন ভাবেই কোচিং বা প্রাইভেট পড়ানো আইন সিদ্ধনয়। যদি কেউ এমটি করে থাকেন তবে বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আমরা ম্যাসেজ দিয়ে জানিয়ে দেব। ভবিষ্যতে কেউ কোচিং বা প্রাইভেট পড়াবেন না বলে তিনি জানান।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
এই বিভাগের আরো খবর