রোববার   ০৫ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২২ ১৪২৬   ১১ শা'বান ১৪৪১

৭৮৬

সলঙ্গায় স্কুল ছাদে ছামিয়ানা টাঙ্গিয়ে চলছে ক্লাস

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১ মার্চ ২০১৯  

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার সলঙ্গা থানার ৩৬ নং তেলকুপি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। ১৯৪২ সালে বিদ্যালয়টি স্থাপিত হয়। বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীর সংখ্যা প্রায় ৩ শতাধিক। শিক্ষক রয়েছেন মাত্র ৩ জন।

২০১১-২০১২ অর্থ বছরে এলজিইডির বাস্তবায়নে প্রায় ৩৯ লাখ টাকা ব্যয়ে ৩ কক্ষ বিশিষ্ট একটি ভবন নির্মান করা হয়। একটি কক্ষ অফিস রুম ব্যবহৃত হয়। দুটি কক্ষে দুই শিফটে চলে পাঠদান। শ্রেনী কক্ষগুলোতে শিক্ষার্থীদের জায়গা সংকুলান না হওয়ায় স্কুল ছাদের উপর ছামিয়ানা টাঙ্গিয়ে চলে পঞ্চম শ্রেনীর পাঠদান। আকাশে মেঘ দেখলেই ছাত্র-ছাত্রীদের গাদাগাদি করে রাখা হয় শ্রেনী কক্ষে।

এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে সরেজমিনে উক্ত প্রাথমিক বিদ্যালয়ে গিয়ে দেখাযায় দ্বিতীয় শিফটে তৃতীয় শ্রেনীতে ৬০ জন,চতুর্থ শ্রেনীতে ৬১ জন ও পঞ্চম শ্রেনীতে ৪৫ জন ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত রয়েছেন। জায়গা সংকুলান না হওয়ায় গাদাগাদি করে বসে আছে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। সহকারি ২ শিক্ষক নিচ্ছেন ক্লাস।

প্রধান শিক্ষক লতিফা খাতুন জানান, পঞ্চম শ্রেনীর ক্লাস ছাদের উপর ছামিয়ানার নিচে নেওয়া হয়। আবহাওয়া খারাপ থাকায় শিক্ষার্থীদের ভবনের কক্ষে নিয়ে আসা হয়েছে। তাই শিক্ষার্থীদের বসতে হচ্ছে গাদাগাদি করে।

স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সাজেদুল ইসলাম মিন্টু জানান, স্কুল ভবনটি ৪ তলা ফাউন্ডেশনে করা। কিন্তু প্রাথমিকভাবে এক তলা করা হয়েছে। শ্রেনী কক্ষ বৃদ্ধির জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবার  দ্বিতীয় তলা নির্মানের আবেদন করা হয়েছে।


বিষয়টি নিয়ে কথা হয় উল্লাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আরিফুজ্জামানের সাথে। তিনি বলেন, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের মাধ্যমে শ্রেনী কক্ষ বৃদ্ধির জন্য আবেদন করতে হবে। আবেদন পেলে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

এ ব্যাপারে উল্লাপাড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসারের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও ফোন রিসিফ  না করায় তার সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি। শিক্ষার্থীদের সুষ্ঠভাবে পাঠদানের জন্য দ্রুত শ্রেনী কক্ষ বৃদ্ধির জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছেন এলাকার সচেতন মহল।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
এই বিভাগের আরো খবর