• শুক্রবার   ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৯ ১৪২৭

  • || ০৭ সফর ১৪৪২

১০

শাহজাদপুরে পিতার কবরের পাশেই শায়িত হলেন সাবেক আইন সচিব জহিরুল হক

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ৬ আগস্ট ২০২০  

আইন ও বিচার বিভাগের সাবেক সচিব আবু সালেহ্ শেখ মোঃ জহিরুল হক দুলাল এর জানাযা ও দাফন সম্পন্ন। গত ৫ আগষ্ট রাত ১১টা ২০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে গত ২৭ জুলাই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি হন।

দীর্ঘ ৯ দিন আইসিইউতে জীবন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জালোড়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। পরে আজ ৬ আগষ্ট বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় ঢাকা থেকে সাবেক সচিবের লাশ শাহজাদপুরে নিজ বাড়ীতে নিয়ে আসা হয়। শাহজাদপুর সরকারি কলেজে মাঠে জানাযা শেষে শেরখালী কবরস্থানে পিতার কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হন।

এ সময় মরহুমের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত ছিলেন, সিরাজগঞ্জ জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক মন্ত্রী ও সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রফেসর আজাদ রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হালিমুল হক মিরু, প্রধান বিচার প্রতির পক্ষে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান, সিরাজগঞ্জ জেলা দায়রা জজ ফজলে খোদা মোঃ নাজির, নারী শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (জেলা জজ) আব্দুল্লাহ্ আল মামুন, সিরাজগঞ্জের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্র্রেড শাহাদৎ হোসেন, সিরাজগঞ্জ কোর্টের পিপি আব্দুর রহমান, জেলা আইনজীবি সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার পারভেজ লিমন, জেলা পুলিশ সুপারের পক্ষে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহজাপুর সার্কেল, শাহজাদপুর আইনজীবি সমিতির নেতা এ্যাড. আনোয়ার হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

মৃতের জানাযা নামাজের ইমামতী করেন, সাবেক এই সচিবের ছোট ভাই কর্ণেল আবু জাফর বাবুুু।


উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২ ফেব্রুয়ারী থেকে আইন সচিবের দায়িত্বে ছিলেন দুলাল। চাকুরীর মেয়াদ শেষ হলে ২০১৭ সালের ৭ আগষ্ট তার অবসরোত্তর ছুটি বাতিল করে দুই বছরের জন্য চুক্তিতে একই পদে নিয়োগ দেওয়া হয়। ২০১৯ সালের ৭ আগষ্ট তার চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়। ১৯৫৮ সালের ৮ আগষ্ট সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর উপজেলায় জন্ম নেওয়া দুলাল স্ত্রী, দুই মেয়েসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

তাঁর পিতা সাবেক এস,পি ও শাহজাদপুর উপজেলা প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান ফজলুল হক। ১১ ভাই ৫ বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন দ্বিতীয় সন্তান। রাজশাহী ক্যাডেট কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন বিষয়ে স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করে এবং পরে তিনি সহকারী মুনসেফ হিসেবে যোগদান করেন।

তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষারত অবস্থায় ছাত্রলীগের নেতা হিসেবে রাকসু এর নির্বাচিত নেতা ছিলেন।  তিনি ছাত্র জীবন থেকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিচিত ছিলেন।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
সিরাজগঞ্জ বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর