রোববার   ০৫ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২২ ১৪২৬   ১১ শা'বান ১৪৪১

১৫

মুজিববর্ষেই চালু হচ্ছে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত দৃষ্টিনন্দন আন্ডারপাস

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে শহীদ রমিজ উদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজের সামনে মাটির নিচ দিয়ে দৃষ্টিনন্দন ও শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত সুড়ঙ্গ পথটির নির্মাণ কাজ শেষের দিকে। এখন চলছে ঘষামাজার কাজ। জানা গেছে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীতে অর্থাৎ ১৭ মার্চ এটি উদ্বোধনের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের।

আন্ডারপাস নির্মাণ প্রকল্প সূত্র জানিয়েছে, ৪২ মিটার দীর্ঘ এ আন্ডারপাসটি হোটেল রেডিসন ও এমইএস বাসস্ট্যান্ডের সংযোগ ঘটাচ্ছে। তবে এটিকে করা হচ্ছে দৃষ্টিনন্দন। থাকবে সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থাও। আন্ডারপাসে প্রবেশ ও বের হওয়ার রাস্তা গ্লাসের কাঠামো দিয়ে তৈরি। ভেতরে রাখা হয়েছে বিশ্রাম ও শপিং করার মতো জায়গা। আন্ডারপাসের ভেতরে ডিজিটাল ডিসপ্লে বোর্ড লাগানো থাকবে। ওয়াকওয়ে হবে দৃষ্টিনন্দন। থাকবে বিশ্বমানের এস্কালেটর, লিফট এবং র‌্যাম্প। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত দৃষ্টিনন্দন আন্ডারপাস নির্মাণ কাজ চলছে।

সূত্র আরো জানায়, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের অধীনে এটি নির্মাণ হচ্ছে। তবে এর রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে থাকবেন সেনাসদস্যরা। এছাড়া সওজের সঙ্গে সমন্বয় করে এটি দেখভাল করা হবে।

সরেজমিনে দেখা গেছে, ভেতর একসারিতে কমপক্ষে ১০ জন হাঁটতে পারবে এমন প্রশস্ততা রয়েছে। ৪২ মিটার দীর্ঘ আর ২৭০ বর্গমিটারের আন্ডারপাসটি উচ্চতায় ১৫ মিটার। রঙ দেয়া, টাইলস ও উপরে গ্লাস লাগানোর কাজ করছেন শ্রমিকরা। এর দুদিকে দুটি করে প্রবেশ ও বের হওয়ার পথ রয়েছে। আন্ডারপাসটি পুরোপুরি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। রেডিসন অংশে পথচারীদের বসে বিশ্রাম নেয়ার সুযোগ থাকবে। বাইরের অংশে গ্লাসের কাঠামোটি দেখতে অনেকটা পিরামিডের মতো, যার ভেতরে থাকবে পথচারীদের জন্য বসার ব্যবস্থা।

 

শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত দৃষ্টিনন্দন আন্ডারপাস নির্মাণ কাজ চলছে

দেশে আন্ডারপাস নির্মাণে এটিই প্রথম ঘটনা যে, উপরে কোনো রাস্তা কাটতে হয়নি। ‘পুশবক্স’ পদ্ধতিতে আন্ডারপাসের ভেতরে খোদাই করে প্রি-কাস্ট বক্সস্লাব দিয়ে এর নির্মাণ শেষ হয়েছে।

২০১৮ সালের ২৮ জুলাই এ সড়কে মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় শহীদ রমিজ উদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর পর সারাদেশে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন শুরু হয়েছিল। ওই সময় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতিতে এর নির্মাণ শুরু করেছিল সেনাবাহিনীর ২৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেড।

শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত দৃষ্টিনন্দন আন্ডারপাস নির্মাণ কাজ চলছে

সেনাবাহিনীর ২৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেডের কর্মকর্তারা জানান, এত বড় আর দৃষ্টিনন্দন আন্ডারপাস দেশে আর একটিও নেই। আন্ডারপাসের ভেতরে ডিজিটাল ডিসপ্লে বোর্ড লাগানো থাকবে। থাকবে বিশ্বমানের এস্কালেটর, লিফট এবং র‌্যাম্প। হুইল চেয়ার বা ট্রলি নিয়ে নামা যাবে এখানে। বৃদ্ধ, প্রতিবন্ধী বা বিশেষ শিশুরা সহজেই আন্ডারপাসটি ব্যবহার করতে পারবে।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
এই বিভাগের আরো খবর