• সোমবার   ২৬ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ১১ ১৪২৭

  • || ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

৬৮

‘মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা দেওয়াটা সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ’

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৬ অক্টোবর ২০২০  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের দেশ ভূখণ্ডের দিক থেকে খুবই ছোট। কিন্তু আজ আমাদের মানুষের সংখ্যা প্রায় ১৭ কোটির কাছাকাছি, এই মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা দেওয়াটা সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

শুক্রবার (১৬ অক্টোবর) সকালে বিশ্ব খাদ্য দিবস-২০২০ উপলক্ষ্যে আয়োজিত সেমিনারের উদ্বোধনি অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “এ দেশের মানুষ একবেলা খাবার জোটাতে কষ্ট পেত। ক্ষুধা-দারিদ্র্য তাদের নিত্যসঙ্গী ছিল। তাদের ভাগ্য পরিবর্তনটাই ছিল জাতির পিতার একমাত্র লক্ষ্য। তাই তিনি ১৯৭২ সালে ১০ জানুয়ারি ঐতিহাসিক ভাষণে বলেছিলেন, ‘আমার জীবনের একমাত্র কামনা বাংলাদেশের মানুষ যেন খাদ্য পায়, আশ্রয় পায় উন্নত জীবনের অধিকারি হয়’। এই লক্ষ্য নিয়েই যাত্রা শুরু করেন যুদ্ধ বিধস্ত দেশ গড়ে তুলতে। সেই সাথে সাথে তিনি ২০ ফেব্রুয়ারি ১৯৭২ সালে তার বক্তব্যে বলেছিলেন, ‘দেশে কৃষি বিপ্লব সাধনের জন্য কৃষকদের কাজ করে যেতে হবে। বাংলাদেশের এক ইঞ্চি জমিও অনাবাদী রাখা যাবে না’। সেই সময় একদিকে যুদ্ধবিধস্ত দেশ তার উপর ৫০০ কোটি টাকার উন্নয়ন বাজেটের মধ্যে ১০১ কোটি টাকাই রেখেছিলেন শুধু কৃষি উন্নয়নের জন্য। কারণ মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এটাই ছিল তার একমাত্র লক্ষ্য।”

জাতির পিতার বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমাদের দেশ একটা ভূখণ্ডের দিক থেকে আসলে বাংলাদেশ খুবই ছোট। কিন্তু আজ আমাদের মানুষের সংখ্যা হচ্ছে, প্রায় ১৭ কোটির কাছাকাছি মানুষ। এই মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা দেওয়াটা সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আর সেদিকে লক্ষ্য রেখে জাতির পিতার পদাঙ্ক অনুসরণ করেই আমরা বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছি এবং তা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি।’

‘মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা দেওয়াটা সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ’

এসময় আওয়ামী লীগের প্রথম মেয়াদসহ তৃতীয় মেয়াদে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনে সরকারের ধারাবাহিকতায় বিভিন্ন পদক্ষেপের কথাও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন- এফএও মহাপরিচালক। এছাড়া বক্তব্য রাখেন- কৃষি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বেগম মতিয়া চৌধুরী, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল, খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক।

ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে সংযুক্ত ছিলেন- এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের এফএও সদস্যভূক্ত ৪৬টির দেশের ২৫০ জনের অধিক প্রতিনিধি, সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে সচিব ও বিভাগীয় কমিশনাররা।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর