• শনিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ১৫ ১৪২৭

  • || ১৬ রজব ১৪৪২

মানসিক অবসাদ দূর করবে পান পাতা

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

দুপুরে খাওয়ার পর আয়েশ করে সুপারি জর্দা দিয়ে পান খাওয়ার অভ্যাস আছে অনেকের। বিশেষ করে যারা বয়স্ক আছেন তারা অনেক বেশি পান খেয়ে থাকেন। তবে তাদের পান খাওয়ার ব্যাপারটা একটু আলাদা। পান যে শুধু অভ্যাস টা কিন্তু নয় শরীরের নানান উপকারও করে এটি। আমাদের দেশে পান খুবই জনপ্রিয়। 

সাধারণত বিভিন্ন উৎসব-অনুষ্ঠানে বা অতিথি আপ্যায়নে পানের প্রচলন অনেক আগে থেকেই। অনেকেরই হয়তো জানা নেই পান পাতার উপকারিতা সম্পর্কে। পান পাতার একাধিক উপাদান নানা ধরনের রোগের প্রকোপ কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। তবে চিকিৎসকদের মতে, চুন ও জর্দাসহ পান খেলে স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর হতে পারে। জর্দা ছাড়া পান খেলে এর বেশকিছু উপকারিতা রয়েছে। এখনো নানা শারীরিক সমস্যায় এই পাতাকে কাজে লাগিয়ে চিকিৎসা করা হয়ে থাকে।  

চলুন তাহলে জেনে নেয়া যাক পান পাতার এমনি কিছু উপকারিতা সম্পর্কে-

মানসিক চাপ কমাতে সহায়তা করে
যারা মানসিক চাপে ভুগছেন তারা পান পাতা খাওয়া শুরু করতে পারেন। কারণ এতে উপস্থিত বেশ কিছু প্রাকৃতিক উপাদান নিমেষে মন ভাল করে দেয়। সেইসঙ্গে হতাশা কমাতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। এক্ষেত্রে রাতের খাবার শেষ করে ১-২টি পান পাতা মুখে নিলে দারুণ উপকার পাওয়া যায়।

খাবার হজমে সহায়তা করে
পান পাতা খাবার হজমে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। পান পাতায় রয়েছে গ্যাস্ট্রো প্রটেকটিভ, অ্যান্টি-ফ্লটুলেন্ট এবং কার্মিনেটিভ এজেন্ট যার কারণে পান পাতা মুখে স্যালাইভা তৈরি করে। যা খাবার হজম করতে সাহায্য করে।

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে
পান পাতা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য খুবই কার্যকরী। কারণ পান পাতা রক্তের শর্করার পরিমাণ কমায়।

ক্ষত সারাতে সাহায্য করে
পান পাতা ক্ষত সারাতে সাহায্য করে। এতে রয়েছে প্রচুর মাত্রায় অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এই উপাদান যেকোনো ক্ষত সারিয়ে তুলতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে থাকে। কোনো ক্ষতস্থানে অল্প করে পান পাতার রস দিয়ে তার উপরে আরো কয়েকটি পান পাতা দিয়ে ব্যান্ডেজ করে বেঁধে রাখুন। এমনভাবে এক থেকে দুইদিন থাকলেই দেখবেন ক্ষত একেবারে সেরে গেছে।

ত্বকের জন্যও খুব উপকারী
ব্রণ এবং র‍্যাশের সমস্যা দূর করতে পান পাতার জুড়ি নেই। পান পাতা বেটে ব্রণের জায়গায় লাগালে ব্রণ সেরে যায়। এমনকি ত্বকের দাগ দূর করতেও সহায়তা করে পান পাতা। চুল পড়ার সমস্যা দূর করতেও বেশ কার্যকরী পান পাতা। 

মুখের রোগে প্রতিরোধক
পান তার বিশেষ ধরনের গন্ধের জন্য বিখ্যাত। পান খেলে মুখের দুর্গন্ধ দূর হয়। পান খেলে মুখের ভেতরের অ্যাসকরবিক অ্যাসিডের স্তর স্বাভাবিক থাকে। যার ফলে বিভিন্ন রোগ দূরে থাকে। পান খেলে দাঁত পরিষ্কার হয়, ফলে দাঁতে ক্ষয়ের সম্ভাবনা থাকে না।

শ্বাসযন্ত্রের ব্যাধি নিরাময়ে
পান পাতা ঠাণ্ডা -কাশি এবং অ্যাজমাকে সারিয়ে তোলে। সরিষার তেলের সঙ্গে পানের রস গরম করে বুকে লাগালে জমাট বাঁধা কফ সেরে যায়। পান পাতার সঙ্গে এলাচ এবং দারুচিনি দিয়ে ফুটিয়ে তৈরি করতে পারেন সিরাপ। প্রতিদিন তিনবার করে এই সিরাপ পানে কাশি এমনকি ব্রণকাইটিস ভালো হয়।

মূত্রবর্ধক
রক্তে চিনির পরিমাণ হ্রাস করতে সাহায্য করে পানের রস। এটি মূত্রবর্ধক এবং ডায়বেটিসের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়। দুধের সঙ্গে পানের রস মিশিয়ে খেলে মূত্রথলির ব্লকেজ পরিষ্কার করে।

চর্মরোগ প্রতিরোধে
পানপাতায় উপস্থিত অ্যান্টি-মাইক্রোবাইল বৈশিষ্ট্য এলার্জি, খুজলি, ঘা এবং শরীরের দূগন্ধ দূর করতে সাহায্য করে। হলুদের সঙ্গে পান পাতা বেটে শরীরে লাগালে র‌্যাস, এলার্জি এবং বিভিন্ন চর্ম রোগ সেরে যায়। উজ্জ্বল ত্বক পেতে পান পাতা সিদ্ধ করে ঠাণ্ডা হওয়া পানি দিয়ে মুখ ধুতে পারেন।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ