• বৃহস্পতিবার   ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ৯ ১৪২৭

  • || ০৭ সফর ১৪৪২

৩৮

ভর্তুকি খাতে বরাদ্দ বাড়ছে সাড়ে ৫ হাজার কোটি টাকা

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১ জুন ২০২০  

আগামী ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে ভর্তুকি, প্রণোদনা ও ঋণ খাতে বরাদ্দ বাড়ছে প্রায় সাড়ে ৫ হাজার কোটি টাকা। এসব খাতে চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের বরাদ্দ ছিল ৪৭ হাজার ৪৩৩ কোটি টাকা। ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে বরাদ্দ রাখা হচ্ছে ৫২ হাজার ৮৩৮ কোটি টাকা, যা চলতি অর্থবছরের চেয়ে ৫ হাজার ৪০৫ কোটি টাকা বেশি। এ খাতের ব্যয় জিডিপির ১ দশমিক ৬৬ শতাংশ। খবর অর্থ বিভাগ সূত্রের।

জানা গেছে, আগামী অর্থবছরে বিভিন্ন খাতে ভর্তুকি থাকছে ২৩ হাজার ৯৫৩ কোটি টাকা, প্রণোদনা ২২ হাজার ৮৮৫ কোটি টাকা, নগদ ঋণ সহায়তা থাকছে ৬ হাজার কোটি টাকা। প্রসঙ্গত, আগামী ১১ জুন জাতীয় সংসদে ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এবারের বাজেটের সম্ভাব্য আকার ধরা হয়েছে ৫ লাখ ৬০ হাজার থেকে ৬৫ হাজার কোটি টাকা। এটি হচ্ছে বর্তমান সরকারের তৃতীয় মেয়াদের দ্বিতীয় বাজেট। একই সঙ্গে অর্থমন্ত্রী হিসেবে আ হ ম মুস্তফা কামালের দ্বিতীয় বাজেট।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, চলতি অর্থবছরে ভর্তুকি খাতে ২৪ হাজার ৪৮ কোটি টাকা বরাদ্দ থাকলেও পরবর্তী সময়ে তা কমিয়ে ২৩ হাজার ১৯২ কোটি টাকা করা হয়। আগামী অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ রাখা হচ্ছে ২৩ হাজার ৯৫৩ কোটি টাকা। ২০২০-২১ অর্থবছরে সবচেয়ে বেশি ভর্তুকি দেওয়া হবে বিদ্যুৎ খাতে। ভর্তুকির পরিমাণ প্রাথমিকভাবে প্রাক্কলন করা হয়েছে ৯ হাজার কোটি টাকা। চলতি অর্থবছর এ খাতে ভর্তুকি রয়েছে ৯ হাজার ৫০০ কোটি টাকা। এর পরই রয়েছে খাদ্য খাতে ভর্তুকি, যার পরিমাণ ৫ হাজার ৯৫৩ কোটি টাকা। এ খাতে চলতি অর্থবছরে বরাদ্দ রয়েছে ৪ হাজার ৯৪৮ কোটি টাকা। এ ছাড়াও অন্যান্য খাতে মোট ভর্তুকি রাখা হচ্ছে ৯ হাজার কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরে এ খাতে মোট ৯ হাজার ৬০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

আগামী অর্থবছরের বাজেটে প্রণোদনা ২২ হাজার ৮৮৫ কোটি টাকা রাখা হচ্ছে। চলতি অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১৯ হাজার ৩৮৫ কোটি টাকা। এর মধ্যে কৃষি খাতের জন্য ৯ হাজার ৫০০ কোটি টাকা রাখার প্রস্তাব করা হচ্ছে। রেমিট্যান্সের জন্য বরাদ্দ রাখা হচ্ছে ৩ হাজার ৬০ কোটি টাকা। রপ্তানিতে নগদ প্রণোদনাও রাখা হচ্ছে ৬ হাজার ৮২৫ কোটি টাকা। পাটের জন্য রাখা হচ্ছে ৫শ কোটি টাকা।

এ ছাড়া নগদ ঋণ খাতে চলতি অর্থবছরের চেয়ে ২ হাজার কোটি টাকা বাড়িয়ে ৬ হাজার কোটি টাকা করা হচ্ছে। চলতি অর্থবছরে এ খাতে ৪ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ আছে।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
জাতীয় বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর