• রোববার   ২৫ অক্টোবর ২০২০ ||

  • কার্তিক ৯ ১৪২৭

  • || ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

১৩৯

বিয়ের আগে নারীদের মনে যেসব প্রশ্ন উঁকি দেয়

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২ অক্টোবর ২০২০  

বিয়ের আগে নারীর মনে নানা জল্পনা-কল্পনার উদয় হয়। সাজ-পোশাক থেকে শুরু করে নতুন ঘরে সদস্যদের সঙ্গে মানিয়ে নেয়া বিষয়ে সব নারীরাই চিন্তিত থাকেন। এমনকি বিয়ের পর হানিমুন যাওয়ার বিষয়টি নিয়েও ভাবেন নারীরা।

টুকটাক অনেক বিষয়েই এই সময় নারীরা চিন্তিত থাকেন। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক বিয়ের আগে কেন নারীদের মনে হাজারো প্রশ্ন উঁকি দেয়?

> বিয়ের আগে সাজের বিষয়টি নিয়ে নারীরা বেশি চিন্তিত থাকেন। কোথায় সাজবেন? বিয়ের দিন সেুন্দর দেখাবে তো? ইত্যাদি প্রশ্ন মাথায় ঘুরপাক খায়। তাই হাতে সময় নিয়ে বিয়ের কয়েক মাস আগে থেকেই মেকআপ আর্টিস্টের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। মেকআপ বাজেটের কথা ভুলে যাবেন না।

> বাঙালি নারীরা গহনা পেলে যেন সবকিছুই ভুলে যায়। বিয়ের দিন তো আর যেমন তেমন গহনা পরলে হবে না। এজন্য চাই স্পেশাল ডিজাইনের কিছু। খুব দামি কিছু না কিনতে পারলে অযথা মন খারাপ করবেন না।

> বিয়ের সাজ পরিপূর্ণ করতে কন্যার নাকে নথ থাকা চাই। সাধারণত এখন অনেকেই নাক ফুটানোর কষ্ট থেকে মুক্তি পেতে ফলস রিং পরে থাকে। অন্যান্য গহনার সঙ্গে ম্যাচিং করেই নথ কেনাই ভালো। 

> বিয়েতে সাধারণত চুলের মাঝ বরাবর সিঁথি করে টিকলি পরানো হয়। এখন টিকলিতে আছে আকর্ষণীয় সব ডিজাইন। টিকলিতে একটা বড় রঙিন স্টোন থাকলে আপনার সাজে অন্যরকম লুক দেবে।

> বিয়েতে কানে অন্য কোনো দুলের থেকে ঝুমকো বেশি মানায়। সোনার ঝুমকো প্রাধান্য পেলেও আধুনিক ডিজাইনের ঝুমকোও বেশ জনপ্রিয়।

> অনেক সময় কনের পোশাক-গহনা কেনায় বেশি সময় চলে যায়। ব্যাগ-জুতা কেনা হয় একদম শেষ মুহূর্তে। এতে করে ব্যাগ ও জুতার ম্যাচিং অনেক সময় হয় না। তাই নতুন বউয়ের জুতা-ব্যাগও হওয়া চাই আকর্ষণীয়।

> এখন রতনচূড় পরার প্রথা কমে গেলেও এ বিশেষ গহনা কন্যার সাজে আলাদা মাত্রা যোগ করে। হাতে একটি বালার মত অংশ থাকে তার সঙ্গে চেন দিয়ে যোগ করা থাকে রিং। 

> বিয়ের অনুষ্ঠানে পছন্দের তালিকায় লাল রঙই প্রথম থাকে। কন্যার জন্য থাকবে লাল বেনারসি এ প্রত্যাশা কম বেশি সবাই করে। তবে লাল পরতে যদি কারও আপত্তি থাকে তাহলে লাল ঘেঁষা অন্য যেকোনো রং পরা যেতে পারে। এখন বেনারসি শাড়ি ছাড়াও পলি সিল্ক, জর্জেট, কিংবা শিফনের ওপর কাজ করা শাড়িও বিয়ের উপযুক্ত।

> বিয়ে জীবনের একটা অন্যতম স্পেশাল ঘটনা। তাই নিমন্ত্রণপত্রও স্পেশাল হওয়া চাই। 

> বিয়ের ফটোগ্রাফি নিয়ে বর-কনে দু’জনেরই অনেক আকাঙ্খা থাকে। এই দিনের সেরা মুহূর্তগুলো ফ্রেমে বন্দি রাখতে চায় সবাই। ফটোগ্রাফারের জন্য একটু সময় আলাদা করে বাঁচিয়ে রাখুন।

> বিয়ের আগেই হানিমুনের জন্য প্রস্তুতি নিন। নিরিবিলি জায়গা পছন্দ করুন। হানিমুনে গিয়ে সঙ্গীকে কীভাবে সারপ্রাইজ দিবেন তা অবশ্যই আগে থেকে মাথায় রাখুন। ছোট ছোট কিছু মুহূর্ত উপভোগ করুন।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
লাইফস্টাইল বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর