• বৃহস্পতিবার   ২২ এপ্রিল ২০২১ ||

  • বৈশাখ ৯ ১৪২৮

  • || ১১ রমজান ১৪৪২

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন মমতাময়ী মা

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন মমতাময়ী মা। দেশের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের মানুষের খবর রাখেন জননেত্রী এ মা। তাঁর নেতৃত্বে দেশের সকল সমস্যা ধীরে ধীরে সমাধান হচ্ছে। দেশের অবহেলিত তৃতীয় লিঙ্গ মানুষের মাথা গোঁজার ঠাঁই করে দিচ্ছেন তিনি। মুজিববর্ষে পাকা ঘর ও কর্মসংস্থানের সুযোগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। দেশের মমতাময়ী এমন মা পেয়ে আমরা গর্বিত।

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার হাটিকুমরুল ইউনিয়নের স্বরস্বতী নদীর পাড়ে আশ্রয়ণ প্রকল্পে পাকা ঘর পাওয়া তৃতীয় লিঙ্গের মানুষরা প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে এমন আবেগজড়িত কথাগুলো সাংবাদিকদের বলেছেন।

ওই আশ্রয়ণ প্রকল্প ঘুরে দেখা গেছে তৃতীয় লিঙ্গের ৩০ জনকে পুনর্বাসন করা হয়েছে সেখানে। এ প্রকল্পে তাদের প্রত্যেককে ২ শতাংশ জমির মালিকানাসহ পাকা ঘর, গবাদি পশু ও উপার্জনের জন্য সেলাই মেশিনও দেয়া হয়েছে। সেলাই মেশিন ও গবাদি পশু পালন প্রশিক্ষণও দেয়া হয়েছে।

এছাড়া ছাগল, হাঁস-মুরগি ও কবুতর পালন করছেন তারা। অনেকেই বিভিন্ন শাক-সবজি চাষ শুরু করছেন। সবমিলে এখন তারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছেন এবং তারা নতুন করে বেঁচে থাকার স্বপ্ন দেখছেন।

ওই প্রকল্পের তৃতীয় লিঙ্গের নেত্রী মায়াসহ অনেকেই বলেন, আমাদের এখানে আশ্রয়ণ প্রকল্প করে দেয়ায় এ সমাজের অনেকেই বাঁকা চোখে দেখছিলেন। তবে ধীরে ধীরে এ সমাজের অধিকাংশ মানুষ আমাদের সাথে এখন কথাবার্তা বলছেন।

তারা জানান, সরকারি হিসেবে ৩০ জনকে জমি ও ঘর দেয়া হলেও ৫০ জন বসবাস করছি। এ প্রকল্পে আমরা স্বাভাবিক জীবন পেয়ে খুশি।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যন ও আ’লীগ নেতা হেদায়েতুল আলম সাংবাদিকদের বলেন, প্রথম দিকে ভেবেছিলাম, এই তৃতীয় লিঙ্গরা সামাজিক পরিবেশ নষ্ট করবে। কিন্তু এখন তারা গ্রামের মানুষের মতো স্বাভাবিক জীবনযাপন করছে। তারা কাউকে আর বিরক্ত করে না। তারা এখন সবার সাথে মিশে বেড়ায়।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান ভুইয়া সাংবাদিকদের, হাটিকুমরুলে ৩০ জন তৃতীয় লিঙ্গকে পুনর্বাসন করেছি। তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের মৌলিক চাহিদা পূরণের পাশাপাশি তাদের কর্মসংস্থানের জন্য প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে এনে জীবনমান উন্নত করার সব ব্যবস্থা করা হবে। ওই প্রকল্পে আশ্রিতদের খোঁজখবরও নেয়া হচ্ছে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ তোফাজ্জল হোসেন এ প্রতিবেদককে বলেন, সরকারের উদ্যোগে জেলায় আরো তৃতীয় লিঙ্গদের আশ্রয়ণ প্রকল্পে আনা হবে। তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ আশ্রয় প্রকল্পে এখন স্বস্তিতে। তাদের আরো সব ধরণের সহযোীগতা দেয়া হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ