• বৃহস্পতিবার   ০৪ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২০ ১৪২৭

  • || ২০ রজব ১৪৪২

ঠাণ্ডা কাশি সারাবে কুমড়া ফুল

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২০ জানুয়ারি ২০২১  

শাকসবজির মধ্যে মিষ্টি কুমড়া অতি পরিচিত একটি সবজি। কুমড়া স্বাস্থ্যের জন্যও অত্যন্ত উপকারী। তবে আমরা কুমড়া খেলেও, এর ফুল সবাই খাই না। তবে জানেন কি? কুমড়ার মতো এর ফুলও স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী। 

মিষ্টি কুমড়ার ফুল ভাজি, চপ কিংবা বিভিন্নভাবে এই ফুল খাওয়া যায়। পুষ্টিগুণের দিক থেকে মিষ্টি কুমড়ার ফুলও কিন্তু কোনো অংশে কম নয়। এতে অল্প পরিমাণে প্রোটিন এবং প্রচুর পরিমাণে খনিজ যেমন- ফসফরাস, আয়রন, সেলেনিয়াম এবং ম্যাংগানিজ থাকে।এছাড়া কুমড়া ফুল আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। এই ফুল খেলে ঠাণ্ডা কাশিসহ নানা সমস্যা সমাধান হয়। চলুন তবে জেনে নেয়া যাক মিষ্টি কুমড়া ফুলের উপকারিতা সম্পর্কে-  

> নিয়মিত কুমড়ার ফুল খেলে হাড় মজবুত হয়। এছাড়া হাড় শক্ত হলে অস্টিওপোরোসিস রোগ হওয়ার ঝুঁকি কম থাকে। 

> কুমড়া ফুলে থাকা ভিটামিন সি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। সেই সঙ্গে সাধারণ ঠাণ্ডা কাশির ঝুঁকি কমায়। এ কারণে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ কুমড়ার ফুল খাদ্য তালিকায় রাখলে ঠাণ্ডা কাশির সমস্যা কমবে। এটা বিভিন্ন ধরনের সংক্রমণ কমাতেও সাহায্য করে। 

> কুমড়া ফুলে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ থাকায় এটি দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে সাহায্য করে। ভিটামিন সি সমৃদ্ধ কুমড়ার ফুল সর্দি-কাশির সমস্যাও প্রতিরোধ করে। এর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ভিটামিন-ই আমাদের দেহকে ক্যান্সার ও আলঝেইমার রোগ হওয়ার ঝুঁকি কমিয়ে দেয়।

> এন্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ কুমড়ার ফুল ত্বকের তারুণ্য বজায় রাখে। এছাড়া এতে থাকা ভিটামিন ‘ সি ’ দাঁতের স্বাস্থ্য সুরক্ষা করে। 

> কুমড়া ফুলে প্রচুর ভিটামিন-এ থাকাই চুল ও ত্বককে উজ্জ্বল করে। 

> কুমড়া ফুলে প্রচুর পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম রয়েছে যা ডিপ্রেশন কম রাখতে সহায়তা করে। 

> কুমড়া ফুলে ক্যালরির পরিমাণ খুব কম এবং ফাইবারের পরিমাণ বেশি থাকাতে হজমে সহায়ক।  

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ