• বৃহস্পতিবার   ২৬ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১২ ১৪২৭

  • || ১০ রবিউস সানি ১৪৪২

৭০

জেনে নিন

কোন ‘মাস্ক’ করোনাভাইরাস ঠেকাবে

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ৮ মার্চ ২০২০  

সম্প্রতি সারা বিশ্বজুড়ে মহামারি রূপ ধারণ করেছে করোনাভাইরাস। এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে ৩ হাজার ৩৮৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আক্রান্ত হয়েছে প্রায় এক লাখ মানুষ। আর চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ৫৫ হাজার ৬৫৬ জন। আর দিন দিন এতে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বিশ্ব জুড়ে ৮৭ টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা। 

আমাদের দেশে এখনো এটি প্রভাব না ফেললেও প্রতিবেশী দেশ ভারতে এরইমধ্যে এটি থাবা বসিয়েছে। তাই নিজেদের স্বার্থে আগেই সচেতন হন। এই ভাইরাস প্রতিরোধের জন্য নতুন উপায়ও আবিষ্কার করার চেষ্টা চলছে। তবে এর থেকে বাঁচতে প্রাথমিকভাবে মাস্ক পরার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। 

অনেকেই হয়তো মাস্ক পড়া শুরুও করে দিয়েছেন। তবে অনেকেই মাস্কের সঠিক ব্যবহার জানেন না। আবার কোন মাস্ক করোনাভাইরাস ঠেকাবে তাও বুঝতে পারছেন না। জেনে নিন কোন মাস্ক করোনাভাইরাস প্রতিরোধ করবে-

ডিসপোজেবল মাস্ক  

ডিসপোজেবল মাস্ক বা সার্জিকাল ফেস মাস্ক ব্যবহার করুন। চিকিৎসক এবং হাসপাতালের কর্মীরাও এটি ব্যবহার করেন। চিকিৎসক এবং রোগী উভয়কেই এই মাস্ক সংক্রমণ থেকে রক্ষা করে। তবে এটি বাতাসের ছোট ছোট কণা আটকাতে পারে না। এই মাস্কগুলো তিন থেকে আট ঘণ্টার বেশি পরা উচিত নয়। 

এন৯৫ রেসিপিরেটর মাস্ক 

এই মাস্কটিকে অস্ত্রোপচারের মাস্কের চেয়েও বেশি কার্যকর হিসেবে বিবেচনা করা হয়। কারণ এটি ইনসাইড টু আইটসাইড অর্থাৎ বাইরে থেকে ভিতরে ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণকে প্রতিরোধ করে। এই মাস্কটি করোনা, এইচ১ডব্লিউ১ এবং সার্স এর মতো ভাইরাসের সংক্রমণে সহায়তা করে। এই মাস্কগুলো ভালো ফিট হয় এবং প্রায় ০.৩ মাইক্রোনের ব্যাসযুক্ত ছোট কণাগুলোকে ফিল্টার করে দেয়।

এফএফপি২ মাস্ক   

এতে পরিস্রাবণ ৯৪ শতাংশ এবং ছিদ্র ৮ শতাংশ পর্যন্ত হয়। বর্তমানে এই মাস্কগুলো করোনাভাইরাস এড়াতে পরা হচ্ছে।

এফএফপি৩ মাস্ক

এ মাস্কটি অন্যান্য মাস্কের তুলনায় মানের দিক থেকে সর্বোচ্চ। যার মধ্যে পরিস্রাবণ সাধারণত ৯৯ শতাংশ এবং ছিদ্র প্রায় ২ শতাংশ পর্যন্ত হয়। করোনা, সার্স এবং অন্যান্য মারাত্মক ভাইরাসগুলো থেকে বাঁচতে বিভিন্ন দেশে এটি ব্যবহার করা হচ্ছে।

জেনে নিন মাস্ক পরার সময় কোন বিষয়গুলো মাথায় রাখবেন-

> মাস্ক পরার আগে অ্যালকোহল ভিত্তিক হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা সাবান দিয়ে ভালো করে হাত ধুয়ে নিন।

> খেয়াল রাখবেন মাস্ক পড়ার পর তা যেন আপনার মুখ এবং নাক ভালো করে ঢাকা থাকে।   

> মাস্ক পরার পরে হাত দিয়ে তা স্পর্শ করবেন না, যদি স্পর্শ করেন তাহলে সঙ্গে সঙ্গে হাত পরিষ্কার করুন। 

> একবার ব্যবহার করা মাস্ক পুনরায় ব্যবহার করবেন না। 

কীভাবে মাস্ক অপসারণ করবেন?

> মাস্ককে কখনোই বাইরে থেকে হাত দিয়ে স্পর্শ করবেন না। 

> পিছন থেকে মাস্কটি খুলুন এবং অবিলম্বে এটি ঢাকনাসহ ডাস্টবিনে ফেলে দিন। 

> অ্যালকোহলভিত্তিক স্যানিটাইজার বা সাবান পানি দিয়ে হাত পরিষ্কার করুন। 

কারা অবশ্যই মাস্ক পরবেন?

> মেডিকেল কর্মীদের অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করা উচিত। 

> যদি কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হন। তাহলে আপনাকে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। 

> যারা সংক্রমিত রোগীদের সংস্পর্শে থাকেন। তাদের জন্য মাস্ক জীবন রক্ষাকারী একমাত্র উপায়। 

> আপনি যদি ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের অঞ্চলে বসবাস করেন। 

> আপনার যদি ফ্লুর মতো কোনো লক্ষণ দেখা দেয়।

তাই করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে মাস্ক ব্যবহার করুন। নিজে সচেতন হন এবং আপনার আশেপাশের মানুষদের সচেতন করুন। 

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর