• শুক্রবার   ০৭ আগস্ট ২০২০ ||

  • শ্রাবণ ২৩ ১৪২৭

  • || ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

৩৭

কফ ও গলা ব্যথা সারায় মিছরি, রয়েছে আরো গুণ

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৮ এপ্রিল ২০২০  

গরমে শরীর ঠাণ্ডা রাখতে মিছরির তুলনা নেই। বিভিন্ন সোডাজাতীয় কোমল পানীয়র চেয়ে এক গ্লাস মিছরির পানি পান করলে আপনার দেহ ও মন দুটোই ঠাণ্ডা হবে।

খাবারের পর অনেকেই মাউথ ফ্রেশনার হিসেবে মিছরি খেয়ে থাকেন। মিছরি আসলে পরিশুদ্ধ চিনির দলা। এটি অবশ্য চিনির চেয়ে কম ক্ষতিকর। যা চিনির বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হয়। 

কারণ এতে প্রয়োজনীয় ভিটামিন, মিনারেল এবং অ্যামাইনো অ্যাসিড থাকে। আয়ুর্বেদ শাস্ত্র মতে, মিছরি শরীরের জন্য বেশ উপকারী। জেনে নিন মিছরি শরীরে যেসব উপকার করে-

> রক্তে হিমোগ্লোবিনের পরিমাণ কমে গেলে অ্যানিমিয়া, চোখে ঝাপসা দেখা, দুর্বলতা, ক্লান্তি বোধ দেখা দিতে পারে। এক্ষেত্রে মিছরি শুধু হিমোগ্লোবিনের পরিমাণই বাড়ায় না, পাশাপাশি রক্তের প্রবাহও ঠিক রাখে।

> হজম শক্তি উন্নত করে মিছরি। মৌরির সঙ্গে মিছরি মিশিয়ে খেলে হজম শক্তি বাড়ে দ্রুত। তাই খাওয়ার পর মিছরি খেতে পরামর্শ দেন পুষ্টিবিদরা।

> খাবার খাওয়ার পর মিছরি খেলে তাৎক্ষণিক অ্যানার্জি পাওয়া যায়। তাই দুপুরে ভাত খাওয়ার পর যদি আলস্য বোধ করেন, এক টুকরো মিছরি খেতে পারেন।  

> মৌসুমী ঠাণ্ডার কারণে কফ ও গলা ব্যথার সমস্যা দেখা দেয়। এ সমস্যা থেকে নিস্তার পেতে গোলমরিচের গুঁড়ার সঙ্গে ঘি ও মিছরি মিশিয়ে পেস্ট করে রাতে খেলে উপকার পাওয়া যায়। এছাড়া একটি বাটিতে গোলমরিচ গুঁড়া ও মিছরির গুঁড়া কুসুম গরম পানির সঙ্গে মিশিয়ে রাতে পান করলেও কফ ও গলা ব্যথা দূর হয়।

> গরমে অনেকের নাক দিয়ে রক্ত পড়ে। নাকের ভেতর শুকিয়ে যাওয়ার কারণে এরকম হয়। এদের জন্যও মিছরির পানি অনেক উপকারী। 

> মুখে আলসার থাকলে এলাচের সঙ্গে মিছরির গুঁড়া মিশিয়ে তারপর একটু পানি দিয়ে পেস্ট তৈরি করে সেটা ঘায়ের ওপর লাগিয়ে রাখলে উপকার পাবেন।

মিছরি মিষ্টিজাতীয় একধরনের দানাদার পদার্থ। এটি প্রধানত সাদা বা চিনির মিছরি ও তালমিছরি এই দুই ধরনের হয়। মিছরি তৈরিতে তাল বা আখের রস জ্বাল দেয়া হয় একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত। চিনির মিছরি আখের রস এবং তালমিছরি তালের রস দিয়ে তৈরি করা হয়।

জ্বাল দেয়ার পর রসগুলো একটি পাত্রে রেখে নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় কোনো একটি বন্ধ ঘরে ঢেকে রাখা হয়। সপ্তাহখানেক পর রসের ওপরে ও নিচের অংশ শুকিয়ে দানাদার মিছরিতে পরিণত হয়।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর