• শনিবার   ১৯ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ৫ ১৪২৮

  • || ০৯ জ্বিলকদ ১৪৪২

এমপি জয় এর তাৎক্ষণিক নির্দেশে পর্যটন এলাকায় প্রাণচাঞ্চল্য

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ৮ জুন ২০২১  

সিরাজগঞ্জের কাজিপুর উপজেলার মেঘাইতে যমুনা নদীর তীরে সরকার গড়ে তুলছে পর্যটন এলাকা। এরই মধ্যে এই প্রকল্পের অনেকখানি অগ্রগতি হয়েছে। কাজিপুরসহ আশপাশের ধুনট, সারিয়াকান্দি, সরিষাবাড়ী, সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার মানুষজন পরিবার পরিজন সহ যমুনার নান্দনিক রূপকে উপভোগ করতে আসেন মেঘাই পর্যটন এলাকায়। এরইমধ্যে সেখানে ছাতা, নাগর দোলা, চটপটি হাউজ, কফিসপ,ডিঙি নৌকা সহ ভ্রাম্যমান অনেক দোকান বিকেল হলেই পণ্যের পশরা সাজিয়ে বসেন। সম্প্রতি বৃষ্টিতে মেঘাই পাকা রাস্তা থেকে পর্যটন এলাকায় ঢোকার পাঁচশ ফুট কাঁচা রাস্তার বেহাল দশা।

রাস্তার দুপাশে বাড়িঘরের কারণে মূল রাস্তায় জমে থাকে পানি। আর এই রাস্তা দিয়েই চরাঞ্চলের ছয়টি ইউনিয়নের দেড়লক্ষ মানুষ পণ্য নদীর ঘাটে পন্য পরিবহন ও যাতায়াতের জন্য ব্যবহার করে থাকেন। এছাড়া প্রতিদিন প্রায় চারশ থেকে পাঁচশ বালিবাহী ট্রাক চলার কারণে ওই রাস্তায় হাটু পরিমাণ কাদা জমে খিরের আকার ধারণ করে। এতে করে ওই রাস্তায় সকল প্রকার যান চলাচল প্রায় বন্ধ হয়ে যায়।

 বিষয়টি আ.লীগের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ গত বৃহস্পতিবার সংসদ সদস্য প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয়কে জানান। শোনার পরে  তিনি তাৎক্ষণিক ওই রাস্তাটি চলাচলের উপযোগী করতে স্থাণীয় নেতাদের নির্দেশ দেন।

এরপর গত শনিবার থেকে ওই রাস্তায় ইট ও বালি ফেলে মেরামতের কাজ শুরু হয়।   সোমবার(৭ জুন) বিকেলে কাজিপুর সদর ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মতিন মাস্টার জানান, এমপি মহোদয়ের নির্দেশে আমরা কাজটি আজ শেষ করেছি। ওই রাস্তায় এখন সবকিছু চলাচল শুরু হয়েছে।পর্যটন এলাকায় ফিরে এসেছে প্রাণচাঞ্চল্য।

 ওই রাস্তার পাশে গড়ে ওঠা ফাস্টফুড ও কফিসপ স্বপ্নচূড়ার প্রতিনিধি কামরুল ইসলাম বাবু জানান, রাস্তার বেহাল অবস্থার কারণে আমাদের দোকান প্রায় বন্ধের উপক্রম হয়েছিলো। এখন ইনশা আল্লাহ  আবারো চলছে। রাস্তার পাশের মুদি দোকানী রুবেল, মান্নান, রেজাউল ও বাদশা জানাযন, রাস্তাটি মেরামতের ফলে জনদুর্ভোগ লাঘব হয়েছে।  তানভীর শাকিল জয় এমপি’কে  তারা কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানান।

 মুঠোফোনে সংসদ সদস্য প্রকৌশলী তানভীর শাকিল জয়  বলেন, ‘ জনদুর্ভোগ লাঘবে আপাতত ইঠ ফেলে চলাচলের উপযোগী করা হয়েছে। শিঘ্রই ওই রাস্তাটি স্থায়ীভাবে মেরামতের ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ