• শনিবার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ ||

  • আশ্বিন ১১ ১৪২৭

  • || ০৯ সফর ১৪৪২

৭৪৮

একই সময়ে অতীত, বর্তমান আর ভবিষ্যত রয়েছে : পড়ে দেখুন।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১১ নভেম্বর ২০১৮  

দিনের বেলা রাস্তা দিয়ে হাটছি, দেখি রাস্তায় একটি মানিব্যাগ পড়ে রয়েছে, আশেপাশে তাকিয়ে দেখি কেউ নাই, এবার আকাশে তাকিয়ে সূর্য ছাড়া আর কিছুই দেখতে পেলামনা কোত্থেকে হঠাৎ স্টিফেন হকিং আংকেল এসে বলে আমি নাকি মানিব্যাগটা দেখলেও সূর্যটাকে দেখিনি মনে মনে বললাম আংকেলতো এমনিই লুলা, এখন দেখি মাথায় ছিটও আছে জোর গলায় বললাম, এই যে মানিব্যাগটা এখনো পড়ে আছে যেমন দেখা যাচ্ছে ঠিক সেইরকমভাবে ঐতো আকাশে সূর্য়টাকেও দেখা যাচ্ছে  

তুমি যেই সূর্যটাকে দেখছে সেটা আট মিনিট বিশ সেকেন্ড আগেই মারা গেছে

অসম্ভব! ঐতো সূর্য

আচ্ছা বলতো আমরা কিভাবে দেখি

কোন বস্তুর যদি নিজস্ব আলো থাকে এবং সেই আলো যদি আমাদের চোখে এসে পড়ে তবে আমরা সেই বস্তুটাকে দেখি যেমন- সূর্যের নিজস্ব আলো আছে আর সেই আলো আমার চোখে এস পড়ছে তাই আমি সূর্যটাকে দেখছি আর একভাবে দেখা যায়, যার নিজস্ব আলো নেই তার উপর অন্য কোথাও থেকে আলো এসে পড়ে সেই আলো প্রতিফলিত হয়ে এসে যদি আমার চোখে এসে পড়ে তবে আমি সেই বস্তুটাকেও দেখি যেমন- এই মানিব্যাগটার উপর সূর্যের আলো পড়ে প্রতিফলিত হয়ে আমার চোখে পড়ছে তাই আমি মানিব্যাগটাকেও দেখছি (সায়েন্সে পড়ছিলাম তো এক সময়, তাই বিদ্যাটা ফলায়ে দিলাম)

অ্যাবসলিউটলি রাইট। এখন বলতো পৃথিবী থেকে সূর্যের দুরত্ব কত ?

মাত্র ১৫ কোটি কিলোমিটার

আলোর গতি ?

আলোর গতি মাইল হিসাবে প্রতি সেকেন্ডে ১লক্ষ ৮৬হাজার মাইল আর কিলোমিটার হিসাবে প্রতি সেকেন্ডে ৩লক্ষ কিলোমিটার

তার মানে তুমি বলতে চাচ্ছ সূর্য নামক বস্তুটাকে আমরা তখনই দেখি যখন এর থেকে কোন আলো এসে আমাদের চোখে পড়ে কিন্তু পৃথিবী থেকে সূর্যের দুরত্ব পনের কোটি কিলোমিটার হওয়ায় আলোকে এই দীর্ঘ পথ সেকেন্ডে ১লক্ষ ৮৬হাজার মাইল গতিতে পাড়ি দিয়ে পৃথিবীতে এসে যখন আমার চোখে পড়বে তখনই আমি দেখতে পাবে এখন তুমি কি বলতে পারবে যে আলোর সূর্য হতে পৃথিবীতে আসতে কত সময় লাগবে ?

অবশ্যয় পারব এক সেকেন্ডে যাবে ৩লক্ষ কিলোমিটার, অতিএব পনের কোটি কিলোমিটার যাবে ৮মিনিট ২০ সেকেন্ডে ( ১৫ কোটি ÷ ৩লক্ষ = ৫০০ সেকেন্ড = ৮মিনিট ২০ সেকেন্ড )

এইতো লাইনে চলে আসছো, তার মানে এখন তুমি যেই সূর্যটাকে দেখছো সেই সূর্যটা ঠিক ৮মিনিট২০সেকেন্ড আগের সূর্য  

( কী যুক্তি দিলরে বাবা) হ্যা আংকেল

এখন মনে কর সূর্যটাতে কেউ সকাল ১০টা ১মিনিট ১সেকেন্ডের মাথায় বোম মেরে ধ্বংস করে ফেললো, তারপরেও আমরা সকাল ১০টা ৯মিনিট ১৯সেকেন্ড পর্যন্ত সূর্যটাকে দেখতে পারব এই জন্যেই আমি তোমাকে বলেছিলাম আমরা এখন যেই সূর্যটাকে দেখছি সেটা হয়তো মারা গেছে কিন্তু বাস্তবে আমাদের কাছে মনে হচ্ছে – এইতো মাত্রই দেখলাম

ইন্টারেস্টিং তো

এখন মনে কর পৃথিবী হতে ৩০ কোটি কিলোমিটার দুরের কোন সূর্যকে আমরা কখন দেখতে পারব

অবশ্যয় ১৬ মিনিট ৪০ সেকেন্ড পরে দেখতে পাব
( হাটতে হাটতে সন্ধা হয়ে গেছে, তারপরেও আংকেল আমারে ছাড়েনা )

আচ্ছা আলোকবর্ষ কি তুমি কি তা জান ?

জানিতো আলো এক বছরে যে দুরত্ব অতিক্রম করে তাকে এক আলোকবর্ষ বলে

তার মানে তুমি বলতে চাচ্ছ যে, আলো এক সেকেন্ডে যদি ৩লক্ষ কিলোমিটার যায় তাহলে এক বছরে যাবে মেলা কিলোমিটার। থাক হিসাব আমাদের না জানলেও চলবে (১বছর = ৩৬৫ দিন = ৩৬৫×২৪ ঘন্টা = ৩৬৫×২৪×৬০×৬০ সেকেন্ড× লক্ষ কিলোমিটার = যত কিলোমিটার হয়)

জী, এইরকম হিসাব করতে গেলে আমারও মাথা গোল্লায় যাবে, আপনি সহজে বলেন

এখন এক আলোক বর্ষ দুরের আজকের দিনে ঘটে যাওয়া কোন কিছু দেখতে হলে আমাদেরকে আজ থেকে ঠিক একবছর অপেক্ষা করতে হবে তাই নয় কি?

ঠিক তাই, ভেরি ইন্টারেস্টিং !

এখন মনে কর পৃথিবী থেকে ৫০০ আলোকবর্ষ দুরে সূর্যের থেকেও প্রকান্ড কোন নক্ষত্রে (ছবিতে যেটি প্রাচীন নক্ষত্র হিসেবে চিহ্নিত) বসে একটা ছেলে সাহায্যের জন্য হাত নাড়ছে, তাহলে আমরা তাকে কখন দেখতে পাব

আজ থেকে ঠিক ৫০০ বছর পরে

তাহলে আজ আমরা বর্তমানে বসে যে ছেলেটিকে দেখতে পাচ্ছি সেটি ছেলের কাছে ৫০০ বছর পূর্বের ঘটে যাওয়া অতীত এত দিনে সে তো মারা গেছে তার চৌদ্দ গোষ্ঠীও হয়ত মারা গেছে এখন মনে কর, পৃথিবী থেকে ৫০০ আলোকবর্ষ দুরে পৃথিবিীর মত আরেকটা গ্রহে বসে একটা ছেলে কখন দেখবে

আরও ৫০০ বছর পর

তাহলে একই ঘটনা তিন জনের কাছে তিন রকম, পৃথিবীর তোমার কাছে যেটি বর্তমান, সেটি প্রাচীন নক্ষত্রে থাকা ছেলেটির কাছে অতীত, আবার অজানা গ্রহে থাকা ছেলেটি আজও দেখেনি- তার কাছে সেটি ভবিষ্যৎ  

সত্যিই তাই, এভাবে কখনো তো ভেবে দেখিনি

একটা নক্ষত্র দেখতে হয়তো তোমার এক সেকেন্ড লাগবে, কিন্তু তুমি জাননা, তোমার এই এক সেকেন্ড সময় ইতোমধ্যেই ৫০০ বছর ঘুরে এসেছে এটাই ব্রিফ হিস্ট্রি অফ টাইম

আংকেল আরো কিছু বলেন

এখন বল সময় কী ? অতীত, বর্তমান ভবিষ্যৎ বলে কিছু কি আছে ? তুমি কি তোমার অতীতে আছো, নাকি বর্তমানে আছো, নাকি ভবিষ্যতে আছো

আমি এইসব চিন্তা করছি, চিন্তা করছি হঠাৎ আমার মোবাইলটা বেজে উঠল ঘড়ির দিকে তাকিয়ে দেখি ভোর পাচটা বাজে কিন্তু আমার ঘোর কাটছেনা নিজের গায়েই একটা চিমটি কেটে দেখলাম, আমি কি আমার অতীতে আছি, নাকি বর্তমানে, নাকি ভবিষ্যতে আছি

(সংগৃহীত)

 

 

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর