• শনিবার   ১৯ জুন ২০২১ ||

  • আষাঢ় ৫ ১৪২৮

  • || ০৯ জ্বিলকদ ১৪৪২

উল্লাপাড়ায় ৫ দিন অনশনের পর বিয়ের পিরিতে প্রেমিক-প্রেমিকা

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২৮ মে ২০২১  

উল্লাপাড়ায় বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে ৫ দিন অনশনের পর চেয়ারম্যানের মধ্যস্থতায় বিয়ের পিরিতে বসেছেন প্রেমিক-প্রেমিকা । বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উল্লাপাড়া উপজেলার বাঙ্গালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ সোহেল রানা ।

প্রেমিক রানা উপজেলার বাঙ্গালা ইউনিয়নের দক্ষিণ গাইলজানি গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে মোঃ রানা(২০) এবং প্রেমিকা একই গ্রামের মোঃ আব্দুল কাদেরের মেয়ে মোছাঃ ময়না খাতুন(১৯) । দুজনই ঘোনা কুচিয়ামারা ডিগ্রী কলেজের শিক্ষার্থী ।

জানা যায়, উপজেলার বাঙ্গসলা ইউনিয়নের ঘোনা কুচিয়ামারা ডিগ্রী কলেজের দুই শিক্ষার্থীর স্কুল জীবনে অধ্যায়োনরত অবস্থায় তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে ।


রবিবার রাতে প্রেমের টানে প্রেমিক রানা প্রেমিকা ময়নার সাথে দেখা করতে তার বাড়িতে আসে । বিষয়টি স্থানীয়রা টেরপেয়ে রানাকে আটকের চেষ্টা করে । এ সময় প্রেমিক রানা কৌশলে পালিয়ে যায় । এ ঘটনা গ্রামের মধ্যে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে উঠে । কলেজ ছাত্রী প্রেমিকা ময়না অন্য কোন উপায় খুঁজে না পেয়ে প্রতিবেশি প্রেমিক রানার বাড়িতে উঠে বিয়ের দাবী নিয়ে অনশন শুরু করে ।

প্রেমিকা কলেজ ছাত্রী ময়না জানায় প্রতিবেশি রানার সাথে স্কুল জীবন থেকে তার প্রেমের সম্পর্ক । কলেজ জীবনে গিয়ে রানা বিয়ের প্রলোভনে তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে । বিয়ের কথা বল্লে রানা অস্বীকৃতি জানিয় তালবাহানা শুরু করে । অন্য কোন উপায় না পেয়ে প্রেমিকের বাড়িতে উঠে পড়ে । বিয়ে না হওয়া পর্যন্ত সে ওই বাড়ি থেকে অন্য কোথায় যাবে না । সে আরো জানায় বাড়িতে অবস্থান করার প্রথম দু’দিন রানা বাড়িতে ছিলো । বিয়ে পড়িয়ে দেয়ার কথা বলে রানাকে কৌশলে অন্যত্রে সড়িয়ে দিয়েছে তার পরিবারের লোকজন । প্রেমিককে অন্যত্র সরিয়ে দেওয়ায় প্রেমিকা বিষ পানে অথবা গলায় দড়ি দিয়ে ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করার হুমকি দিতে থাকে ।
বিষয়টি সুরাহা করার জন্য এগিয়ে আসেন উপজেলার বাঙ্গালা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ সোহেল রানা । তিনি জানান উভয় পরিবারের সাথে দীর্ঘ সময় আলোচনার মধ্যমে ৫ দিনের মাথায় বৃহস্পতিবার রাতে ১০ লাখ টাকা কাবিন নামা করে প্রেমিক-প্রেমিকাকে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ করেন । দীর্ঘদিনের প্রেমের সম্পর্ক বিয়ের মাধ্যমে সমাপ্ত হওয়ায় গ্রামবাসী আনন্দে মেতে উঠে ।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ