• বুধবার   ২৭ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৭

  • || ০৪ শাওয়াল ১৪৪১

১০

উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি হার্ট সুস্থ রাখবে তরমুজের খোসা

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২১ মে ২০২০  

ভেতরে লাল টকটকে বাইরে সবুজ রঙা তরমুজ খুবই সুস্বাদু ও পুষ্টিকর একটি ফল। গরমে প্রশান্তি দিতে তরমুজের তুলনা হয় না। তরমুজের প্রায় ৯৫ শতাংশই পানি থাকে। শরীরের আর্দ্রতা ধরে রাখতে তরমুজের বিকল্প হয় না।

এতে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন এ, সি, বি ৬, পটাশিয়াম ও আঁশ। তরমুজ বলতে শুধু আমরা এর ভেতরের লাল রসালো অংশটুকুই বুঝি। আর তাই সবুজ খোসা ফেলে সেটুকুই খেয়ে থাকি। তবে জানেন কি এর বাইরে অংশটুকুও কিন্তু সবজি হিসেবে বিভিন্ন পদ হিসেবে রান্না করে খাওয়া যায়। 

অনেকেই হয়তো জানেন না তরমুজের ভেতরের সুস্বাদু অংশের মতো বাইরের খোসাটিও খাওয়ার উপযোগী এবং সেখানেও রয়েছে অনেক পুষ্টিগুণ। তরমুজের খোসাকে ইংরেজিতে বলে ওয়াটারমেলন রিন্ড। এতে রয়েছে প্রচুর পানি, অল্প পরিমাণ ভিটামিন সি, এবং বি ৬। আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদানে ভরপুর এই তরমুজের খোসা। তার নাম সিট্রালিন। 

এটি এক ধরনের অ্যামাইনো অ্যাসিড, যা আমাদের শরীরে প্রাকৃতিকভাবে তৈরি হয়। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে, হার্ট এবং রক্তনালিকে সুস্থ রাখতে সাপ্লিমেন্ট হিসেবেও এটি খাওয়া হয়। আমাদের কিডনি সিট্রালিনকে রাসায়নিকভাবে রূপান্তর করে আরজিনিন নামক আরেকটি অ্যামাইনো অ্যাসিড এবং নাইট্রিক অক্সাইড তৈরি করে। 

নাইট্রিক অক্সাইড আমাদের রক্তনালীসমূহকে প্রসারিত করে এবং রক্তের সঞ্চালন বাড়িয়ে দেয়। তাই এটি উচ্চ-রক্তচাপ কমাতে সহায়তা করে। বেশ কয়েকটি গবেষণায় দেখা গেছে, সিট্রালিন পুরুষদের যৌন সমস্যা ইরেকটাইল ডিসফাঙ্কশনেও বেশ কার্যকরী।

কীভাবে খাবেন তরমুজের খোসা?

উপরের খোসার প্রথম স্তর সবজির মতো কেটে নিন। এরপর টুকরো করে সালাদ বা জুস হিসেবে খেতে পারেন। তরমুজের খোসা দিয়ে আঁচার ও হালুয়াও তৈরি করা যায়। 

এছাড়াও তরমুজের খোসা লাউয়ের মতো ছোট টুকরো করে ডাল, টমেটো, শুটকি মাছ ইত্যাদির সঙ্গে রান্না করে খেতে পারেন। এটি খেতে অনেকটা চাল কুমড়ার মতো। তবে রান্নার চেয়ে কাঁচা খেতে পারলে বেশি উপকারী।

সূত্র: হেলথলাইন

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
স্বাস্থ্য বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর