শনিবার   ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০   ফাল্গুন ১৬ ১৪২৬   ০৫ রজব ১৪৪১

১০

ইসিজি মেশিন ক্রয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আবারো দুর্নীতি – অন্তরালে

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

থামছেই না স্বাস্থ্যখাতে অনিয়ম, দুর্নীতি ও ক্রয় বানিজ্য । স্বাস্থ্যমন্ত্রীর এপিএস এর পরে এবার থলে থেকে বেড়িয়ে এলো একই মন্ত্রনালয়ের আরো দুইজনের নাম । প্রফেসর ডাঃ আবুল হাশেম খান (তৎকালীন লাইন ডিরেক্টর বর্তমান এডিপি) এবং ডাঃ সহদেব চন্দ্র রাজবংশী (তৎকালীন প্রকিউরমেন্ট ম্যানেজার বর্তমান লাইন ডিরেক্টর) এর তত্বাবধানে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কমিউনিটি ডিজিজ এন্ড থেলথ কেয়ার এর আওতায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর জন্য ৪০০ টি ইসিজি মেশিন ক্রয়ের দরপত্র আবেদন করা হয় । সেখানে সরকারি পাবলিক প্রকিউরমেন্ট রুল (PPR) অমান্য করে এমন একটি টেকনিক্যল স্পেসিফিকেশন তৈরি করা হয় যেন শুধুমাত্র গুটিকয়েক প্রতিষ্ঠান টেন্ডারে অংশগ্রহণ করতে পারে । বাজার যাচাই করে দেখা যায় একেকটি ৬ চ্যানেল ইসিজি মেশিনের দাম মাত্র ৬০০০০ থেকে ৯০০০০ টাকা । কিন্তু বরাদ্দ দেয়া হয় ১ লাখ ২০ হাজার টাকা করে । দেশীয় উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানসহ টেন্ডারে অংশগ্রহণ করে ১৭টি প্রতিষ্ঠান যারা ক্রমানুসারে নিম্নে উল্লেখিত দাম অফার করে –
1. Jaoria International – ২,২৬,২০,০০০
2. M/S Lemon Construction –৩,৪০,০০,০০০
3. Belal & Brothers – ৩,৪২,০০,০০০
4. Trade House – ৩,৪৭,১৮,০০০
5. Tropical Trading –৩,৫৬,০০,০০০
6. GMESCO – ৩,৯৫,০৮,০০০
7. Bogra Trade Center – ৪,১৫,৮০,০০০
8. JMI Syruings – ৪,১৮,০০,০০০
9. Nur Surgical – ৪,২০,০০,০০০
10. One Trade – ৪,২২,১৩,৬০০
11. Incentive Medical – ৪,২৭,০০,০০০
12. M/S Fareque traders JV – ৪,৪৪,০০,০০০
13. Makka Traders – ৪,৫২,০০,০০০
14. Toma Construction – ৪,৭৬,৭৮,০০০

সর্বনিম্ন দামে মেশিন সরবরাহ করতে চাওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো যথাযথ কোয়ালিটি সার্টিফিকেট, অভিজ্ঞতা ও টেকনিক্যল স্পেসিফিকেশন এর ৯৭% শর্ত পূরণ করা সত্বেও কাজ দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মূল্য প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানকে । এতে প্রায় ১ কোটি ২০ লাখ টাকার অবৈধ লেনদেন হয় যার সাথে উপরে উল্লেখিত ডাঃ হাশেম ও ডাঃ রাজবংশীর জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে ।
ক্রয় কমিটিতে টেকনিক্যল বিশেষজ্ঞ হিসেবে কাদেরকে রাখা হয়েছে তাও প্রশ্নবিদ্ধ । আইন শৃংখলা বাহিনী খতিয়ে দেখছে এর পেছনে কারা কাজ করছে । সঠিক মান ও দাম অফার করা সত্বেও কাজ বঞ্চিত সকল প্রতিষ্ঠান একত্রিত হয়ে এই দুর্নীতি ও উল্লেখিত কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুদকের কাছে অভিযোগসহ অন্যান্য কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করছে বলে জানা যায় । অতিশীঘ্রই এই টেন্ডার সম্পর্কিত সকল দুর্নীতির চিত্র বের করে পেছনের কুশীলবদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে তারা আশা করছে ।

 
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
এই বিভাগের আরো খবর