• শুক্রবার   ২৯ মে ২০২০ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৭

  • || ০৬ শাওয়াল ১৪৪১

২১

অনলাইনে সাঈদীর মুক্তির গুঞ্জন, কী বলছেন আইন বিশেষজ্ঞরা?

আলোকিত সিরাজগঞ্জ

প্রকাশিত: ২ মে ২০২০  

আগামী ২ মে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে আমৃত্যু কারাদণ্ডে দণ্ডিত জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসেন সাঈদী মুক্তি পেতে যাচ্ছে বলে অনলাইনে গুজব ছড়াচ্ছে দেশের একটি কুচক্রী মহল। তাদের ভাষ্য, দুর্নীতি মামলায় সাজা ভোগ করা বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া যদি সাময়িক মুক্তি পেতে পারে, তবে সাঈদী কেন পাবেনা! বেগম জিয়ার মুক্তিকে লক্ষ্য করেই যুদ্ধাপরাধী সাঈদীর মুক্তির জন্য তারা অনলাইনে নানা গুজব ও মিথ্যাচার ছড়াচ্ছে।

এ নিয়ে আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এমন অযৌক্তিক ও অলৌকিক যুক্তি থেকেই প্রমাণিত হয় তারা কতোটা জ্ঞানশূন্য এবং অর্বাচীন। তা না হলে আইনের ধারা ও নিয়ম না জেনে তারা কিভাবে এমন ‘নিজ চিত্রনাট্যে তৈরি’ যুক্তি উপস্থাপন করে! অপ্রিয় সত্যটা হলো, আদালতের রায় অনুযায়ী আমৃত্যু সাঈদীকে জেলে থাকতে হবে। তার মুক্তির কোন সম্ভাবনা নেই।

বিশ্বস্ত একটি সূত্র জানিয়েছে, ‘চাঁদে সাঈদীকে দেখা গেছে’ কুচক্রী মহলটি দেশে আবারও বিশৃঙ্খলা তৈরির পাঁয়তারা করছে। এরই ধারাবাহিকতায় তারা এবার লন্ডনে পলাতক বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও দুর্নীতির বরপুত্র তারেক রহমানের নির্দেশনায় পরিচালিত সরকার বিরোধী ‘গুজব সেল’র সাহায্যে তারা অনলাইনে বিভ্রান্তি তৈরির উদ্দেশ্যে বলছে, আগামী ২ মে সাঈদী মুক্তি পাচ্ছে। অথচ বিষয়টি মোটেই তেমন নয়। কারণ, তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগগুলো সবই প্রমাণিত এবং আইনি ধারা বলে তার শাস্তিও হয়েছে। তারপরও আহাম্মকের মত কুচক্রী মহলে ভাষ্য, খালেদা যেহেতু সরকারের অনুকম্পায় মুক্তি পেয়েছেন, সাঈদীও পাবেন।

কুচক্রী মহলটি ‘বোকার স্বর্গে’ বাস করছে অভিহিত করে দেশের আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পারিবারিক আবেদনের প্রেক্ষিতে সাজা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য স্থগিতের অর্থ ৬ মাস অতিবাহিত হওয়ার পর তাকে আদালত নির্ধারিত সাজায় ফিরে যেতে হবে। এটি একটি আইনি প্রক্রিয়া।

আর খালেদা জিয়ার পরিবার আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই এই আবেদন করেছিলেন। অপরদিকে, সাঈদীর মানবতাবিরোধী অপরাধের মাত্রাটি আরো গভীর এবং তার শাস্তি মওকুফের কোন আবেদন না করে নিঃশর্ত মুক্তি চাওয়া আইনের প্রতি প্রবল অশ্রদ্ধা জ্ঞাপনের শামিল।

আইনের বিজ্ঞজনরা আরও বলছেন, বিএনপি-জামায়াতের চক্রটির উদ্দেশ্য অসৎ। এ কারণে তারা চলমান করোনা পরিস্থিতিতে বিএনপি দলীয় নেত্রী খালেদা জিয়ার শাস্তি স্থগিতের ইস্যু কে কাজে লাগিয়ে রাজনৈতিক, ধর্মীয়, সামাজিক ও আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সাঈদীর মুক্তির জন্য জনমত তৈরি করে সরকারের উপর চাপ প্রয়োগের পাঁয়তারা করছে। আদতে যার সিঁকেভাগও যৌক্তিকতা ও গ্রহণযোগ্যতা নেই। কারণ, যারা আইনের ধারা জানেন এবং আইন সম্পর্কে ন্যূনতম জ্ঞান রাখেন-তারা কখনোই তাদের মত অর্বাচীন সুলভ আচরণ করেন না। তাই তাদেরকে এ বিষয়ে যথার্থ পড়াশোনা করে তারপর কথা বলার আহ্বান রইল।

আলোকিত সিরাজগঞ্জ
আলোকিত সিরাজগঞ্জ
রাজনীতি বিভাগের পাঠকপ্রিয় খবর